কিশোর গ্যাংয়ের অপতৎপরতা বন্ধে এখনই উদ্যোগ নিতে হবে

newsgarden24.com    ০৩:০৬ পিএম, ২০২০-১১-১১    206


কিশোর গ্যাংয়ের অপতৎপরতা বন্ধে এখনই উদ্যোগ নিতে হবে

মো. এনামুল হক লিটন ও সাহেনা আক্তার হেনা: কিশোর গ্যাংয়ের অপতৎপরতা দিন-দিন মাত্রাতিরক্তভাবে বেড়েই চলেছে। উদ্বেগজনক পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে তাদের আচরনে। চট্টগ্রাম মহানগর ও আশ-পাশের বিভিন্ন এলাকায় অপ্রাপ্ত বয়স্ক কিশোররা নানা অপরাধ সংগঠিত করে যাচ্ছে এমন সংবাদ প্রায়শ: পত্রিকান্তরে প্রকাশ পাচ্ছে। সামাজিক মূল্যবোধহীন এক সমাজে বেড়ে ওঠা এসব  কিশোররা যেমনি ক্রমেই অস্থির ও সহিংস হয়ে উঠেছে, তেমনি বিভিন্ন বস্তি, রাস্তা-ফুটপাতে বেড়ে উঠা সমাজের দারিদ্র-লাঞ্চিত, ভাগ্যবিড়ান্ধিত ও বখে যাওয়া কিশোরদের ব্যবহার করে একাধিক সন্ত্রাসীগোষ্ঠি গড়ে তুলেছে ভয়ঙ্কর অপরাধ জগত। এছাড়া মাদক ব্যবসায়ীরা মাদক আনা-নেয়া বা বেচা-বিক্রিতে ব্যবহার করছে শিশু-কিশোরদের। এলাকার ওঠতি বয়সি কিশোররা বড়দের সামনেই একের পর এক সিগারেট খাচ্ছে। মেয়েদের সাথে ইভটিজিং করছে। এলাকায় নতুন কোনো লোক দেখলে পথ আগলে নানা প্রশ্ন করে। এক কথায় তাদের চক্ষুলজ্জা বলতে কিছুই নেই। সালাম দেওয়া দূরের কথা, ভালো ভাবে কথা বলার সৌজন্যতাও তাদের নেই। তাদের ভবিষ্যত নিয়ে অভিভাবকরাও চিন্তিত হয়ে পড়েছেন। শিশু-কিশোর ও তরুন প্রজন্মের ছেলেমেয়েদের আচরণে উল্লেখযোগ্য নেতিবাচক পরিবর্তন ঘটেছে। বড়দের সম্মান করা কিংবা অভিভাবকদের নির্দেশ মেনে চলার মানসিকতা নেই অধিকাংশের। রাজনৈতিক ও পারিবারিক অস্থিরতা, প্রযুক্তির অপব্যবহার অভিভাবকদের অবৈধ সম্পত্তি, সুস্থ বিনোদনের অভাব, শিক্ষাব্যাবস্থার বিভাজন, অভিভাবকদের সঙ্গ না পাওয়া ও  অসৎ সঙ্গের কারনে ছেলে-মেয়েদের আচরণে পরিবর্তন হচ্ছে। তারা রাত জেগে মোবাইল ফোনে কাথোপকথন করছে, ইন্টারনেট ব্যবহার করছে এবং ধীরে-ধীরে তারা অস্থির ও সহিংস হয়ে উঠছে। এর উদাহরণ সম্প্রতি ঘটে যাওয়া একাধিক ধর্ষণের ঘটনা। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, কিশোর অপরাধের বিষয়টি শুধুমাত্র আমাদের দেশেই নয়, ইউরোপের অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ বৃটেনের সাম্প্রতিক দাঙ্গা এবং লুটতরাজের ঘটনায়ও কিশোররা অপরাধ সংঘটন করেছে। সে বিবেচনায় অবশ্যই বলা যায়, অপরাধ মোকাবেলায় কোনো না কোনোভাবে কিশোররা এক নতুন সমস্যা আর সংকটের কারন হয়ে দাঁড়িয়েছে। বাংলাদেশে বিশেষ করে চট্টগ্রাম মহানগরীতে কিশোর সন্ত্রাসীরা দিন-দিন বেপরোয়া হয়ে উঠছে। নগরীর বিভিন্ন সন্ত্রাসী ও কথিত বড় ভাইদের নামে সর্বনিম্ন ১০ থেকে ১৭ বছরের কিশোরেরা গ্রুপ বা বাহিনী গড়ে তুলেছে। এরা স্ব-স্ব এলাকায় মাস্তানী-চাঁদাবাজি, ছিনতাই জায়গা-জমি দখল-বেদখলে সহযোগীতা এবং আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যে নানা দাঙ্গাঁ-হাঙ্গামা করে যাচ্ছে। কেউ-কেউ মাদক সেবনের মতো মরন নেশায় জড়ানোর পাশাপাশি মাদকদ্রব্য আনা-নেয়া ও বেচা-বিক্রির কাজ ও চালাচ্ছে। বিভিন্ন এলাকায় একটু লক্ষ্য করলেই দেখা যায়, ১০ থেকে ১৭ বছরের এসব কিশোররা পান থেকে চুন খসলেই দলবদ্ধভাবে লাঠি-সোটাসহ নানারকম আগ্মেয়াস্ত্র নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে প্রতিপক্ষের উপর। (যদিও বর্তমানে প্রশাসনিক তৎপরতার কারণে কিশোর গ্যাংয়ের আস্ফালন কিছুটা কমেছে)।  এসব কিশোররা রাজনৈতিক আশ্রয়-পশ্রয়ে থাকার কারনে প্রশাসনও এদের বিরূদ্ধে সহজে এ্যাকশনে যায়না। ১৯৭৪ সালের শিশু আইন অনুযায়ী শিশু বলতে ১৬ বছরের কম বয়স্ক কোনো ব্যক্তিকে বোঝায়। আবার আন্তর্জাতিক শিশু অধিকার সনদ, ১৯৮৯ অনুযায়ী ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত প্রতিটি মানব সন্তানই শিশু এবং বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬ এ শিশুর ১৪ এবং কিশোরের বয়স ১৮ বছর পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়। চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন পুলিশ (সিএমপি’র) বিভিন্ন থানায় বিভিন্ন অপরাধে গ্রেপ্তার হওয়া কিশোর অপরাধীদের আদালতে সোপর্দ করা হলে, আদালতের মাধ্যমে প্রথমে তাদের কারাগারে প্রেরন করা হয়। পরে চট্টগ্রাম জেলা কারাগার থেকে এসব কিশোরদের গাজীপুরে টঙ্গীর কিশোর সংশোধনাগারে পাঠানো হয়। এছাড়া কিশোরী অপরাধীদের হাটহাজারীস্থ শেল্টার হোমে প্রেরন করা হয়। এরপরও কিশোর অপরাধ উদ্ধেগজনক পর্যায়ে উপনীত হয়েছে। তারা জড়িয়ে পড়ছে নানা অপরাধের সঙ্গে। নানা কৌশল অবলম্বন করেও আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এদের যেমনি নিয়ন্ত্রনে আনতে পারছেনা তেমনি রাজনৈতিক শেল্টারের কারনে অনেক সময় নিরব ভূমিকা পালন করে থাকে পুলিশ। অপরাধ জগতের দাগী শীর্ষ সন্ত্রাসীরা আর এলাকাভিত্তিক দলীয় বড় ভাইয়েরা এসব কিশোরদের সন্ত্রাসী বানাচ্ছে। এরপর কিশোর সন্ত্রাসীদের নানাভাবে ব্যবহার করে ফায়দা লুটছে। সন্ত্রাসী নেটওয়ার্কের পাশাপাশী কিশোর সন্ত্রাসীদের দিয়ে কোটি-কোটি টাকার মাদক ব্যবসাও চালানো হচ্ছে। চুরি-ছিনতাই, ডাকাতি, অপহরন এমনকি হত্যার মতো ঘৃন্য অপরাধেও কিশোরদের জড়িয়ে  পড়ার  বহু প্রমান পুলিশ, র‌্যাব ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলো পেয়েছে। সন্ত্রাসীদের আশ্রয়-পশ্রয় ছাড়াও পারিবারীক নিয়ন্ত্রনহীনতা, প্রযুক্তির অপব্যবহার এবং আকাশ সংস্কৃতির কু-প্রভাবের কারনেই কিশোরদের অপরাধি হওয়ার ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করছে। সঙ্গত কারনেই একটি সুস্থ, সুন্দর, আদর্শবান ও উন্নত সমাজ গঠনের বিবেচনায় কিশোর অপরাধের বিষয়টি গভীর মনোযোগের দাবী রাখে। এদের কঠোর হস্তে দমনেরও দাবী রাখে। অন্যথায় এরা আরো ভয়ঙ্কর শক্তিধর সন্ত্রাসীতে রূপান্তর হবে। দুরন্তপনার শিশু বয়স পেরিয়ে যৌবনে পদার্পনের মধ্যবর্তী বয়সকে কিশোর হিসেবে ধরা হয়ে থাকে। বর্তমানে শিশু বয়সসীমা আইনগতভাবে পরিবর্তিত হলেও তাতে বাস্তবে কোনো কিছুই পরিবর্তন হয়েছে বলে প্রতীয়মান হয়না। আমাদের সমাজে কিশোরদের অবস্থান সম্পূর্ণ ভিন্নতর। ঠিক যেভাবে আদরে-যতেœ শিশুরা বেড়ে উঠার কথা সেভাবে কিশোরদের বেড়ে উঠার সূযোগ-সুবিধা হয়না। এতে করে প্রতিটি কিশোরের একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত কিছু মনস্তাত্ত্বিক সমস্যা থেকেই যায়। এই বিশেষ সময়ে পরিবারের পিতা-মাতা, অভিভাবক, গুরুজন এবং সমাজ পরিচালকরা সতর্ক দৃষ্টি না দিলে যে কোন শিশু-কিশোরের বখে যাওয়ার শতভাগ আশঙ্কা থাকে। অভাবী ও বেকার এবং বখে যাওয়া শিশু-কিশোরদের এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে অপরাধ জগতের সন্ত্রাসীরা নানা লোভ-লালসা দেখিয়ে অতি সহজেই তাদের দিয়ে অনেক বড়-বড় অপরাধ সংঘটন করিয়ে নেয়। অনেক ক্ষেত্রে রোমান্টিকতা ও অপরাধ সংঘটনের কাজ করে থাকে। কিশোররা প্রায় অপরাধ কর্মকান্ডের ক্ষেত্রে সন্দেহের উর্ধ্বে থাকে বিধায় আইনগত যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা লাভ করে বলে সন্ত্রাসী অপরাধী চক্রগুলো তাদের ফায়দা হাসিল করতে এসব কিশোরদের ব্যবহার করে। এ পর্যন্ত পত্র-পত্রিকায় প্রকাশীত বিভিন্ন খবর পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, শুধুমাত্র প্রচলিত অপরাধ জগতের সাথেই নয়, বরং সমাজের উচ্চবিত্ত অনেক পরিবারের অনেক কিশোর সঙ্গ দোষে অথবা এ্যাডভেঞ্চার করতে গিয়ে এমন সব অপরাধের সাথে জড়িয়ে পড়ছে যা বিশ্বাস করতেও কষ্ট হয়। ভয়ঙ্করভাবে মাদকাসক্তি, মাদক ও অস্ত্র চোরাচালান, ছিনতাই, চাঁদাবাজি ও ডাকাতি, অপহরণ, খুন, গুমসহ নানা অপরাধে জড়িত হয়ে উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তানরা আইন-শৃংখলা রক্ষা বাহিনীর হাতে ধরাও পড়েছে। প্রকৃতপক্ষে, সর্বনাশা মাদকাসক্তি ও নীতি এবং আদর্শহীন অসৎ সম্পর্ক অধিকাংশ কিশোরদের মধ্যে অপরাধ প্রবনতা বৃদ্ধি করে চলেছে। বিশেষ করে মোবাইল ফোনের যথেচ্ছা ব্যবহারের কারনে এসব অপরাধ ক্রমেই বেড়ে যাচ্ছে। মোবাইল ফোনের ব্যবহারে বয়স সংক্রান্ত আইন পাস করা হলেও এর কোনো প্রয়োগ দেখা যাচ্ছেনা। ১০ থেকে ১৭ বছরের প্রায় প্রতিটি কিশোরই অবাধে মোবাইল ফোন ব্যবহার করছে। চট্টগ্রাম মহানগরীর বস্তিগুলো, পাড়া-মহল্লায় এবং প্রায় সব অলি-গলিতে বর্তমানে একশ্রেণীর কিশোর সন্ত্রাসী রীতিমতো আতঙ্কের কারণ হিসেবে দেখা দিয়েছে। এদের রাজনৈতিক গডফাদার রয়েছে। আগেকার দিনে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতি এবং রাজনৈতিক কারনে পোষ্টার লাগানো বা এ ধরনের কাজের জন্য কিশোরদের ব্যবহারের যে নিয়মনীতি ছিল বর্তমানে সেটাই এক ধরনের সুবিধাবাদী রাজনৈতিক পশ্রয়ে ও সন্ত্রাসীদের আশ্রয়ে সাধারণ নাগরিকদের জন্য বড়ধরনের সমস্যা হয়ে দেখা দিয়েছে। এক্ষেত্রে পরিবারের বন্ধনহীনতা, সমাজের উদাসীনতা এবং আইনের কার্যকর প্রয়োগ না থাকায় কিশোর অপরাধ এখন জাতীয় সমস্যায় উপনীত হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। কিশোর অপরাধী আর প্রাপ্ত বয়স্ক অপরাধী আইনের চোখে একভাবে বিবেচিত না হওয়ায় গুরুতর অপরাধ করেও কিশোর অপরাধীরা লঘুদন্ড পাচ্ছে। এ অবস্থা অপরাধ দমনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে এবং অপরাধ প্রবণতাকে আরো বাড়িয়ে দিচ্ছে। বর্তমানের লঘু সাজা পাওয়া অপরাধি পরবর্তীতে ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী হয়ে আত্ম-প্রকাশের সুযোগ লাভ করছে। আমাদের দেশে কিশোর অপরাধ সংশোধনের জন্য সরকারীভাবে যে ব্যবস্থা রয়েছে, তা মোটেও কার্যকর নয়। এক্ষেত্রে বেসরকারীভাবে অন্য কোনো উদ্ব্যোগ নেয়া যায় কিনা সেটাই ভেবে দেখা একান্ত প্রয়োজন। এ কথা অনস্বীকার্য যে, কিশোর অপরাধ দমন এবং প্রতিকারে পারিবারিক বন্ধন আর পিতা-মাতার ভূমিকা সবচেয়ে বেশি জরুরী। লেখকদ্বয়: প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, প্রগতিশীল সংবাদপত্র পাঠক লেখক ফোরাম, কেন্দ্রিয় কমিটি।

 

সাবস্ক্রাইব ইউটিউব চ্যানেল


রিটেলেড নিউজ

চট্টগ্রাম কাজির দেউড়ির জামে মসজিদের পুকুর ভরাট নিয়ে উত্তেজনা

চট্টগ্রাম কাজির দেউড়ির জামে মসজিদের পুকুর ভরাট নিয়ে উত্তেজনা

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: চট্টগ্রাম নগরীর কাজির দেউড়ির কাজী বাড়ী জামে মসজিদের পুকুর ভরাট নিয়ে দু’পক্ষ... বিস্তারিত

বান্দরবানে ম্রো জাতির নাম ভাঙ্গিয়ে মানববন্ধন করলো পার্বত্য চট্টগ্রাম সচেতন ছাত্র সমাজ

বান্দরবানে ম্রো জাতির নাম ভাঙ্গিয়ে মানববন্ধন করলো পার্বত্য চট্টগ্রাম সচেতন ছাত্র সমাজ

newsgarden24.com

বান্দরবান প্রতিনিধি: বান্দরবানে ফাইভ স্টার হোটেল ও রিসোর্ট নির্মাণের প্রতিবাদে ম্রো জনগোষ্ঠির ন... বিস্তারিত

চট্টগ্রাম বন্দরে আসছে বহু প্রতিক্ষীত ১০ টনের মোবাইল ক্রেন, দরপত্রে ৪ বিদেশী প্রতিষ্ঠান

চট্টগ্রাম বন্দরে আসছে বহু প্রতিক্ষীত ১০ টনের মোবাইল ক্রেন, দরপত্রে ৪ বিদেশী প্রতিষ্ঠান

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: পরিমাণ ও ওজনে কম-এমন পণ্য লোড করার জন্য চট্টগ্রাম বন্দরে বহু প্রতিক্ষীত ১০ টনের... বিস্তারিত

সাংবাদিক শামসুল হুদা‘র মায়ের ইন্তেকালে শোক

সাংবাদিক শামসুল হুদা‘র মায়ের ইন্তেকালে শোক

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: সিইউজে ও চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সদস্য শামসুল হুদার মাতা আলহাজ্ব ফাতিমা বেগম ... বিস্তারিত

সাংবাদিক কন্যা নাহিয়ান তাফান্নুম আন্তর্জাতিক কোম্পানিতে..

সাংবাদিক কন্যা নাহিয়ান তাফান্নুম আন্তর্জাতিক কোম্পানিতে..

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: সন্তানদের নিয়ে মা-বাবা সুন্দর ভবিষ্যতের স্বপ্ন বুনেন। অধিক সন্তান হলে অন্যদের... বিস্তারিত

স্মার্ট সিটি এক্সপো ওয়ার্ল্ডে পুরস্কার ও মনোনয়ন পেল এর ব্যবহারকারীরা

স্মার্ট সিটি এক্সপো ওয়ার্ল্ডে পুরস্কার ও মনোনয়ন পেল এর ব্যবহারকারীরা

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: সম্প্রতি অনুষ্ঠিত দশম স্মার্ট সিটি এক্সপো ওয়ার্ল্ডে স্মার্ট সিটি গড়ার প্রত্য... বিস্তারিত

সর্বশেষ

ইসলামী মূল্যবোধে মডেলিং ছাড়ছেন হালিমা আদেন

ইসলামী মূল্যবোধে মডেলিং ছাড়ছেন হালিমা আদেন

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: ধর্মের জন্য মডেলিং ছাড়ছেন বিখ্যাত ফ্যাশন মডেল হালিমা আদেন। মার্কিন এই মডেল ব... বিস্তারিত

নাইজেরিয়ায় ধানক্ষেতে ৪৩ কৃষককে গলা কেটে হত্যা

নাইজেরিয়ায় ধানক্ষেতে ৪৩ কৃষককে গলা কেটে হত্যা

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক: নাইজেরিয়ায় একটি ধানক্ষেতে কর্মরত ৪৩ শ্রমিককে একসঙ্গে হত্যা করেছে হামলাকারী... বিস্তারিত

সবজির দাম নির্ধারণ করে দেবে সরকার

সবজির দাম নির্ধারণ করে দেবে সরকার

newsgarden24.com

নিউজগার্ডেন ডেস্ক:     মূল্য বৃদ্ধির অস্বাভাবিক প্রবণতা ঠেকাতে চাল ও আলুর পর এবার বাজারে সবজ... বিস্তারিত

মাদারবাড়ী শোভনীয়া ফুটবল একাডেমি শুভ উদ্বোধনী ও গুণিজন সংর্বধনা অনুষ্ঠান সম্পন্ন

মাদারবাড়ী শোভনীয়া ফুটবল একাডেমি শুভ উদ্বোধনী ও গুণিজন সংর্বধনা অনুষ্ঠান সম্পন্ন

newsgarden24.com

মাদারবাড়ী শোভনীয়া ফুটবল একাডেমি শুভ উদ্বোধনী ও গুণিজন সংর্বধনা অনুষ্ঠান সম্পন্ন নিউজগার্ডেন ড... বিস্তারিত