আজ বিশ্ব উন্নয়ন তথ্য দিবস

newsgarden24.com    ১২:০৫ পিএম, ২০২১-১০-২৪    114


আজ বিশ্ব উন্নয়ন তথ্য দিবস

ডা.মুহাম্মাদ মাহতাব হোসাইন মাজেদ: আজ রবিবার ২৪ অক্টোবর, বিশ্ব উন্নয়ন তথ্য দিবস ২০২১।জাতিসংঘের উদ্যোগে ১৯৭২ সাল থেকে প্রতি বছরের ২৪ অক্টোবর এ দিনটি বৈশ্বিকভাবে পালিত হয়ে আসছে।উন্নয়নের পথে অন্তরায় সমস্যাগুলোর সমাধানে বিশ্বজনতার মতামত বিবেচনা করা বিশ্ব উন্নয়ন তথ্য দিবসের লক্ষ্য। একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা মজবুত করাও দিবসটির উদ্দেশ্য।তবে এই দিবস ঘোষণার মূল উদ্দেশ্য ছিল উন্নয়নে সমস্যাবলী ও এর সমাধানের নিমিত্তে আর্ন্তজাতিক সহযোগিতা জোরদার করার প্রয়োজনীয়তার প্রতি জনমতের দৃষ্টি আকর্ষণ করা ।অন্যদিকে জাতিসংঘ নীতিগতভাবে জাতিসংঘ দিবসকেই উন্নয়ন তথ্য দিবস হিসেবে গ্রহণ করেছে, কারণ ১৯৭০ সালের ২০ অক্টোবরই জাতিসংঘ ২য় উন্নয়ন দশকের জন্য আর্ন্তজাতিক উন্নয়ন কৌশল গৃহীত হয়।আমরা জানি যে তথ্যের আবদ্ধতায় জনসাধারণ মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হন। ফলে স্থবির হয়ে পড়ে একটি দেশের উন্নয়ন। নির্ভুল ও নির্ভরযোগ্য তথ্য একটি দেশের সরকার ও জনগণের মধ্যে সেতুবন্ধ তৈরি করে।এটি দুর্নীতি রোধ ও সুশাসন প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। তা ছাড়া সব দেশেই কার্যকর তথ্য অধিকার আইনের প্রয়োজন রয়েছে। এ অধিকার ছাড়া আইনি বাধা পেরিয়ে সব তথ্য জনসাধারণের পক্ষে জানা সম্ভব নয়। অবাধ তথ্যপ্রবাহের জন্য তথ্যপ্রযুক্তির সুযোগ-সুবিধাও বিস্তৃত হওয়া জরুরি।তাই তথ্য প্রাপ্তি, ব্যবস্থাপনা, সংরক্ষণ ও বিতরণে আধুনিক ব্যবস্থা গড়ে তোলা উচিত।জাতিসংঘ সর্ম্পকিত যাবতীয় তথ্যাদি সাধারণ মানুষের কাছে পৌচ্ছে দেওয়াই এই দিবসটি পালনের মূল কারণ।পৃথিবীতে পদার্পণের পর থেকেই মানুষ বেঁচে থাকার জন্যে ও জীবনমান উন্নয়নের জন্যে সচেষ্ট হয়েছে ৷ এ পৃথিবীকে বশীভূত করার ও প্রকৃতিকে জয় করে একে মানুষের কল্যাণে আরো ভালোভাবে ব্যবহার করার লক্ষ্যেই কৃষি ও শিল্প-বিপ্লবগুলো সংঘটিত হয়েছিল ৷ বর্তমানে উন্নয়নে প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে এমন সব দেশ বা স্বল্পন্নোত দেশগুলোতে উন্নয়ন নিয়ে অনেক কথাবার্তা হচ্ছে ৷ আজকাল উন্নয়ন বিভিন্ন পরিকল্পনা ও নীতিমালার মূল লক্ষ্যে পরিণত হয়েছে ৷ কিন্তু উন্নয়ন বলতে কি বোঝায় এবং কোন কোন মানদন্ড বা দৃষ্টিভঙ্গির ভিত্তিতে তা খুব দ্রুত অর্জন করা সম্ভব? উন্নয়ন, প্রবৃদ্ধি, অগ্রগতি- এ শব্দগুলো প্রায়ই বিশ্বের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সংক্রান্ত লেখালেখি বা আলোচনায় ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে৷ অধিকাংশ অর্থনৈতিক গবেষণায় এ শব্দগুলো অনেকটা সমার্থক শব্দ হিসেবে পাশাপাশি ব্যবহৃত হয়৷ প্রবৃদ্ধি এবং উন্নয়ন এ দুই শব্দের মধ্যে পার্থক্য রয়েছে বলে কোনো কোনো অর্থনীতিবিদ মনে করেন৷ প্রবৃদ্ধি বলতে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই অর্থনৈতিক ও পরিমাণগত কিছু চালিকাশক্তি বা মানদন্ডকে বোঝানো হয় ৷ যেমন, মাথাপিছু আয়, গড় জাতীয় আয় বা উৎপাদন ইত্যাদি৷ অন্যদিকে উন্নয়ন বলতে এইসব অর্থনৈতিক সূচকের অবস্থা বিবেচনার পাশাপাশি অবকাঠামোগত পরিবর্তনকেও বিবেচনা করা হয়৷ অন্য কথায় উন্নয়নের পরিধি আরো ব্যাপক এবং উন্নয়ন প্রক্রিয়ার রয়েছে বহুমাত্রিক দিক বা বিভাগ৷ একদল অর্থনীতিবিদ মনে করেন, সম্পদের সুষম ও ন্যায্য বন্টন, দারিদ্র বিমোচন, চিকিৎসা ও স্বাস্থ্য পরিস্থিতি, কাঙিখত শিক্ষা বা প্রশিক্ষণ, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, মানব ও প্রাকৃতিক সম্পদের যথাযথ ব্যবহার এবং জনকল্যাণ-এসবই হলো উন্নয়নের প্রধান কিছু সূচক৷ বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ মাইকেল টডারো বলেছেন, অর্থনৈতিক উন্নয়ন হলো সমাজের সকল স্তরের মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন৷ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির সুবাদে এই উন্নতি ঘটে থাকে৷ আর অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ঘটে তখনই যখন উৎপাদনের ক্ষমতাগুলো যথাযথভাবে বা উন্নত পন্থায় ব্যবহার করা হয়৷গত কয়েক দশক ধরে ”টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়ন” শব্দটি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ব্যাপক মাত্রায় ব্যবহৃত হচ্ছে৷ টেকসই উন্নয়নের সমর্থকরা পরিবেশ সংরক্ষণকে অর্থনৈতিক উন্নয়নের অবিচেছদ্য অংশ এবং উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় পরিবেশ রক্ষার বিষয়টিও গুরুত্ব পাওয়া উচিত বলে মনে করেন৷ অন্য কথায় তাদের মতে, উন্নয়নের সূচক হিসেবে অর্থনৈতিক ও সামাজিক দিকগুলো ছাড়াও পরিবেশ সংরক্ষণকেও গুরুত্ব দেয়া উচিত৷ কারণ যে উন্নয়নে পরিবেশ সংরক্ষণ, প্রাকৃতিক সম্পদ এবং প্রাকৃতিক অন্যান্য শক্তিকে গুরুত্ব দেয়া হয় না, দীর্ঘমেয়াদে সেই উন্নয়নের কার্যকারীতা থাকে না৷ আর এ অবস্থায় উন্নয়ন টেকসই হয় না৷ আবার অনেক বিশেষজ্ঞ উন্নয়ন বলতে অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অগ্রগতি অর্জন ছাড়াও সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে অগ্রগতি অর্জনকেও উন্নয়নের অন্যতম লক্ষ্য বলে মনে করেন৷ কারণ, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি ও সাংস্কৃতিক অগ্রগতি একইসাথে ঘটলে উন্নয়ন ও নৈতিকতা বা মূল্যবোধগুলোর মধ্যে এক ধরনের পারস্পরিক সম্পর্ক সৃষ্টি হয়৷ অর্থাৎ তাদের মতে, প্রত্যেক জাতি সাংস্কৃতিক উন্নয়নের ক্ষেত্রে তার জাতীয় ও ধর্মীয় মূল্যবোধ অনুযায়ী অগ্রসর হবে পশ্চিমা দেশগুলোর বা উন্নত দেশগুলোর সংস্কৃতি অনুযায়ী নয়৷গত শতকের ৭০’র দশকের আগে উন্নয়ন বিষয়ক আলোচনা বা লেখালেখিতে সংস্কৃতি ও সাংস্কৃতিক মূল্যবোধ জাতীয় ধারণার কোনো অস্তিত্ব ছিল না৷ শুধু অর্থনৈতিক চালিকাশক্তিগুলোই ছিল উন্নয়ন সংক্রান্ত আলোচনার মূল বিষয়৷ কিন্তু ৭০’র দশকে জাতিসংঘের উদ্যোগে আয়োজিত কতগুলো সম্মেলনে সাংস্কৃতিক চালিকাশক্তিগুলোর মতো কিছু চালিকাশক্তি উন্নয়ন বিশেষজ্ঞদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে৷ কিন্তু জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি বিষয়ক সংস্থা বা ইউনেস্কোর বিভিন্ন গবেষণায় বলা হয়েছে বাস্তবে উন্নয়নশীল দেশগুলোর উন্নয়ন কর্মসূচিতে সাংস্কৃতিক বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দেয়া হয় নি৷ একটি দেশের উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় উন্নয়ন কিভাবে শুরু করতে হবে ?- এ প্রশ্নের প্রতি গুরুত্ব দেয়া উচিত৷ কোন্ শ্রেণী বা দলগুলো উন্নয়নকে কাজে লাগাবে বা উন্নয়নের মাধ্যমে উপকৃত হবে অথবা কিসের বিনিময়ে অর্থনৈতিক উন্নয়ন অর্জিত হবে?-এটাও এক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ মৌলিক প্রশ্ন৷ আয় উপার্জন বৃদ্ধির জন্যে নৈতিক মূল্যবোধ, অর্থনৈতিক সাম্য বা সুবিচার ও জনকল্যণকে বিসর্জন দিতে হবে বলে কেউ কেউ মনে করেন৷ কিন্তু এ ধরনের দৃষ্টিভঙ্গি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন৷ ন্যায় বিচার, স্বাধীনতা, মানুষের মর্যাদা এবং মানবীয় মূল্যবোধগুলো বজায় রেখেই অর্থনৈতিক উন্নয়ন ঘটানো সম্ভব৷উন্নয়ন সম্পর্কে ধর্মীর্য় চিন্তামুক্ত বিভিন্ন ঘরাণার দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে আলোচনার পর এবার আমরা পবিত্র ধর্ম ইসলামের দৃষ্টিতে উন্নয়ন বলতে কি বোঝায় তা নিয়ে আলোচনা করবো৷ ইসলাম ধর্ম এমন এক ধর্ম যা মানুষের সব ধরনের চাহিদার ব্যাপারে সার্বিক বা পূর্ণাঙ্গ দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করে৷ তাই ইসলাম উন্নয়নকেও তার দৃষ্টিসীমার বাইরে স্থান দেয় নি৷ ইসলামের উন্নয়ন দৃষ্টিভঙ্গি বিশ্বজগতে মানুষের অবস্থান, এ পৃথিবীতে মানুষের জীবনের উদ্দেশ্য এবং দুনিয়ার সুযোগ সুবিধা বা নেয়ামত ভোগ সম্পর্কে ইসলামের দৃষ্টিভঙ্গি থেকে উদ্ভুত৷ ইসলামী নীতিমালা বা শিক্ষার দিকে দৃষ্টি দিলে দেখা যাবে এ শিক্ষায় সরকার ও সমাজের অর্থনৈতিক আচরণ বা তৎপরতা এবং সামাজিক পরিবেশকে এমনভাবে বিন্যস্ত করা হয়েছে যে এর ফলে টেকসই ও কাঙিখত অর্থনৈতিক উন্নয়ন অর্জিত হয়৷ আর তা ইসলামী সমাজের উচচতর লক্ষ্যগুলো অর্জনের জন্যেই অর্জিত হয়ে থাকে৷ এখানে মনে রাখা দরকার ইসলামী সমাজে অর্থনৈতিক তৎপরতায় মানবীয় ও নৈতিক মূল্যবোধ বা বিধানগুলোর ভূমিকা রয়েছে৷ আর এ কারণে ইসলামী সমাজে অর্থনৈতিক তৎপরতাগুলো সুস্থ পরিবেশে এবং সঠিক নীতিমালা বা বিধান অনুযায়ী পরিচালিত হয়৷‘উন্নয়ন’ একটি বহুল উচ্চারিত শব্দ। চার দিকে উন্নয়নের কথা শুনছি। কিন্তু যে উন্নয়ন দেখছি সেখানে বৈষম্য কমছে না, উল্টো বাড়ছে। এর কারণ হলো কথিত ‘উন্নয়নটি’ হলো পশ্চিমাদের কাছ থেকে ধার করা একটি ধারণা। এই ধারণায় শুধু বস্তুগত বিষয়ের কথা বলা হয়েছে। মানবিক, মানসিক বা নৈতিক উন্নয়নের কথা নেই। অথচ মানবসমাজ শুধু সম্পদে চালিত নয়, মানবিক গুণাবলিও এর সাথে জড়িত। পশ্চিমা ধারার উন্নয়ন আমাদের সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠায় ব্যর্থ হওয়ার পেছনে এটাই কারণ। উন্নয়নের সার্বিক দৃষ্টিকোণটি ইসলামে পাওয়া যায়। একে ইসলামী দৃষ্টিকোণ না বলে মানবিক দৃষ্টিকোণও বলা যায়। ইসলামে উন্নয়নের সীমাটি এর অর্থনৈতিক, সামাজিক ও নৈতিক অপরিহার্যতার মধ্যে খুঁজে পাওয়া যায়। এই হিসাবে, কোনো মুসলিম সমাজে উন্নয়ন শব্দটি প্রচলিত অর্থে ধর্মনিরপেক্ষ নয়। ইসলাম বলে, অর্থনৈতিক উন্নয়ন হতে হবে উদ্দেশ্যমূলক  অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে একই সাথে বাস্তব বস্তুগত সুফল, দৃষ্টিগ্রাহ্য সামাজিক সুবিধা ও আধ্যাত্মিক পরিতৃপ্তি থাকতে হবে। এই তিনটি মিলে একটি প্যাকেজের মতো। এই প্যাকেজই ইসলামে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের সীমানা নির্ধারণ করে দেয়।আর ইসলামী শিক্ষা একটি পূর্ণাঙ্গ শিক্ষাব্যবস্থা। ঠিক ইসলাম যেমন একটি পূর্ণাঙ্গ জীবনব্যবস্থা। জীবনের প্রতিটি বিষয়ে যৌক্তিক ও কার্যকরী উপায় বাতলে দিতে পারে ইসলামী শিক্ষা,আর তথ্য মানুষের জীবনের চাহিদা মেটায়। আমরা প্রতিদিন পরিবারে, সমাজে, অফিস- দালতে, হাটে-মাঠে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এমনকি পথ চলতেও তথ্যের বিনিময় করি। সংবাদপত্রে, অনলাইন পত্রিকায়, টেলিভিশনে ও বেতারে জনগণের উদ্দেশে তথ্য প্রচার করা হয়। তথ্য অধিকার আদান-প্রদান সংরক্ষণ কীভাবে করতে হবে, সে বিষয় সম্পর্কে ইসলামে রয়েছে ব্যাপক নির্দেশনা।তথ্য প্রকাশের জন্য নিজেকে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিস্তারিত জেনে প্রকাশ করতে হবে। সামান্য জেনে তথ্য প্রকাশ করলে সেখানে ভুল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। অন্তরে ভয় নিয়ে তথ্য প্রকাশ করতে হবে। নিজ কানে শুনে, চোখে দেখে, তথ্য প্রমাণ করে অন্যের কাছে প্রকাশ করা জরুরি।যেহেতু আমাদের আল্লাহর কাছে জবাব দিতে হবে। আল্লাহ ইরশাদ করেছেন, ‘নিশ্চয়ই কান, চোখ, অন্তর- এর প্রতিটি সম্পর্কে কৈফিয়ত তলব করা হবে। ’ সুরা বনি ইসরাইল, আয়াত ৩৬।অন্যের দেওয়া তথ্য ভালোভাবে যাচাই করে বিশ্বাস করতে হবে।হতে পারে কেউ আপনাকে ভুল তথ্য দিয়ে সমস্যায় ফেলতে চাইছে। আপনাকে মুহূর্তে পরাজিত করে অপমান করতে চাইছে। ভুল তথ্য দিয়ে কেউ আপনার সঙ্গে অন্যের সম্পর্ক নষ্ট করার অপেক্ষায় রয়েছে। একটি ভুল তথ্য বিশ্বাস করে আপনি পরাজিত হতে পারেন। একটি ভুল তথ্যের কারণে জীবনের পরিসমাপ্তি ঘটতে পারে।উহুদের যুদ্ধে কাফির-মুশরিকরা ভুল তথ্য ছড়াল- রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম জীবিত নেই। ভুল তথ্য শুনে সাহাবিরা রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ভালোবাসায় যুদ্ধ বন্ধ করে দিলেন। নবীকে খুঁজতে বের হলেন। কোথায় দীনের নবী? এজন্যই আল্লাহ ইরশাদ করেছেন, ‘হে মুমিনগণ! কোনো পাপাচারী যদি তোমাদের কাছে বার্তা নিয়ে আসে, তোমরা সে বার্তা পরীক্ষা করে দেখবে যাতে অজ্ঞতাবশত তোমরা কোনো সম্প্রদায়ের ক্ষতিসাধনে প্রবৃত্ত না হও এবং পরে যাতে নিজেদের কৃতকর্মের জন্য তোমাদের অনুতপ্ত হতে না হয়। ’ সুরা হুজুরাত, আয়াত ৬।তথ্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তাই মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা মারাত্মক অন্যায়। মিথ্যা কথা বলে তথ্য প্রকাশ করা ইসলাম নিষেধ করছে। ইসলাম কাউকে মিথ্যা শিক্ষা দেয়নি। মিথ্যাকে কবিরা গুনাহ বলা হয়েছে। রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম  বলেছেন, ‘আমি কি তোমাদের কবিরা গুনাহ সম্পর্কে বলব না? কথাটি তিনি তিনবার বললেন। সাহাবিরা বলেন, হ্যাঁ, বলুন। অবশেষে তিনি বললেন, আল্লাহর সঙ্গে কাউকে শরিক করা, মা-বাবার অবাধ্য হওয়া। এরপর তিনি হেলান থেকে সোজা হয়ে বসে বললেন, মিথ্যা সাক্ষ্য দেওয়া ও মিথ্যা সংবাদ প্রচার করা। ’ বুখারি।একটি তথ্য উপস্থাপন করতে হলে অবশ্যই সুন্দর, সাবলীল, যুগোপযোগী মিষ্টি ভাষায় উপস্থাপন করতে হবে। লেখক, সম্পাদক ও প্রকাশক, দৈনিক স্বাস্থ্য তথ্য
প্রতিষ্ঠাতা, বাংলাদেশ রোগী কল্যাণ সোসাইটি।

 

সাবস্ক্রাইব ইউটিউব চ্যানেল


রিটেলেড নিউজ

সীতাকুন্ড শঙ্করমঠের শতবর্ষপূর্তি উৎসব উপলক্ষে ৮ দিনব্যাপী অনুষ্ঠান ১৬ নভেম্বর শুরু

সীতাকুন্ড শঙ্করমঠের শতবর্ষপূর্তি উৎসব উপলক্ষে ৮ দিনব্যাপী অনুষ্ঠান ১৬ নভেম্বর শুরু

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: সীতাকুন্ড শঙ্করমঠের শতবর্ষপূর্তি, শ্রীশ্রীবিশ্বনাথ মন্দিরের দ্বারোদঘাটন, শ্... বিস্তারিত

আজ বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস

আজ বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস

newsgarden24.com

ডা.মুহাম্মাদ মাহতাব হোসাইন মাজেদ: আজ বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস ২০২১। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংল... বিস্তারিত

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের এল.এ শাখায় জালিয়াতির মাধ্যমে চেক উত্তোলনের চেষ্টা, দালাল জোহুরা গ্রেফতার

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের এল.এ শাখায় জালিয়াতির মাধ্যমে চেক উত্তোলনের চেষ্টা, দালাল জোহুরা গ্রেফতার

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের ভূমি অধিগ্রহণ (এল.এ) শাখা থেকে জালিয়তির মাধ্যমে কর্ণফ... বিস্তারিত

বান্দরবান শহর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করলো ক্যান্ট: পাবলিক স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থী

বান্দরবান শহর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করলো ক্যান্ট: পাবলিক স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থী

newsgarden24.com

বান্দরবান প্রতিনিধি: "সবাই মিলে শপথ করি পরিচ্ছন্ন দেশ গড়ি "এ প্রতিপাদ্যে নিয়ে বান্দরবান শহরের... বিস্তারিত

স্মৃতির দর্পণে: শাইখুল হাদীস আল্লামা ফখরুদ্দীন (রহ.)

স্মৃতির দর্পণে: শাইখুল হাদীস আল্লামা ফখরুদ্দীন (রহ.)

newsgarden24.com

মুহাম্মদ আবদুল কাদের নিজামী: আমাদের ছাত্রজীবনে পড়া-লেখায় প্রবল প্রতিযোগিতা ছিল। বিশেষত: পাবলিক প... বিস্তারিত

‘নতুন গাড়ি পরিচয় করিয়ে দিতে মোটর ফেস্ট এর বিকল্প নেই’

‘নতুন গাড়ি পরিচয় করিয়ে দিতে মোটর ফেস্ট এর বিকল্প নেই’

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: দেশের সামগ্রিক উন্নয়নের সাথে সাথে মানুষের ক্রয় ক্ষমতা বেড়েছে। ফলে দীর্ঘদিন যা... বিস্তারিত

সর্বশেষ

ওমেন্স ফেয়ার ব্র্যান্ড শপের শুভ উদ্বোধন

ওমেন্স ফেয়ার ব্র্যান্ড শপের শুভ উদ্বোধন

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: নগরীর অভিজাত শপিংমল ফিনলে স্কয়ারে দেশি-বিদেশি লেডিস পোশাকের বড় আয়োজন নিয়ে ওম... বিস্তারিত

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে চট্টগ্রামে কোতোয়ালী থানা ছাত্রদলের মশাল মিছিল

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে চট্টগ্রামে কোতোয়ালী থানা ছাত্রদলের মশাল মিছিল

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: তিন তিনবারের প্রধানমন্ত্রী, বিএনপি চেয়ারপারসন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মু... বিস্তারিত

বেগম জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় “চট্টগ্রাম দাম্মাম যুবদল”র মিলাদ মাহফিল

বেগম জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় “চট্টগ্রাম দাম্মাম যুবদল”র মিলাদ মাহফিল

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: সৌদিতে চট্টগ্রামে দাম্মাম যুবদলের উদ্যোগে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জ... বিস্তারিত

 বাংলাদেশ রোগী কল্যাণ সোসাইটি পক্ষ থেকে বিনামূল্যে ঔষধ বিতরণ কর্মসূচি

বাংলাদেশ রোগী কল্যাণ সোসাইটি পক্ষ থেকে বিনামূল্যে ঔষধ বিতরণ কর্মসূচি

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: ঢাকায় বাংলাদেশ রোগী কল্যাণ সোসাইটির পক্ষ থেকে স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতে রাজনীত... বিস্তারিত