৭ নভেম্বর সিপাহী জনতার মিলিত বিপ্লবে নস্যাৎ হয়ে যায় দেশ বিরোধী সকল ষড়যন্ত্র: এ এম নাজিম উদ্দিন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৭ নভেম্বর ২০১৮, বুধবার: বিএনপি কেন্দ্রিয় কমিটির শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এ এম নাজিম উদ্দিন বলেছেন, ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর আধিপত্যবাদী চক্রের সকল ষড়যন্ত্র রুখে দিয়ে স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব ও গণতন্ত্র রক্ষার দৃঢ় প্রত্যয়ে সিপাহী জনতা রাজ পথে নেমে এসেছিল। তাদের ঐক্যবদ্ধ বিপ্লবের মাধমে রক্ষা পায় সদ্য অর্জিত বাংলাদেশের স্বাধীনতা । ১৯৭৫ সালে ৩ থেকে ৬ নভেম্ভর মধ্যরাত পর্যন্ত দেশে এক শ^াসরুদ্ধকর অনিশ্চিত অবস্থা বিরাজ করছিল। সিপাহী জনতা ক্যান্টনমেন্টের বন্ধি দশা থেকে শহীদ জিয়াউর রহমানকে মুক্ত করে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দিয়েছিল। সিপাহী জনতার মিলিত বিপ্লবে নস্যাৎ হয়ে যায় স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব বিরোধী ও দেশ বিরোধী সকল ষড়যন্ত্র। আধিপত্যবাদী ও সা¤্রাজ্যবাদী শক্তির আগ্রাসন থেকে রক্ষা পায় বাংলাদেশ। তিনি আজ ৭ নভেম্বর বুধবার সকালে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির উদ্দোগে ষোল শহরস্থ বিপ্লব উদ্যানে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। এতে তিনি আরো বলেন,এবার জাতীয় বিপ্লব সংহতি দিবস এমন এক সময়ে পালন করছি যখন আবারো একই আধিপত্যবাদী শক্তির তাবেদার একদলীয় সরকারের দু:শাসনে দেশের মানুষ নির্যাতিত। গণতন্ত্র আজ নির্বাসনে। মানুষের ভোটাধিকার কেড়ে নেওয়া হয়েছে। সরকারী দল ছাড়া অন্য কোন রাজনৈতিক দলের কর্মকান্ড এক রকম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। দেশ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় বন্ধী করে রেখেছে। দেশের আইনশৃংখলা অবনতি সহ এক আতঙ্কগ্রস্ত অবস্থায় দেশের মানুষ এখন মুক্তির জন্য বিজয়ের প্রহর গুনছে। তিনি অবিলম্বে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব আসলাম চৌধুরী, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম, চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম বক্কর, সহ-সভাপতি ইকবাল চৌধুরী,ইঞ্জিনিয়ার বেলায়েত হোসেন, মোঃ ইব্রাহীম চৌধুরী ও কামরুল ইসলামসহ গ্রেফতারকৃত নেতাকর্মীদের নি:শর্ত মুক্তির দাবী জানান। চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন ও সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান সহ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় দায়েরকৃত গায়েবী মামলা প্রত্যাহারের জোর দাবী জানান। চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির উপদেষ্টা সাংবাদিক জাহিদুল করিম কচি’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির উপজাতী বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক ঝন্টু বড়–য়া, নগর মহিলা দলের সভাপতি কাউন্সিলর মনোয়ারা বেগম মনি, নগর বিএনপির সহ দপ্তর সম্পাদক মোঃ ইদ্রিস আলী, সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ শাকির রশিদ, নগর মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক জেলী চৌধুরী, শ্রমিক দল নেতা শ ম জামাল, নগর বিএনপির সদস্য ইউসুফ সিকদার, কাউন্সিলর জেসমিনা খানম, আঁখি সুলতানা, আতিয়া আক্তার উষা, নগর শ্রমিক দলের সভাপতি তাহের আহমদ, নগর মহিলা শ্রমিক দলের সভাপতি শাহনেওয়াজ চৌধুরী মিনু, নগর সাংস্কৃতিক দলের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ শাহাবুদ্দিন শাবু, শেখ মোঃ আলাউদ্দিন, মোঃ লিটন, শফিকুর রহমান মজুমদার, জমির আহমেদ মানিক, এস এম ফারুক, নজরুল ইসলাম চৌধুরী মাসুম, মোঃ মিল্টন, হাবীবুর রহমান হাবীব, মোঃ শাহাব উদ্দিন, ইসমাইল বালী, মঞ্জুর আলম মঞ্জু, ওসমাণ গণি, রাশেদ খান টিপু, মাহবুব খালেদ, আব্দুল মান্নান, মোঃ ফরিদ, এম এস এইচ সাঈদ প্রমূখ।

Leave a Reply

%d bloggers like this: