দেশ জাতি চরম ক্রান্তিকাল অতিবাহিত করছে: ডা. শাহাদাত হোসেন

নিউজগার্ডেনডেস্ক, ৯ সেপ্টম্বর ২০১৮, রবিবার: জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে চট্টগ্রাম মহিলা দলের উদ্যোগে এক আলোচনা সভা ও বেগম জিয়ার মুক্তি ও সুস্থতা কামনায় এক দোয়া মাহফিল আজ ৯ সেপ্টেম্বর রবিবার বিকাল ৩ টায় নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয়ে মহিলা দলের সভানেত্রী কাউন্সিলর মনোয়ারা বেগম মনির সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদিকা জেলী চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আবু সুফিয়ান, যুগ্ম সম্পাদক ইয়ছিন চৌধুরী লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম। বক্তব্য রাখেন মহিলা দলের সহসভানেত্রী কাউন্সিলর জেসমিনা খানম, খালেদা বোরহান, মাবিয়া সেলিম, যুগ্ম সম্পাদিকা আঁখি সুলতানা, সহ. সাধারণ সম্পাদিকা সায়রা বেগম, জিন্নাত রাজ্জাক জিনিয়া, মনোয়ারা বাবুল, প্রচার সম্পাদিকা দেওয়ান মাহমুদা আকতার লিটা, সহ.সাংগঠনিক সম্পাদিকা ফেরদৌসি বেগম, সমাজকল্যাণ সম্পাদিকা ফারহানা জসিম, সাংস্কৃতিক সম্পাদিকা পারভিন চৌধুরী, আলতাজ বেগম, জোহুরা বেগম, ফিরোজা বেগম, ভাসানী বেগম, সেলিনা বেগম, ফাতেমা কাজল, সামশুন নাহার, হাবিবা সুলতানা, রিনা বেগম, শাহনাজ বেগম, পারভিন আকতার, শামীমা নাসরিন, কহিনুর বেগম।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, ‘দেশ জাতি চরম ক্রান্তিকাল অতিবাহিত করছে। আওয়ামী বাকশালী সরকার গণতন্ত্রকে ধ্বংস করতেই পরিকল্পিতভাবে সংকট সৃষ্টি করছে। রাজনৈতিক মোকাবেলায় ব্যার্থ হয়ে তিন বারের সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী, গণতন্ত্রের মা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলার ফরমায়েসী রায়ে কারান্তরীণ করে রেখেছে। গণতন্ত্র, স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের বৃহত্তর স্বার্থে বাকশালী সরকারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে ঝাপিয়ে পড়তে হবে। জনতার বিজয় নিশ্চিত এবং খুবই নিকটে।’
প্রধান বক্তার বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেছেন ‘আওয়ামীলীগ সকল দল নিষিদ্ধ করে একদলীয় বাকশাল কায়েম করেছিল। আর শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রবর্তন করে সকল দলের রাজনীতির পুনঃপ্রবর্তন করে এবং মানুষের ভোটাধিকার নিশ্চিত করেন। প্রতিষ্ঠার ৪০ বছরে বিএনপি বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় দলে পরিণত হয়েছে। এই জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়েই বাকশালী সরকার বিএনপিকে নিয়ে ষড়যন্ত্র করছে। গণতন্ত্রের মা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ষড়যন্ত্রমুলক মামলায় আটকে রেখেছে। তারা জানে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তাদের পালানোর পথ বন্ধ হয়ে যাবে। তাই তারা আবারো একতরফা নির্বাচনের পথ খুজছে। কিন্তু তাদের সেই স্বপ্ন বাংলাদেশে আর পুরণ হবে না। সকল ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে সাথে নিয়েই বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে। নির্বাচন নিয়ে কোন ষড়যন্ত্র হলে জনগণ তা ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করতে সর্বাত্মকভাবে প্রস্তুত রয়েছে।’

Leave a Reply

%d bloggers like this: