নেপালের সাথে চীনের চারটি প্রধান সহযোগিতা ক্ষেত্র: ইউ হং

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৯ নভেম্বর ২০১৭, রবিবার: নেপালে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত ইউ হং বলেছেন, নেপালের সাথে একটি নতুুন মাত্রার আন্তর্জাতিক সম্পর্ক তৈরি ও উভয় রাষ্ট্রের সহযোগিতামূলক ভবিষ্যতের জন্য কাজ করছে চীন। শুক্রবার কাঠমান্ডুতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। চীনা কমিউনিস্ট পার্টির সদ্য সমাপ্ত ১৯তম জাতীয় কংগ্রেসের পরিপ্রেক্ষিতে নেপালের সাথে সম্পর্কের ক্ষেত্রে চীনের অগ্রাধিকার বিষয়গুলো নেপালবাসীকে অবহিত করতে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
ইউ হং বলেন, নেপালের সাথে চীনের চারটি প্রধান সহযোগিতা ক্ষেত্র হলো- বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, দুর্যোগ পরবর্তী পুনর্গঠন, জ্বালানি ও পর্যটন। তবে চীনের ওয়ান বেল্ট, ওয়ান রোড প্রকল্পে যুক্ত হওয়ার পরিকল্পনার জন্য নেপালকে অভিনন্দন জানান তিনি।
সাম্প্রতিক বছরগুলোতে নেপাল ও চীনের মধ্যে বাণিজ্য ও বিনিয়োগের পরিমাণ বাড়লেও বেইজিং থেকে আরো বিনিয়োগ পেতে কাঠমান্ডুকে তার নীতি ও স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করতে হবে বলে রাষ্ট্রদূত উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করছি বিনিয়োগকারীদের জন্য আরো অনুকূল ও বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি করতে পারবে নেপাল। শুধু চীন থেকে নয়, অন্য দেশ থেকেও এখানে বিনিয়োগ আসতে হবে। এ জন্য সরকারকে আরো স্থিতিশীল হতে হবে এবং নীতির ধারাবাহিকতা থাকতে হবে।’ একটি চীনা কোম্পানির সাথে নেপাল জলবিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণ চুক্তি বাতিল করার কয়েক দিনের মধ্যে চীনা রাষ্ট্রদূতের কাছ থেকে এই মন্তব্য আসে। ভারতের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী চীন-পাকিস্তানের চেয়ে বড় হুমকি বাংলাদেশ। এনডিটিভি
বাংলাদেশকে চীন ও পাকিস্তানের চেয়েও বড় নিরাপত্তা হুমকি বলে আখ্যা দিয়েছেন ভারতের স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হংসরাজ গঙ্গারাম আহির। শুধু তাই নয়, বাংলাদেশকে ‘তথাকথিত বন্ধু’ বলে মন্তব্য করেন তিনি। বৃহস্পতিবার নিরাপত্তা বিষয়ক এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।
এই প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘শুধু চীন বা পাকিস্তানই নয়, বাংলাদেশও আমাদের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য একই রকম অপেক্ষাকৃত বড় এক হুমকি। আমি এটি জানি কারণ বিষয়টি আমি কাছ থেকে দেখার সুযোগ পাই।’ ওই একই বক্তব্যে আহির চীনকে নিয়ে বলেন, দেশটি ভারতের ঘনিষ্ঠ বন্ধু নয়। পাকিস্তান প্রসঙ্গে বলেন, পাকিস্তান অধ্যুষিত কাশ্মির যদি ভারত কেড়ে নেয়ার চেষ্টা করে তাহলে কেউ ভারতকে ঠেকাতে পারবে না কারণ, ‘এটা আমাদের অধিকার এবং আমরা এটা ফিরে পেতে প্রচেষ্টা চালাবো।’ বাংলাদেশ নিয়ে আহির আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ স্রেফ তথাকথিত বন্ধু কেননা স্পষ্টত তারা অবৈধ অনুপ্রবেশের মাধ্যমে ভারতের অনেক ক্ষতি করেছে। আর সামনের দিকে শুধু স্মার্ট প্রযুক্তিই এই হুমকি নিয়ন্ত্রণে আমাদের সাহায্য করবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*