শরীরের ক্ষতি রিফাইন্ড চিনিতে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৩ জুন ২০১৮ ইংরেজী, বুধবার: চকচক করলেই সোনা হয় না। রিফাইন্ড করা চকচকে সাদা চিনি প্রত্যেকটি দানা এতই স্বচ্ছ যে এর ক্ষতির দিকটা চিন্তাই করা হয় না। রিফাইন্ড করা এই সাদা চিনিতে কোন প্রাকৃতিক উপাদান নেই। এই চিনি সারফার ডাইঅক্সাইড, ফসফরিক অ্যাসিড, ক্যালসিয়াম হাইড্রোঅক্সাইড ও অ্যাক্টিভেডেট কার্বন দিয়ে রাসায়নিক ভাবে তৈরি করা হয়। ফলে শরীরের ক্ষতি অনিবার্য। এরকম দাবি করেছে চিকিৎসকেরা এবং অনেক স্বাস্থ্য বিষয়ক ওয়েবসাইট।
রিফাইন্ড চিনি খেলে যা ক্ষতি হচ্ছে:
১. রিফাইন্ড সুগার খেলে, গুড কোলেস্টেরল কমে যায়, যা ‘ব্যাড’ কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। পাশাপাশি ট্রাইগ্লিসারাইড বাড়িয়ে দেয়, যার ফলে বেড়ে যায় হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা।
২. চিনি খলে ব্রেনের ‘ফিল গুড’ সেরোটোনিন-এর মাত্রা বেড়ে যায়। এবং শরীর থেকে চিনি বেরিয়ে গেলে অবসাদগ্রস্থ হয়ে যায় মানুষ।
৩. রিফাইন্ড সুগার খেলে, ত্বকের ‘ইলাস্টিসিটি’র ক্ষতি হয়। যে কারণে বয়সের আগেই চামড়া কুঁচকে যায়।
৪. শরীরে বেশি চিনির পরিমাণ ইনসুলিন কোষের ক্ষতি করে। ফলে ওজন বেড়ে যায়।
৫. রিফাইন্ড সুগারে ফ্রুকটোজ থাকে, যা হজম করাতে সাহায্য করে শুধু লিভার। কিন্তু, বেশি পরিমাণে ফ্রুকটোজ ফ্যাটে পরিণত হয়, যা লিভারের জন্য ক্ষতিকারক।
৬. রিফাইন্ড সুগার খেলে ব্রেস্ট, কোলোন, অগ্ন্যাশয়ের ক্যানসার হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
৭. রিফাইন্ড সুগার তার প্রতিরোধ ক্ষমতা হারায়।
৮. রিফাইন্ড সুগার শরীরের সোডিয়াম, পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম ও ক্যালসিয়াম বের করে দেয়। এর ফলে, হাড় ও দাঁতের ক্ষতি হয়।
৯. ব্রেনের ডোপামাইন নিঃসরণ হয় এই চিনির জন্য, যা ড্রাগের নেশার মতো। যে কারণে, এই চিনির প্রতি আকর্ষণ বেড়ে যায়। সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply