সুপ্রিম কোর্টে ঝুলছে ফেলানী হত্যা মামলা

রবিন আকরাম, ০৭ জানুয়ারী ২০১৮, রবিবার: ভারতের মানবাধিকার সুরক্ষা মঞ্চ মাসুমের কর্মকর্তা কীরিটি রায় বলেছেন, ফেলানী হত্যা মামলার সুরাহা কবে হবে তা সঠিকভাবে বলা যায় না। তবে বলা যেতে পারে ফেলানি মামলা এখনো বিচারাধীন। এর কারণ হিসেবে তিনি জানান, ভারতের সর্বোচ্চ আদালতের বিচার ব্যবস্থা খুবই বাজে।
বিচারটি এখন কোন পর্যায় আছে বা এত সময় বা লাগছে কেন এই নিয়ে বিবিসি বাংলার এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, কোনো কারণ নেই, মামলাটি লিস্টে আছে, কোন সময় মামলার শুনানি হবে জানিনা। তখন বিপক্ষ আবার কি বলবে না বলবে, জানি না।
২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহারের চৌধুরী হাট সীমান্ত চৌকির কাছে কাঁটা তারের বেড়া পার হওয়ার সময় বিএসএফ কনস্টেবল অমিয় ঘোষের গুলিতে মারা যায় বাংলাদেশের কিশোরী ফেলানী খাতুন। নিহত কিশোরীর মরদেহ কাঁটা তারে ঝুলে থাকলে সেই ছবি বিশ্ব মিডিয়া ও সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক আলোড়নের সৃষ্টি করে। এই হত্যাকা- নিয়ে ভারতেও সমালোচনা হয়। বছরের পর বছর ফেলানীর অভিভাবক তার মেয়েকে হত্যার বিচার চেয়ে আসলেও মামলা ও বিচার নিয়েও রয়ে গেছে বিতর্ক।
কীরিটি রায় বলেন, ভারতে এরকম ঘটনা প্রায় ঘটে তবে ফেলানীর ব্যাপারটা ছিল সে একজন কিশোরী, তার মরাদেহটি কাঁটা তারে ঝুলছিল। সে ছিল বাচ্চা মেয়ে। তাকে যেভাবে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে, যার কারণে আলোড়ন সৃষ্টি হয়।

Leave a Reply