চট্টগ্রামে সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবি পরিচয়ে প্রতারণা

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১২ জুলাই ২০১৮, বৃহস্পতিবার: চট্টগ্রামের রহমতগঞ্জের ৫ বোনের ভূমি ২ বোন জাল দলিল সৃজন করে দখলে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে অপর বোনেরা। সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবি পরিচয়ে প্রতারক সাজেদা বেগম ডলি ও শামীমা আকতার গং এ প্রতারণা করেছে। তাদের কবল থেকে রক্ষার আবেদন জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে এই নির্যাতিত পরিবার। ৫ বোনের সম্পত্তি ২ বোন জাল দলিল সৃজন করে সমস্ত সম্পত্তি জোর করে দখলে নিয়ে অন্য বোনদের বিতাড়িত করেছে বলে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ইয়াসমিন আকতার জানান। তিনি আরো জানান চট্টগ্রাম শহরস্থ রহমতগঞ্জের প্রতারক সাজেদা বেগম ডলি ও শামীমা আকতার গং সুকৌশলে জাল দলিল সৃজনপূর্বক ১ শতাংশ ভূমি আত্মসাৎ করার পাঁয়তারা করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সংবাদ সম্মেলনে ইয়াসমিন আকতার জানান, আমার পিতা আবুল কাশেম সওদাগর আমাদের রহমগঞ্জের জায়গাটি ১৪/১২/১৯৯৭ ইংরেজী মেসার্স জামিল উদ্দিন লিমিটেড এর মালিক হাজী মোহাম্মদ বশির উদ্দিন, পিতা মৃত আবদুল গফুরের নিকট থেকে আমার মা ছেনোয়ারা বেগম ও পালক ভ্রাতা মো. ইকবালের নামে খরিদ করে। জমির পরিমাণ ২ কড়া। পরে আমার মা নাকি স্কাই প্রোপার্টিজের সঙ্গে চুক্তি করেছে বলে আমার বোন প্রতারতক ডলির মুখে শুনেছি। আমার মা বাবা মারা যাওয়ার আগে ডলিকে অছিয়ত নামা দিয়েছে বলে জাল দলিল সৃজন করে সমস্ত সম্পত্তি আত্মসাৎ করার পাঁয়তারা করছে। মালিক পক্ষের অজান্তে এ ধরনের জাল দলিল সৃজনপূর্বক জমি আত্মসাতের ঘটনায় অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তারা বলেন, ভদ্র লোকের মুখোশ পরে এ ধরনের জাল জালিয়াতি মানুষকে বিপথগামী ও আস্থাহীনতার দিকে ধাবিত করবে। তারা মনে করেন এ ধরনের মুখোশধারী, পরসম্পদলোভী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হলে তারা অসহায় মানুষের আত্মবিশ্বাসের সুযোগ নিয়ে বড় ধরনের অঘটন ঘটাতে পিছপা হবেন না। তাই সমাজের সর্বস্তরে এদের মুখোশ উন্মোচন করা সচেতন মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন। প্রতারণা করে সমস্ত সম্পত্তি দখলে নিয়ে সেই সম্পত্তি ডেভেলপারের মাধ্যমে ফ্ল্যাট করার জন্য দিয়ে দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেন। তারা এখন মানবেতর জীবন যাপন করছে। তাদের এহেন অবস্থা থেকে মুক্তির জন্য তারা দেশের সচেতন নাগরিক ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছে। এই সময় উপস্থিত ছিলেন মো. কামাল, রোজী চৌধুরী ও হাবিবাতুন নূর রিমা।

Leave a Reply

%d bloggers like this: