অছাত্ররা চালাচ্ছে চুয়েট ছাত্রলীগ!

newsgarden24.com    ০৩:৫৯ পিএম, ২০২২-০৬-১৮    85


অছাত্ররা চালাচ্ছে চুয়েট ছাত্রলীগ!

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়েট ছাত্রলীগের কমিটিতে অছাত্র, বিবাহিত, মাদক ব্যবসায়ী অন্তর্ভুক্ত এবং জামায়াত-বিএনপির সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ রয়েছে। চুয়েটের নিয়মিত ছাত্ররা ৫ বছরের মধ্যে বের হয়ে যায়, কিন্তু চুয়েটের বর্তমান ছাত্রলীগ সভাপতি সৈয়দ ইমাম বাকের ২০১১ সালে ভর্তি হন। এ পর্যন্ত তিনি প্রতিটি বিষয়ে অকৃতকার্য হয়ে চুয়েটে রয়ে গেছেন। এগার বছরেও বের হতে পারেনি। চুয়েট ছাত্রলীগ সভাপতি এখনো ছাত্র!
চুয়েট ছাত্রলীগ সভাপতি মাদক মামলার আসামীও। ফলে বিবাহিত ও চাকুরিজীবীসহ হত্যা মামলার আসামীদের দখলে থাকায় বঙ্গবন্ধুর সযতেœর বাংলাদেশ ছাত্রলীগ এর চুয়েট শাখার সাংগঠনিক কাঠামো যেমন ভেঙ্গে পড়েছে তেমনি কার্যক্রম

চলছে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে।
দীর্ঘদিন ছাত্রলীগের কমিটিতে অছাত্র, ক্যাম্পাসে আধিপত্য, টেন্ডার বাণিজ্য ও স্থানীয় রাজনৈতিক কোন্দলের জেরসহ বেশ কিছু কারণে অস্থিরতা বিরাজ করছে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) ক্যাম্পাসে। অস্থিরতার নেপথ্যে কলকাঠি নাড়েন চুয়েটের বর্তমান সভাপতি সৈয়দ ইমাম বাকেরসহ কয়েকজন ছাত্রনেতা।
চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) ক্যাম্পাসে যে অস্থিরতা দেখা দিয়েছে তা কোনোভাবেই কাম্য নয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কটূক্তির প্রতিবাদে ছাত্রদল বিরোধী একটি সমাবেশ শেষে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বাসে ফেরার পথে গন্ডগোলের সূত্রপাত।
আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে শনিবার রাত থেকে উত্তপ্ত চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) ক্যাম্পাস। বিপুল সংখ্যক লাঠিসোটা, রামদা আর ইটপাটকেল নিয়ে আক্রমণাত্মক হয়ে ক্যাম্পাসে টহল দিচ্ছে ছাত্রলীগের দুই দল শিক্ষার্থী। তারা শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র আ. জ. ম নাসির উদ্দিনের সমর্থক গোষ্ঠী বলে জানা গেছে।
এ সময় আ.জ.ম নাছিরের’র অনুসারী ১৬ ব্যাচ মামুনুর রশিদ পাপেল’র সাথে থাকা মাদকাসক্তরাই ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের ওপর চড়াও হয়। পরবর্তীতে তারা ক্যাম্পাসে সশস্ত্র অবস্থান নেয়। ১৮ ব্যাচের রাফি, মাহাদী, শুভ রামদা হাতে নিয়ে ক্যাম্পাসে পাহারা দেয়। ঘটনার পরে বাকেরের অনুসারীরা রামদা নিয়ে ক্যাম্পাসে টহল দেয় এবং বাসগুলোতে উঠে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ভয় প্রদর্শন করে। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে ছাত্রলীগের দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে এবং বাকেরের অনুসারীরা শহীদ মিনার থেকে ড: কুদরাত-ই-খুদা হলে ছাত্রদের ওপর দফায় দফায় ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে এবং হলের প্রভোস্টের সাথে অশোভন আচরণ করে। এসময় দুই পক্ষের হাতেই বিপুল সংখ্যক দেশীয় অস্ত্র দেখা যায়।
এরই পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এর অনুসারী হিসেবে পরিচিত ডঃ কি. উ. কে. শেখ রাসেল হলের এবং বঙ্গবন্ধু হলে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ২০২২ সালের ১৪ জুন দিবাগত রাত ১০ টা থেকে ১৫ জুন সকাল ১০টা পর্যন্ত গোল চত্বরে অবস্থান নেয় এরই পরিপ্রেক্ষিতে প্রশাসন হল বন্ধ ঘোষণা করতে বাধ্য হয়। সেখানে ঘটে অনাকাঙ্খিত ঘটনা। মূল সমস্যা থেকে সরে গিয়ে আলোচনা এখন হামলা, মামলা অস্থিরতা নিয়ে। শিক্ষাঙ্গনে অস্থিরতা কোনোভাবেই কাম্য হতে পারে না।
রাতের অসমাপ্ত ঘটনার সূত্র ধরে রোববার দুপুরে শেখ রাসেল হলে নওফেলের সমর্থক পেট্রোলিয়াম অ্যান্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের সাজিদ নামে এক শিক্ষার্থীকে হলে পেয়ে আক্রমণ করেন নাসির সমর্থকরা। পরে নাসির সমর্থকদের প্রতিহত করতে ড. কুদরতি খুদা হল থেকে নওফেল সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে শেখ রাসেল হলে প্রবেশের চেষ্টা করেন। কিন্তু নিরাপত্তাকর্মীরা হলের গেট বন্ধ করে দেওয়ায় প্রবেশ করতে ব্যর্থ হন তারা। পরবর্তীকালে শেখ রাসেল হল থেকে নাসির সমর্থকরা তাদের ধাওয়া করে কুদরতি খুদা হলের সামনে গিয়ে অবস্থান নেন। নাসির সমর্থকদের সঙ্গে বিপুল সংখ্যক সাধারণ শিক্ষার্থীও অংশগ্রহণ করে। সাধারণ শিক্ষার্থীদের দাবি ছিল, তারা নিজেদের হলকে কোনো পক্ষেরই ঘাঁটি হতে দেবে না।
দুই পক্ষের এই সংঘর্ষের ঘটনায় নওফেল সমর্থকদের ছোড়া ইটের আঘাতে যন্ত্রকৌশল বিভাগের চতুর্থ বর্ষের তৌহিদুর রহমান তামিম নামে এক সাধারণ শিক্ষার্থীর মাথা ফেটে গেছে। এদিকে ল্যাব থেকে ফেরার পথে তড়িৎ কৌশল বিভাগের তৃতীয় বর্ষের রাফসান নামে এক সাধারণ শিক্ষার্থীর হাতে রামদা দিয়ে কোপ দেন উত্তপ্ত ছাত্রলীগের কর্মীরা। চুয়েট ক্যাম্পাসের এমন অস্থিতিশীল পরিস্থিতির কারণে সাধারণ শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
নাসিরের সমর্থকরা শহীদ তারেক হুদা হল এবং নওফেলের সমর্থকরা ড. কুদরতি খুদা হলে শক্ত অবস্থানে আছেন। এখন চুয়েটের নতুন শেখ রাসেল হলকে নিজেদের প্রভাব বলয়ে নেওয়ার জন্য দুই পক্ষের মধ্যে প্রায়ই সংঘর্ষ ঘটে চলেছে।  চুয়েটের সাম্প্রতিক ঘটনাকে ছোট করে দেখার সুযোগ নেই। নানা পক্ষ ক্যাম্পাসকে উত্তপ্ত করার চেষ্টা করতে পারে। চুয়েটের বর্তমান সভাপতি সৈয়দ ইমাম বাকেরসহ কয়েকজন ছাত্রনেতাদের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ মদদে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা ঢাল হিসেবে ব্যবহার হয়ে থাকে। প্রায় সময় ছাত্রলীগের গ্রুপ ও উপ-গ্রুপগুলোর মধ্যে প্রায়ই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এছাড়াও বেশ কয়েকটি কারণে গত কয়েকটি বছর কেটেছে নানা অস্থিতিশীল পরিবেশে।  
অনুসন্ধানে জানা গেছে, বর্তমানে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) ক্যাম্পাসের পরিবেশ অস্থির থাকার উল্লেখযোগ্য কয়েকটি কারণ রয়েছে। এগুলো হল দীর্ঘদিন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত থাকা, ছাত্রলীগের উপর স্থানীয় রাজনীতির প্রভাব, ছাত্রলীগের বড় পদে অছাত্র ও প্রশাসনের সিদ্ধান্তহীনতা। এদিকে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) ক্যাম্পাসে অস্থির থাকার কারণে বিঘ্নিত হচ্ছে শিক্ষা কার্যক্রম। শিক্ষার্থীদের সঙ্গী হচ্ছে সেশনজট।   
চুয়েট ছাত্রলীগ কমিটির অধিকাংশই অছাত্র কিংবা নিয়মিত শিক্ষাজীবন শেষ করতে পারছেন না। এঁদের অর্ধশত নেতা চাঁদাবাজি, শিক্ষক লাঞ্ছনা, প্রতিপক্ষকে মারধরসহ বিতর্কিত কর্মকান্ডে জড়িত বলে অভিযোগ রয়েছে। চাঁদা ও আধিপত্য বিস্তাকারীরাই ছাত্রলীগের কমিটিতে ঠাঁই পেয়েছেন, যাঁদের বিরুদ্ধে অনৈতিকতার অভিযোগ রয়েছে। এরা কীভাবে কর্মীদের নৈতিকতা শিক্ষা দেবেন? অছাত্ররা যাতে ছাত্রলীগের নেতৃত্বে আসতে না পারেন, সে জন্য কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। ছাত্রলীগের আদুভাইদের রাজত্ব কায়েম রয়েছে! হয়তো দেখা যাবে, বাবা-ছাত্র ছেলে-ছাত্রকে সাংগঠনিক বিষয়ে তালিম দিচ্ছেন!
ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্রের ৫ (ক) অনুচ্ছেদে বলা আছে, অনূর্ধ্ব ২৭ বছর বয়সী বাংলাদেশের যে কোনও বিশ্ববিদ্যালয় বা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক স্বীকৃত যে কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র বা ছাত্রী বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রাথমিক সদস্য হতে পারেন। প্রতি শিক্ষাবর্ষে সদস্যপদ নবায়ন করা বাঞ্ছনীয়। কোনও চাকুরিজীবী ছাত্রলীগের নেতৃত্বে থাকতে পারবেন না, সে কথাও পরিষ্কার করে উল্লেখ করা হয়েছে।
গঠনতন্ত্রের ৫ (গ) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, যে কোনও নিয়মিত ছাত্র (৫ এর ক উপধারা অনুযায়ী) ছাত্রলীগের কর্মকর্তা ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সদস্য হতে পারে। সরকারি চাকুরিতে নিয়োজিত কোন ছাত্র ছাত্রলীগের কর্মকর্তা হতে পারবে না। বিবাহিতদের বিষয়ে গঠনতন্ত্রে কিছু বলা নেই। তবে শেখ হাসিনার নির্দেশের কারণে বিবাহিতদের কোনও পদে না রাখা অলিখিত নিয়ম বলেই মনে করা হয় ছাত্রলীগে। ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্রের কোন নিয়ম না মানলেও বহাল তবিয়েত আছে চুয়েট ছাত্রলীগের কমিটি। ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্রের ২৩-এর (ক) ধারায় পদপ্রাপ্তির ব্যাপারে অবিবাহিত থাকার বাধ্যবাধকতা রয়েছে, সেটিও লঙ্ঘন করা হয়েছে।
কে বলে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে ঐক্য নেই? ছাত্রলীগ ও ছাত্রদলের মধ্যে কোনো মিল নেই। ঐক্য আছে ছাত্র সংসদ নির্বাচন না করার। মিল আছে অছাত্র, বয়স্ক ও বিতর্কিতদের কমিটিতে নেওয়ার। ক্ষমতায় থাকলে হল ও ছাত্রসংগঠন দুটোই অছাত্রদের দখলে চলে যায়। আর বিরোধী দলে থাকলে শুধু সংগঠনটি অছাত্রদের দ্বারা পূরণ করা হয়।
উল্লেখ্য যে, ক্যাম্পাসের বর্তমান সভাপতি সৈয়দ ইমাম বাকের চট্টগ্রামের সাবেক মেয়র আ.জ.ম নাছির অনুসারী হিসেবে পরিচিত। যদিও কিছুদিন পূর্বে নাসির গ্রুপের অভ্যন্তরীণ কোন্দলে বাকের গ্রুপের ক্যাডাররা শেখ রাসেল হলে নাসির গ্রুপের অন্য পক্ষের নেতা রাকিব চৌধুরী অর্ককে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেয় যার বিচার কার্যক্রম এখনো চলমান। চুয়েট অধিকাংশ মারামারিতে বাকের এর ইন্ধন রয়েছে বলে জানা গেছে। তাছাড়া আদু ভাই খ্যাত বাকের ২০১১ সালে ভর্তি হলেও, আজ অব্দি পাস করতে সক্ষম হয়নি এবং অধিকাংশ বিষয়ে অকৃতকার্য হয়েছে। ২০১৮ সালের মে মাসে দেয়া চুয়েট কমিটির সভাপতি বাকেরের কমিটির তিন বছর আগে মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যায়, বিগত দুই বছর থেকে তিনি ক্যাম্পাসে অবস্থান করেন না বলে জানা গেছে। সৈয়দ ইমাম বাকেরের বিরুদ্ধে মাদকের সাথে সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ রয়েছে।
দেশের কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মাদকদ্রব্য সেবনের সঙ্গে এর ব্যবসাতেও জড়িয়ে পড়ছেন। সরকারি প্রতিবেদনেই এর ভয়াবহতার কথা উল্লেখ করে বলা হয়েছে, এভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মাদক ছড়িয়ে পড়ার কারণে সেখানকার পরিবেশ কলুষিত হচ্ছে। অন্যদিকে মাদকের জন্য অর্থের জোগান দিতে গিয়ে এসব ছাত্র টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি ও দলবাজি করে সামাজিক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছেন।
আর্থিক, সামাজিক, মানবিক নানাভাবে ইয়াবার ভয়াবহতা দেশজুড়ে ছড়ালেও তা নিয়ন্ত্রণে সরকারের উদ্যোগ খুব সামান্যই। ইয়াবা বন্ধে মাদকদ্রব্য ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিয়মিত অভিযান ছাড়া আর কোনো তৎপরতা নেই। অন্য বাহিনীগুলোর তৎপরতা শুধু উদ্ধারের ভেতরেই সীমাবদ্ধ। বর্তমানে সরকারি বাহিনীগুলো শুধু তালিকা তৈরির ভেতরেই তাদের মাদকবিরোধী অভিযান সীমাবদ্ধ রেখেছে।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের যন্ত্রকৌশল বিভাগের ১২তম ব্যাচের ছাত্র সৈয়দ ইমাম বাকের মাদক কেনাবেচায় জড়িত। ক্যাম্পাসে অধিকাংশ মারামারির ঘটনার ইন্ধনদাতা তিনি। কম্পিউটারবিজ্ঞান ও কৌশল বিভাগের ২০১২ ব্যাচের ছাত্র কামরুল হাসানের বিরুদ্ধেও মাদক ব্যবসার অভিযোগ। আরেক মাদক ব্যবসায়ী নাফিউল ইসলাম যন্ত্রকৌশল বিভাগের ছাত্রদের হুমকি দিয়ে ত্রাসের পরিবেশ সৃষ্টি করে আসছেন। এ ছাড়া যন্ত্রকৌশল বিভাগের মোহাম্মদ হাবিব বাকেরও দীর্ঘদিন ধরে মাদক কেনাবেচায় জড়িত।
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মাদক ঢোকার অর্থ হচ্ছে তরুণ সমাজের ভবিষ্যৎ নষ্ট করে দেওয়া। মাদক এখন একটি বড় ব্যবসা। ক্ষমতাসীনরা এদের ব্যবহার করে এসব ব্যবসার সুযোগ করে দিচ্ছে। সামাজিক ও রাজনৈতিক কারণে হতাশা থেকেই মাদকের দিকে ঝুঁকে পড়ছে সবাই। যারা এসব করছে, তাদের আইনের আওতায় আনা উচিত।
এছাড়া সৈয়দ ইমাম বাকেরের বিরুদ্ধে চুয়েটের বিভিন্ন নির্মাণ কাজ এবং হোটেল থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে। ক্যাম্পাসে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে চুয়েট ছাত্রলীগের গ্রন্থনা ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক বিজয় হোসেন বলেন, মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরীর নেতৃত্বে আমরা চুয়েটে ছাত্রলীগ সব সময় ঐক্যবদ্ধ, ক্যাম্পাসে স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে আমরা সবসময় শক্ত অবস্থান নিয়ে থাকি। আমরা চাই ক্যাম্পাসে শান্তিপূর্ণ ও মাদক মুক্ত পরিবেশ গড়ে উঠুক এবং আমরা সবসময় সাধারণ শিক্ষার্থীদের পাশে আছি। এসময় তিনি চুয়েটের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির ব্যাপারে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন এবং প্রসঙ্গে সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে বিচারের অনুরোধ জানান।
ছাত্রলীগের নেতৃত্বের যে পরিচয় পাওয়া গেল, তা সংগঠনের জন্য না হলেও ছাত্ররাজনীতির জন্য হতাশাজনক। নেতৃত্ব বাছাইয়ের সর্বজনীন যে রীতি, সংগঠনের কাউন্সিল হবে, কাউন্সিলরদের ভোটে নেতা নির্বাচিত হবেন। কিন্তু এই রীতি রাজনৈতিক দলগুলো যেমন মানে না, তেমনি ছাত্র সংগঠনগুলো অগ্রাহ্য করে চলেছে।
ছাত্ররাজনীতি হবে ছাত্রদের জন্য, ছাত্রদের দ্বারা এবং ছাত্রদের কল্যাণে নিবেদিত। কিন্তু আমাদের ছাত্ররাজনীতি হলো দলের জন্য, দলের প্রধানের দ্বারা এবং দলের কল্যাণে নিয়োজিত। দলীয় প্রধানকে খুশি রাখতে পারলে নেতৃত্বের সামনে আসা যাবে, না পারলে পেছনেই থাকতে হয়। এখন ছাত্রসংগঠনগুলো পরিণত হয়েছে রাজনৈতিক দলের ‘শিক্ষাঙ্গন শাখায়’। এভাবে কোনো দেশে ছাত্ররাজনীতি বিকশিত কিংবা ভবিষ্যৎ নেতৃত্বও গড়ে তুলতে পারে না।
আজকের ছাত্রসংগঠনগুলোর নেতৃত্ব যতটা নেতামুখী, ততটাই গণতন্ত্রবিমুখ। সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক ক্ষীণ থেকে ক্ষীণতর হয়ে পড়েছে। ছাত্রনেতারা দিনের বেশির ভাগ সময় নেতা-নেত্রীদের বাড়িতে কাটান এবং আখের গোছান। লেজুড়বৃত্তির এই ছাত্ররাজনীতি ছাত্রসমাজের কোনো উপকারে আসে না।
শিক্ষাঙ্গনে ছাত্র নেতৃত্ব গড়ার যেমন উদ্যোগ নেই, তেমনি ছাত্রসংগঠনগুলোর কমিটি গঠনেও সাধারণ কর্মীদের কোনো ভূমিকা নেই।
 

 

সাবস্ক্রাইব ইউটিউব চ্যানেল


রিটেলেড নিউজ

লোডশেডিং থাকবে না, জ্বালানি তেলের দামও সমন্বয় করা হবে: বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী

লোডশেডিং থাকবে না, জ্বালানি তেলের দামও সমন্বয় করা হবে: বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: আগামী মাস থেকে দেশে লোডশেডিং থাকবে না, জ্বালানি তেলের দামও সমন্বয় করা হবে বলে জ... বিস্তারিত

চট্টগ্রামের নিত্যপণ্যের বাজারে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রভাব

চট্টগ্রামের নিত্যপণ্যের বাজারে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রভাব

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রভাব পড়েছে চট্টগ্রামের নিত্যপণ্যের বাজারে। এক... বিস্তারিত

বিচার চেয়ে মো. হাবিব ও রীনা বেগমের বিরুদ্ধে বুদ্ধি প্রতিবন্ধি মুরাদের স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

বিচার চেয়ে মো. হাবিব ও রীনা বেগমের বিরুদ্ধে বুদ্ধি প্রতিবন্ধি মুরাদের স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: চট্টগ্রাম পশ্চিম বাকলিয়া ডিসি রোডের মৃত সিরাজুল ইসলামের পুত্র মো. হাবিব ও মো. হ... বিস্তারিত

 সাতকানিয়ায় নতুন ভোটারদের অভিভাবকরা চরম ভোগান্তিতে

সাতকানিয়ায় নতুন ভোটারদের অভিভাবকরা চরম ভোগান্তিতে

newsgarden24.com

বিশেষ প্রতিনিধি: এবার হাল নাগাদ ভোটার তালিকায় নতুন ভোটার হতে প্রায় ২০টি সনদের  প্রয়োজন হচ্ছে বলে&... বিস্তারিত

হাটহাজারীতে ওয়াগনের নীচে কাটা পড়ে মাদ্রাসা ছাত্রের মর্মান্তিক মৃত্যু

হাটহাজারীতে ওয়াগনের নীচে কাটা পড়ে মাদ্রাসা ছাত্রের মর্মান্তিক মৃত্যু

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: হাটহাজারীতে তেলবাহী ওয়াগনের নীচে কাটা পড়ে মো. শাহাদাৎ (৮) নামে এক মাদ্রাসা ছাত্... বিস্তারিত

আদালতের সেই বিয়ে পিছিয়েছে

আদালতের সেই বিয়ে পিছিয়েছে

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার মো. সাগর ও রাজিয়া (ছদ্মনাম) আদালতে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। কিন... বিস্তারিত

সর্বশেষ

সেনাবাহিনীর জীপ খাদে পড়ে ১জন নিহত, আহত ৩

সেনাবাহিনীর জীপ খাদে পড়ে ১জন নিহত, আহত ৩

newsgarden24.com

বান্দরবান প্রতিনিধি: বান্দরবানের থানচির ২৮ কিলোমিটারে পাহাড়ী ঢালু সড়ক পথ বেঁয়ে নামার সময় খাদে পড়... বিস্তারিত

নবনিযুক্ত কাস্টমস কমিশনার’র সাথে বিজিএমইএ নেতৃবৃন্দের সাক্ষাৎ

নবনিযুক্ত কাস্টমস কমিশনার’র সাথে বিজিএমইএ নেতৃবৃন্দের সাক্ষাৎ

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: কাস্টস হাউজ, চট্টগ্রামের নব-নিযুক্ত কমিশনার জনাব মোহাম্মদ ফাইজুর রহমান-এর সাথ... বিস্তারিত

বেগম খালেদা জিয়ার ৭৮তম জন্মদিনে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের খাবার বিতরণ

বেগম খালেদা জিয়ার ৭৮তম জন্মদিনে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের খাবার বিতরণ

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: সাবেক প্রধানমন্ত্রী, বিএনপি চেয়ারপার্সন, আপোসহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ... বিস্তারিত

খাওয়ার জন্য সন্তানকে বিক্রি করে দিচ্ছে: ডা. শাহাদাত হোসেন

খাওয়ার জন্য সন্তানকে বিক্রি করে দিচ্ছে: ডা. শাহাদাত হোসেন

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি'র আহবায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, দেশে সরকারের হঠকার... বিস্তারিত