চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি মামলার হয়রানিতে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৫ নভেম্বর ২০১৮, সোমবার: ২০১৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে ৫ নভেম্বর পর্যন্ত চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির ১৫ টি থানার নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ১৩৯ টি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সহদপ্তর সম্পাদক মো. ইদ্রিস আলী। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ বিএনপিকে চাপে রেখে সারাদেশে নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছে। তারা এখন পুরোদমে নির্বাচনী প্রচারে ব্যস্ত। তারা বিএনপি নেতাকর্মীদেরকে আদালতের বারান্দায় রেখে আগামী নির্বাচন থেকে দূরে রাখার ষড়যন্ত্র করছে। চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির দফতর সূত্রে জানা যায়, পতেঙ্গা থানায় ১৬ টি, বন্দর থানায় ১২ টি, ইপিজেড থানায় ১৫ টি, খুলশি থানায় ৮ টি, পাহাড়তলী থানায় ৯ টি, হালিশহর থানায় ৫ টি, আকবর শাহ থানায় ৫ টি, সদরঘাট থানায় ৯ টি, কোতোয়ালী থানায় ১১ টি, চকবাজার থানায় ৫ টি, বাকলিয়া থানায় ১০ টি, চান্দগাও থানায় ১৩ টি, পাঁচলাইশ থানায় ৭ টি, বায়েজিদ থানায় ১০ টি, ডবলমুরিং থানায় ৪ টিসহ মোট ১৩৯ টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এরমধ্যে গত ২৭ অক্টোবর চট্টগ্রামে ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশের পর থেকে নগর বিএনপির সভাপতি ডাঃ শাহাদাত হোসেন ও আবু সুফিয়ানসহ সিনিয়র নেতাদের নামে ১০টি নতুন গায়েবী মামলা দিয়েছে। গতকাল রাতে ঢাকার মতিঝিল থানা ডিবি পুলিশ মামলার জামিন নিতে যাওয়া নগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, কোতোয়ালী থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউর রহমান জিয়া ও নগর ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক জমির উদ্দীন নাহিদকে একটি হোটেল থেকে গ্রেফতার করেছে। তাছাড়া গতকাল নগরীর বিভন্ন থানায় অভিযান চালিয়ে নগর বিএনপির সহ ধর্ম সম্পাদক রেহান উদ্দীন প্রধান ও নগর মহিলাদলের সিঃ যুগ্ম সম্পাদক ছকিনা বেগম চিকিৎসার জন্য ইন্ডিয়াতে অবস্থান করলেও তার বাসায় আকবর শাহ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে তার সন্তান আরিফুর রহমান সুমনকে গ্রেফতার করেছে। চকবাজার থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুর হোসেনকে ও গতকাল গ্রেফতার করেছে।

 

Leave a Reply

%d bloggers like this: