তৃতীয় বৃহত্তম রাজনৈতিক জোট গঠন: ড. কামাল হোসেন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৭, বুধবার: জনগণের মধ্যে ঐক্য হলে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বাইরে গণফোরামের নেতৃত্বে তৃতীয় বৃহত্তম রাজনৈতিক জোট গঠনের ভালো সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করেন গণফোরাম সভাপতি ও সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেন।
আমাদের অর্থনীতিকে দেওয়া বিশেষ সাক্ষাৎকারে ড. কামাল হোসেন বলেন, আমরা তো বলছি, জনগণের মধ্যে ঐক্য চাই। জনগণের মধ্যে ঐক্য স্থাপিত হলে দেশের গণতন্ত্র কিভাবে আরও কার্যকর করা যায়, সুশাসন নিশ্চিত করার জন্য যদি অন্যভাবে সমন্বয় করতে হয়, সহযোগিতা করতে হয় তাহলে করা যাবে। তখন জোটের ব্যাপারটি বিবেচনার মধ্যে আসতে পারে। এছাড়া সরকার যদি এর মধ্যে অন্যায়ভাবে কোনো বাধা না দেয়, সুযোগ পেলে অবশ্যই তারা (জনগণ) সেটা করতে পারে। এবং করবে বলে আমার বিশ্বাস।
তিনি বলেন, অতীতে বিএনপি দেশের রাষ্ট্রক্ষমতায় ছিল। তাদের তো ওই অর্থে ভালো কিছু করতে দেখিনি। বিএনপিকে আমাদের দেখা হয়ে গেছে, আওয়ামী লীগকেও দেখা হয়ে গেছে। সে কারণেই আমরা বলিÑ জনগণের ক্ষমতায়নের জন্যই আমরা কাজ করি। জনগণের ক্ষমতায়ন হলে সত্যিকার অর্থে তাদের যারা প্রতিনিধিত্ব করবে, যাদের আনা উচিত তাদেরকে সামনে আনতে পারবে।
তিনি আরও বলেন, দুই দলের মধ্যে বৈরী সম্পর্ক দূরীকরণে জনগণের ঐক্য দরকার। জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বলতে হবেÑ ‘তোমরা যা বলো, তা করো। সংবিধান মেনে তোমরা কাজ করো।’ এ ব্যাপারে তো আমরা কিছু বলছি না। আর এই যে কালো টাকা, পেশীশক্তি, সাম্প্রদায়িকতা আমরা লক্ষ্য করছি এসব তো স্বাধীন বাংলাদেশে আমরা কখনো আশা করি না।
এক প্রশ্নের জবাবে ড. কামাল হোসেন বলেন, সাধারণ (জাতীয় সংসদ নির্বাচন) নির্বাচন হলে মানুষ জানে কী করতে হয়। যখনই সুষ্ঠু নির্বাচন হয় তখনই মানুষ ভালো কিছু করতে পারে। কারণ এদেশের মানুষ সচেতন। নানা কায়দায় তাদের বঞ্চিত না করলে মানুষ গণতন্ত্রকে সুন্দরভাবে লালন করতে পারে। সামনের দিকে এগিয়ে নিতে পারে।
তিনি বলেন, আমরা এখন ১৪ দলে নেই। ১৪ দলীয় জোটও তো এখন আর নেই। কিন্তু এই চৌদ্দ দলের পুরো সবিধাভোগ করেছে তারা (আওয়ামী লীগ)। ২০০৮ সালের নির্বাচনে আমাদের অসাধারণ অবদান ছিল। তার মূল্যায়ন কী হয়েছে? এমন প্রশ্নও রাখেন এই বর্ষীয়াণ রাজনীতিক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*