‘শ্যামল পালের লিখন আর্ট প্রেসকে মন্ত্রীর ভর্ৎসনা’

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১০ অক্টোবর ২০১৮, বুধবার: পাঠ্যবইয়ে নিম্নমানের কাগজ ব্যবহারে ছাপাখানার মালিককে ভর্ৎসনা করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে রাজধানীর ডেমরার মাতুলয়াইলে ছাপাখানা প্ররিদর্শনে এসে তিনি এ ভর্ৎসনা করেন। আগের বছরের সমালোচনার প্রেক্ষাপটে এবার পাঠ্যবই ছাপার গুণগত মান দেখতে দুটি ছাপাখানা ঘুরে দেখেন শিক্ষামন্ত্রী। ৪০ মিনিটের এ পরিদর্শনের সময় কাগজের মান নিয়ে একটি ছাপাখানার মালিককে ভর্ৎসনা করেন তিনি। বিকাল সাড়ে ৩ টায় ডেমরার লিখন আর্ট প্রেসে বই ছাপানোর কার্যক্রম দেখতে ঢোকেন মন্ত্রী। ছাপাখানাকর্মীদের সঙ্গে কুশল বিনিময়ের পাশাপাশি তাদের সঙ্গে বসে বই প্রক্রিয়াকরণের কাজও দেখেন তিনি এক পর্যায়ে একজন সাংবাদিক ছাপা হওয়া এক স্তুপ বইয়ে ‘নিম্নমানের কাগজ ব্যবহার করা’ হয়েছে বলে শিক্ষামন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি সেদিকে ছুটে যান। তখন মন্ত্রী বলেন, আমরা বইয়ের মান ভালো করার চেষ্টা করে যাচ্ছি। কিন্তু এখনও সন্তুষ্ট না। কিছু কাগজের মান ভালো, আবার কিছু কাগজের মান খারাপ। এরপর কিছু সময় ছাপা ও বাঁধাইয়ের কাজ দেখে আবার ওই বইয়ের স্তুপের কাছে এসে লিখন আর্ট প্রেসের মালিক শ্যামল পালকে কাগজের মান নিয়ে ভর্ৎসনা করেন নাহিদ। মন্ত্রী বলেন, সাংবাদিকদেরই চোখে পড়েছে এটা। আপনারা মানুষকে ঠকাচ্ছেন। নোটিস পাঠানো হবে, অবশ্যই জবাব দেবেন। এই লিখন আর্ট প্রেস থেকে প্রাথমিকের ১১ লাখ ১৬ হাজার এবং মাধ্যমিকের ৭ লাখ বই ছাপানো হচ্ছে বলে জানান জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তুক বোড্রের (এনসিটিবি) সদস্য রতন সিদ্দিকী। বিকাল ৪ টার দিকে ওই প্রেস থেকে বেরিয়ে বইয়ের মান ও স্কুলে স্কুলে বই পৌঁছানোর লক্ষ্য নিয়ে সাংবাদিকদের শিক্ষমন্ত্রী বলেন, বইয়ের ছাপার মান প্রতিবছরই বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে কেউ অসৎ উদ্দেশ্যে খারাপ মানের দিতেও পারে। আমরা মনিটরিং করছি। যারা নিম্নমানের বই ছাপাবে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: