বেগম জিয়ার মুক্তির মাধ্যমে এই দেশের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা হবে: ডা. শাহাদাত হোসেন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২০ এপ্রিল ২০১৮, শুক্রবার: চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ডাঃ শাহাদাত হোসেন বলেছেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী, বিএনপির চেয়ারপারসন, গণতন্ত্রের মা, দেশমাতা, বেগম খালাদা জিয়াকে জেলে রাখে মানবতা, মানবাধিকার, মানবতার চরম লংঘন। ফ্যাসিস্ট এই অবৈধ সরকার সর্ব ক্ষেত্রে দুর্নীতি-দুঃশাসন নির্যাতন- নিপীড়নে অতিষ্ঠ আজ। মন্ত্রী-এমপিদের ছত্রছায়ায় সরকারি দলের সন্ত্রাসী ক্যাডাররা জবর- দখল,সন্ত্রাসী কায়দায় চাঁদাবাজিসহ নানা অপকর্ম করছে। কিন্তু প্রশাসন নীরব ভূমিকা পালন করছে। অপরদিকে বিরোধী দল গণতান্ত্রিক অধিকারগুলো কেড়ে নিচ্ছে সরকার। সভা-সমাবেশে করলে পুলিশি বাধার শিকার হতে হয়। এই হচ্ছে এ সরকারের গণতন্ত্রের দ্বৈত-নীতি।
ডা.শাহাদাত আরও বলেন, আগামী ২৩ এপ্রিল ভিআইপি ব্যংকুইট বিএনপির কর্মীসভা সফল ও সার্থক করতে বিএনপি নেতাকর্মীদের ভূমিকা রাখতে হবে এবং বিএনপি’র চেয়ারপার্সন, গণতন্ত্রের মা, দেশমাতা, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির মাধ্যমে ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের শপথ নিতে হবে। তিনি অদ্য বিকেলে দলীয় কার্যালয় নাসিমন ভবনে আগামী ২৩ এপ্রিল, সোমবার, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি কর্মীসভা উপলক্ষে প্রস্তুতি সভায় সভাপতির বক্তব্যে উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন। এ সময় অন্যদের মধ্যে প্রস্তুতি সভায় বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান, সহ-সভাপতি মোহাম্মদ মিয়া ভোলা, হাজী মোহাম্মদ আলী, সৈয়দ আজম উদ্দিন, হারুন জামান, সৈয়দ আহমদ, নিয়াজ মোহাম্মদ খান, অধ্যাপক নুরুল আলম রাজু, এডভোকেট আবদুস সাত্তার সরওয়ার, এস এম আবুল ফয়েজ, এম এ হান্নান, নুরুল আলম, যুগ্ম সম্পাদক এস এম সাইফুল আলম, কাজী বেলাল উদ্দিন, শাহ আলম, আর ইউ চৌধুরী শাহিন, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, আবদুল মান্নান, মোশাররফ হোসেন দিপ্তী, গাজী সিরাজউল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক মনজুর আলম চৌধুরী মনজু, কামরুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক সিহাব উদ্দিন মবিন, সহসাধারণ সম্পাদক জিএম আইয়ুব খান, কাউান্সিলর ইয়াছিন চৌধুরী আছু, সম্পাদকবৃন্দ এডভোকেট সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, মাঈনুদ্দিন মো. শহীদ, হাজী নুরুল আকতার, ডা. এস এম সরওয়ার আলম, মো. নুরুজ্জামান, থানা বিএনপির সভাপতি মনজুর রহমান চৌধুরী, মোশাররফ হোসেন ডেপতি, মামুনুল ইসলাম হুমায়ুন, আবদুল্লাহ আল হারুন, সহসম্পাদকবৃন্দ আবদুল হালিম স্বপন, রফিকুল ইসলাম, মো. ইদ্রিস আলী, অধ্যক্ষ খোরশেদ আলম, মো. শাহজাহান, ছাবের আহমদ, সফিক আহমদ, আলমগীর নূর,মোস্তাফিজুর রহমান ভুলু, আবদুল হাই, সালাহ উদ্দিন লাতু, থানা সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জাকির হোসেন, আফতাবুর রহমান শাহীন, হাজী বাদশা মিয়া, মনির আহমদ চৌধুরী, রোকন উদ্দিন মাহমুদ, আবদুল কাদের জসিম, হাবিবুর রহমান, অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এইচ এম রাশেদ খান, জসিম উদ্দিন চৌধুরী, জিয়াউর রহমান জিয়া, শেখ রাসেল, জমির উদ্দিন নাহিদ, নগর বিএনপির সদস্য মো. ইলিয়াছ, আবুল মনসুর রোমেল, সাহেদা বেগম, মো. ইউসুফ সিকদার, মনজুর কাদের মিন্টু, মো. তছলিম হোসেন, বিএনপি নেতা কাউন্সিলর ইসমাঈল বালি আকতার খান, এস এম মফিজ উল্লাহ, হাজী মো. ইলিয়াছ, আবদুল্লাহ আল ছগীর, জানে আলম জিকু,
মো. বেলাল, মো. আজম, ছাদেকুর রহমান রিপন, হাজী মো. এমরান, মনজুর কাদের, জাহেদ উল্লাহ রাশেদ, জসিম মিয়া, হাসান ওসমান, মোস্তাক আহমদ প্রমুখ।

Leave a Reply