ধূমপান ও তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন ২০০৫ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে চট্টগ্রাম জেলার কর্তৃত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের নিয়ে সভা

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১০ অক্টোবর ২০১৮, বুধবার: প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী দেশে তামাকের ব্যবহার কমিয়ে আনতে চট্টগ্রাম জেলার প্রতিটি উপজেলায় ধূমপান ও তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন ২০০৫ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কর্তৃত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের রিপোর্টিং ও মনিটরিং এর উপর গুরুত্বারোপ করা হয়েছে উক্ত সভায়। বুধবার সকাল ১০.০০ ঘটিকায় চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয়েরসম্মেলন কক্ষে “তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নে কর্তৃত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণ ও ধূমপান ও তামাকজাতদ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০০৫ বাস্তবায়ন” করণীয়” শীর্ষক আলোচনা সভায় চট্টগ্রাম জেলার সকল স্যানিটারী ইন্সপেক্টর, কারাখানা পরিদর্শক, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক, উপ-পরিচালক ফায়ার সার্ভিস ও সিনিয়র শিক্ষাস্বাস্থ্য অফিসারসহ সকল কর্তৃত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ অংশ নেন। স্থায়ীত্বশীল উন্নয়নের জন্য সংগঠন ইপসা’র উদ্যোগে আয়োজিত উক্ত সভায় চট্টগ্রাম জেলার সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আজিজুর রহমান সিদ্দিকী প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এর কাউন্সিলর জনাব মোঃ গিয়াস উদ্দিন। সভায় তামাকের ব্যবহার কমানো বিশেষ করে শিশুদের দিয়ে তামাক বিক্রি বন্ধ এবং তামাকের বিজ্ঞাপন বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করার পাশাপাশি কর্তৃত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের উদ্যোগ গ্রহণ করার উপর গুরুত্বারোপ করা হয়। সভায় সকলে একমত হোন যে, যার যার অবস্থান থেকে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়ন কার্যক্রমকে অফিসিয়াল দায়িত্ব হিসেবে না নিয়ে স্বপ্রণোদিত হয়ে ব্যক্তিগত উদ্যোগে কাজ করতে হবে। প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিভিল সার্জন ডাঃ আজিজুর রহমান সিদ্দিকী স্যানিটারী ইন্সপেক্টরকে আরো কার্যকর ভূমিকা পালনের জন্য এবং মাঠ পর্যায়ে আরো সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করে মাসিক প্রতিবেদন নিয়মিত প্রদান করার নির্দেশনা দেন। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এর কাউন্সিলর মোঃ গিয়াস উদ্দিন বলেন- তামাক নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমকে বেগবান করার জন্য চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন তাদের বার্ষিক বরাদ্দে ২ কোটি টাকা বরাদ্দ রেখেছে। সরকার ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার পাশাপাশি তামাক নিয়ন্ত্রণে যে কোনো উদ্যোগে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন সঙ্গে নিয়ে থাকবে। মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন ইপসার প্রোগ্রাম অফিসার মোঃ ওমর শাহেদ হিরো এবং সঞ্চালনা করেন ইপসার প্রোগ্রাম ম্যানেজার ফারহানা ইদ্রিস।

Leave a Reply

%d bloggers like this: