হেফাজতের ১৫ আসনে প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৭ জুলাই ২০১৮, শনিবার: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য ১৫টি আসনে প্রার্থীর খসড়া তালিকা করেছেন হেফাজতে ইসলাম নেতারা। তবে তারা সরাসরি হেফাজতে ইসলামের ব্যানারে নির্বাচনে অংশ নেবেন না, নিজ নিজ দল থেকে অংশ নেবেন। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোট করে ভোট করবেন কিনা— এ নিয়ে দলে পক্ষে-বিপক্ষেই মত রয়েছে। ১৫ আসনের খসড়া তালিকার বেশির ভাগই বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোট ত্যাগ করে আসা ইসলামী ঐক্যজোটের নেতারা।
জানতে চাইলে ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব ও হেফাজতের কেন্দ্রীয় যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, হেফাজত একটি অরাজনৈতিক ইমানি সংগঠন। এখানে অনেক রাজনৈতিক দল ও নেতা রয়েছেন। তারা তাদের রাজনীতিতে কার সঙ্গে জোট করবেন বা কাকে সমর্থন দেবেন তা সম্পূর্ণ তাদের নিজের বিষয়। জানা যায়, খসড়া তালিকায় রয়েছেন ইসলামী ঐক্যজোটের সাবেক চেয়ারম্যান মুফতি ফজলুল হক আমিনীর ছেলে ও দলের ভাইস চেয়ারম্যান এবং হেফাজতের ঢাকা মহানগরী সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আবুল হাসনাত আমিনী। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনে নির্বাচন করবেন। এ আসনে ২০০১ সালে চারদলীয় জোটের প্রার্থী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তার পিতা মুফতি আমিনী। ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান ও হেফাজতের কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী নরসিংদী-১ (শিবপুর) আসনে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম একাংশের সভাপতি ও হেফাজত ইসলামের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির মুফতি মোহাম্মদ ওয়াক্কাস যশোর-৫ আসনে নির্বাচন করতে পারেন। তিনি এরশাদ সরকারের ধর্মমন্ত্রী ছিলেন। ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব ও হেফাজতের কেন্দ্রীয় যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মুফতি ফয়জুল্লাহ চট্টগ্রাম-৭ (রাঙ্গুনিয়া) আসনে প্রার্থী হবেন। হেফাজতের আন্দোলনে তিনি ঢাকায় প্রধান ভূমিকা পালন করেন। জানা গেছে, তিনি আল্লামা শফীর নিকটাত্মীয়। দুজনের বাড়িও একই উপজেলায়। ইসলামী ঐক্যজোটের কেন্দ্রীয় যুগ্মসাধারণ সম্পাদক ও চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি মাওলানা মহিউদ্দিন রুহী চট্টগ্রাম-৪ (হাটহাজারী) আসনে প্রার্থী হবেন। তিনি হেফাজত ইসলামের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক। ইসলামী ঐক্যজোটের সহকারী মহাসচিব ও হেফাজতের ঢাকা মহানগরী দফতর সম্পাদক মাওলানা আলতাফ হোসাইন কুমিল্লা-১ (দাউদকান্দি-মেঘনা) আসনে নির্বাচন করবেন। তিনি সরকারের অনুসারি হিসেবে পরিচিত এবং সরকার, হেফাজত ও ইসলামী ঐক্যজোটের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপনে ভূমিকা পালন করেন। ইসলামী ঐক্যজোটের কেন্দ্রীয় সদস্য ও হেফাজতের ঢাকা মহানগরী সদস্য মাওলানা মেহেদী হাসান ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসনে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। গত উপজেলা নির্বাচনে ইসলামী ঐক্যজোট সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করেন। ইসলামী ঐক্যজোটের ভাইস চেয়ারম্যান ও হেফাজতের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির মাওলনা আবদুল হামিদ মুন্সীগঞ্জ-১ (সিরাজদীখান-শ্রীনগর) আসনে নির্বাচন করবেন। তিনি এলাকায় মূলত ‘মধুপুর পীর’ নামে পরিচিত। এ ছাড়া হেফাজতে ইসলামের নায়েবে আমির মুফতি ইজাহারুল ইসলাম চৌধুরী চট্টগ্রাম-১৫ (বাঁশখালী), ঢাকা মহানগরীর যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মুফতি মোহাম্মদ তৈয়ব হোসাইন ময়মনসিংহ-২ (ফুলপুর-তারাকান্দা), অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহিনুর পাশা চৌধুরী সুনামগঞ্জ-৩ (জগন্নাথপুর), হেফাজতের কেন্দ্রীয় শুরা সদস্য মুফতি সাখাওয়াত হোসাইন কুমিল্লা-২ (হোমনা-তিতাস), বগুড়া জেলা সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার শামসুল হক বগুড়া-৬ (সদর), হেফাজতের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির আল্লামা সাজিদুর রহমান ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (সদর ও বিজয়নগর), কিশোরগঞ্জ জেলা সহসাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম), সিলেট জেলা হেফাজতের অন্যতম সমন্বয়কারী মাওলানা আসলাম রাহমানী মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া-কমলগঞ্জ) আসনে নির্বাচন করবেন। নেতা-কর্মীরা জানান, জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে হেফাজতের নেতারা সক্রিয় হয়ে উঠেছেন। সংসদে যাওয়ার জন্য ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সঙ্গে সমঝোতা করছেন। তারা বলছেন, অরাজনৈতিক সংগঠন হলেও আগামীতে হেফাজতে ইসলাম বড় ভূমিকা রাখতে চায়। তারই আলোকে এ খসড়া তালিকা করা হয়েছে।

Leave a Reply