রোটারেক্ট ক্লাবের জনসচেতনতা মূলক “সেভ দ্যা এনভায়রণমেন্ট, সেভ দ্যা লাইফ এন্ড ফিউচার’’ অনুষ্ঠিত

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৮ মার্চ ২০১৮, রবিবার: বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অগ্রগতিতে মানবজীবন নানাভাবে উন্নতির চরম শিখরে আরোহন করলেও সারা বিশ্ব এখন পরিবেশ দূষণে দুষ্ট। উন্নত প্রযুক্তি ও যান্ত্রিক সভ্যতায় বসবাসকারী মানুষ আজ শব্দ দূষণে অসহনীয় অবস্থার মধ্যে দিন অতিবাহিত করছে। অগনিত যানবাহন ও কল-কারখানার কর্ণভেদী আওয়াজ ও মাইকের উচ্চ শব্দ এক বীভৎস পরিবেশের সৃষ্টি করছে। শব্দ দূষণে হৃদরোগ, স্নায়ুবিক দুর্বলতা, মানসিক অস্থিরতা প্রভৃতি উপসর্গগুলো ব্যাপক হারে দেখা দিয়েছে। আজ চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি মোড়ে রোটারেক্ট ক্লাব অফ চিটাগাং রিভার শাইন, চিটাগাং ইউনিভার্সিটি, চিটাগাং সেন্ট্রাল, চিটাগাং কসমোপলিটন ও চিটাগাং ডাউনটাউনের যৌথ উদ্যোগে জনগণকে গাড়ীর বিষাক্ত ধোঁয়া, ধুলাবালি ও ময়লা আবর্জনা, বর্জ্য পদার্থ সম্পর্কে সচেতন করার লক্ষ্যে বেশ কয়েকজন তরুন রোটারেক্ট সদস্যরা রিকশাচালক ও সাধারণ পথচারীদের মাঝে ফ্রিতে মাস্ক ও লিফলেট-স্টিকার বিতরণ করে।
এতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন-চট্টগ্রামের সভাপতি আমিনুল হক বাবু ও বিশেষ অতিথি হিসাবে পরিবেশ সংগঠক নোমান উল্লাহ বাহার বলেন, “বনভূমি ধ্বংস, অপরিকল্পিত নগরায়ণ, কল-কারখানার বর্জ্য, যানবাহনের ধোঁয়া, রাসায়নিক তেজষ্ক্রিয়তা, ব্যবহারের ফলে প্রাকৃতিক পরিবেশের ভারসাম্য বিনষ্ট হয়ে এক ভীতিকর ও সঙ্কটজনক অবস্থার সৃষ্টি করেছে। এ থেকে উত্তরণের জন্য প্রয়োজন জনগণের সচেতনতা ও সম্মিলিত প্রচেষ্টা”। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন রোটারেক্ট ক্লাব অব চিটাগাং রিভার শাইনের প্রতিষ্টাতা সভাপতি ওয়াহিদ মুরাদ, রোটারেক্ট ক্লাব অব চিটাগাং ইউনিভার্সিটির বর্তমান সভাপতি আব্দুলাহ আল মামুন, চিটাগাং সেন্ট্রালের বর্তমান সভাপতি ফারজানা নুপূর, চিটাগাং কসমোপলিটনের সভাপতি সাব্বির খান ও চিটাগাং ডাউনটাউনের সভাপতি সোহরাব হোসেন ও অন্যান্য ক্লাব সদস্যরা।

Leave a Reply