প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় দেশ অর্থনৈতিকভাবে অনেক দূর এগিয়ে গেছে: ফজলে করিম এমপি

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৭ নভেম্বর ২০১৮, বুধবার: চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের অধীন ‘যার জমি আছে ঘর নেই তার নিজ জমিতে গৃহ নির্মাণ’ উপ-খাতের আওতায় ২৫২টি ঘরের উপকারভোগীদের মাঝে ঘরের চাবি হস্তান্তর, একটি বাড়ি একটি খামার ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের ঋণ বিতরণ করা হয়েছে। একই সাথে ভূমিহীনদের মধ্যে কৃষি খাস জমি বন্দোবস্তের কবুলিয়ত ও খতিয়ান হস্তান্তর করা হয়। এ উপলক্ষে আজ ৭ নভেম্বর ২০১৮ ইং বুধবার বিকেল ৩টায় রাউজান উপজেলা মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ শামীম হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সরকারের রেল মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি। প্রধান বক্তা ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন রাউজান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ কে এম এহছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. কামাল উদ্দিন আহমদ।
আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রেল মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর ভূমিহীন ও গরিব-মেহনতি মানুষের কল্যাণে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে স্বাবলম্বী করার জন্য ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পসহ সরকারের ১০টি বিশেষ উদ্যোগ বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় দেশ অর্থনৈতিকভাবে অনেক দূর এগিয়ে গেছে। চলতি সালের ১৭ মার্চ জাতির পিতার জন্মদিনে বাংলাদেশ নি¤œ আয়ের দেশ থেকে নি¤œ মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে। সরকারের প্রত্যেকটি উন্নয়ন সূচক দেশে আজ দৃশ্যমান। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকলে আগামী ২০২১ সালে এদেশ মধ্যম আয়ের, ২০৩০ সালে এসডিজি অর্জন ও ২০৪১ সালে উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণ হবে। এ জন্য সরকারের উন্নয়নের মহাসড়কে সকলকে সামিল হতে হবে। আলোচনা সভা শেষে উপকারভোগীদের মাঝে ঘরের চাবি হস্তান্তর, একটি বাড়ি একটি খামার ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের ঋণ বিতরণ করেন প্রধান অতিথি। অনুষ্ঠানে এলাকার ভূমিহীনদের মাঝে কৃষি খাস জমি বন্দোবস্তের কবুলিয়ত ও খতিয়ান হস্তান্তর করা হয়।

Leave a Reply

%d bloggers like this: