ফেনীতে কিশোরী গণ ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি সদস্যসহ গ্রেপ্তার ৫

এম এ মাজেদ, ফেনী, ১২ সেপ্টম্বর ২০১৮, বুধবার: ফেনীর সোনাগাজীতে এক কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগে বগাদানা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মাঈন উদ্দিনসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার মধ্যরাতে আসামিদের বাড়ি থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।
সোনাগাজী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেন জানায়, সোনাগাজী উপজেলার চরসাহা ভিকারী গ্রামের আলমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে সোমবার বিকেলে হতদরিদ্রদের জন্য কমমূল্যে বিক্রয়কৃত (১০ টাকা দরে) চাল কিনে বাড়ি ফিরছিলো ওই কিশোরী। এসময় স্থানীয় তিন বখাটে যুবক মেয়েটিকে জোরপূর্বক মুখচেপে ধরে পাশ্ববর্তী জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে কিশোরী মেয়েটি অচেতন হয়ে পড়লে বাড়িতে পাঠানোর জন্য তাকে একটি সিএনজি অটোরিক্সাতে তুলে পালিয়ে যায়। ওই অটোরিক্সা চালক কিশোরীকে নিয়ে নির্জন স্থানে ফের ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় তার জ্ঞান ফিরলে সে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে বাড়িতে এসে পরিবারের সদস্যদেরকে ঘটনাটি জানালে তার পিতা স্থানীয় ইউপি সদস্যকে বিষয়টি অবগত করেন। মঙ্গলবার বিকেলে ইউপি সদস্য মাঈন উদ্দিন বখাটে তিন ধর্ষক জয়নাল আবেদীন (২০), নজরুল ইসলাম (২১) ও আনোয়ার হোসেনকে (২২) ডেকে গ্রাম্য সালিশের মাধ্যমে নাকে খত দিয়ে ছেড়ে দেয়। এসময় নির্যাতিত মেয়ের বাবাকে বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি না করার জন্য জানানো হয়। পরে মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে নির্যাতিত কিশোরীর বাবা সোনাগাজী মডেল থানায় হাজির হয়ে তিন ধর্ষক, সিএনজি অটোরিক্সা চালক আলমগীর হোসেন (২৩), বগাদানা ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি এবং ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্যে মাঈন উদ্দিনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো কয়েকজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করে। পুলিশ মধ্যরাতে অভিযান চালিয়ে ইউপি সদস্যসহ এজহারনামীয় পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে। পুলিশ আরো জানায়, গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের বুধবার আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। অপরদিকে মেয়েটির শারীরিক পরীক্ষার জন্য তাকে ফেনী জেলা সদর হাসপতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: