বিক্ষোভকারীদের ওপর দমন-পীড়ন বন্ধ করতে হবে: অ্যামনেস্টি

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৬ আগস্ট ২০১৮, সোমবার: বিখ্যাত আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের নিঃশর্ত মুক্তির আহ্বান জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। সেই সঙ্গে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর দমন-পীড়ন বন্ধ ও পুলিশের উপস্থিতিতে তাদের ওপর হামলাকারীদের তদন্তের আওতায় আনার আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি।
অ্যামনেস্টির ওয়েবসাইটে বলা হয়, ঢাকায় চলমান শিক্ষার্থী আন্দোলন নিয়ে আল জাজিরাকে সাক্ষাৎকার দেয়ার পরই ৫ আগস্ট সাদা পোশাকের পুলিশ তাকে তুলে নিয়ে যায়। এছাড়া আন্দোলনের সময় পুলিশ বাহিনীর হাতে আহত হন কমপক্ষে ১১৫জন শিক্ষার্থী। শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকারীদের ওপর রাবার বুলেট এবং টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করা হয়।
অ্যামনেস্টির দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক নির্বাহী ওমর ওয়ারেচ বলেন, ‘শহিদুল আলমকে অবিলম্বে নিঃশর্তে মুক্তি দিতে হবে। কোন বিষয়ে নিজের মতামত ব্যক্ত করার ফলে কাউকে আটক করার কোন বিচারিক বৈধতা নেই। তার গ্রেপ্তার সরকারের দমনপীড়নের স্পষ্ট উদাহরণ।’
তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ সরকারকে অবশ্যই বিক্ষোভকারীদের ওপর দমন-পীড়ন বন্ধ করতে হবে। শিক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের সময় নিরাপত্তা পাওয়ার পূর্ণ অধিকার আছে। এই অধিকারকে সম্মান জানানো ও এর সুরক্ষা করা উচিত। এছাড়া সরকার সমর্থকরা যখন শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করল তখন পুলিশ কেন বাধা দিল না তার বিরুদ্ধেও পদক্ষেপ নিতে হবে।
এর আগে ২ শিক্ষার্থীর মৃত্যু এবং ১৩ জন আহত হওয়ার প্রতিবাদে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন করে শিক্ষার্থীরা। অ্যামনেস্টি জানায়, ডিবি পুলিশ দ্বারা আটক শহিদুল আলমের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ দায়ের না করলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে তার বিরুদ্ধে ৫৭ধারায় মামলা দায়ের করা হতে পারে। যা আন্তর্জাতিক বাক-স্বাধীনতা আইনের লঙ্ঘন।
ওমর ওয়ারেচ বলেন, চলতি বছরের শেষের দিকেই বাংলাদেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তাই আন্তর্জাতিক দায়বদ্ধতা বজায় রেখে সরকারকে অবশ্যই বাক-স্বাধীনতা, সমাবেশের অধিকার এবং ব্যক্তি-সুরক্ষা নিশ্চিত করতে হবে।

Leave a Reply