ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় গ্রাম আদালতকে সুনির্দিষ্ট ভূমিকা রাখতে হবে: চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৯ সেপ্টম্বর ২০১৭, শুক্রবার: চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, গ্রাম আদালতের মাধ্যমে তৃণমূল পর্যন্ত বিচারিক সেবা পৌঁছে দিতে হবে। স্থানীয় পর্যায়ে অতি স্বল্প খরচে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় গ্রাম আদালতকে সুনির্দিষ্ঠ ভূমিকা পালন করতে হবে। সমাজে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা সরকারের একটি অন্যতম অঙ্গিকার। বিচার কার্য পরিচালনায় আইন ও বিধি মেনে বিচারিক মূল্যবোধ অক্ষুন্ন রেখে ইউনিয়ন পর্যায়ে গ্রাম আদালতের সুনাম বৃদ্ধি করতে হবে। প্রান্তিক মানুষের কথা শুনতে হবে, তাদের ন্যায় বিচার পেতে সহায়ক ভূমিকা রাখতে হবে। এজন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে যাবতীয় সহযোগিতা প্রদান করা হবে। চট্টগ্রাম নগরীর স্টেশন রোডস্থ এশিয়ান এসআর হোটেলের কনফারেন্স রুমে আয়োজিত ইউনিয়ন পরিষদ সচিব ও গ্রাম আদালত সহকারীদের গ্রাম আদালত বিষয়ক ৫ দিনব্যাপী আবাসিক প্রশিক্ষণের (২য় ব্যাচ) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃক পরিচালিত গ্রাম আদালতে যদি ছোট-খাট দেওয়ানী ও ফৌজদারী বিরোধসমূহ নিস্পত্তি করা যায় এবং এতদসংক্রান্ত অভিযোগগুলো যদি থানায় অথবা আদালতে দায়ের করা না হয় তাহলে দেশের মূলধারার বিচারিক আদালতগুলোর উপর থেকে মামলার জট অনেকাংশে হৃাস করা সম্ভব হবে এবং গরিব ও অসহায় মানুষ স্বল্প সময়ে অল্প খরচে ন্যায় বিচার পাবে। গ্রাম আদালতের কার্যক্রমকে আরও শক্তিশালী, গতিশীল ও কার্যকর করা খুবই জরুরি।
জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের উপ-পরিচালক (স্থানীয় সরকার) মোহা. নায়েব আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্পের ডিস্ট্রিক্ট ফ্যাসিলিটেটর উজ্জ্বল কুমার চৌধুরী ও সহযোগী সংস্থা ব্লাষ্টের জেলা সমস্বয়কারী সাজেদুল আনোয়ার ভূঁঞা।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্পের আওতায় প্রকল্পভূক্ত প্রতিটি জেলার ন্যায় চট্টগ্রাম জেলায় দক্ষতাবৃদ্ধিমূলক যাবতীয় প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ১২ সদস্যের ডিস্ট্রিক্ট ট্রেনিং পুল গঠন করা হয়েছে। ডিস্ট্রিক্ট ট্রেনিং পুলের সদস্য পটিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জসীম উদ্দিন খান, জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার ফারহানা ইয়াসমিন, সমাজ সেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বন্দনা দাশ, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা অঞ্জনা ভট্টাচার্য্য, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর সহকারী পরিচালক সুলতান আহম্মেদ, ডিস্ট্রিক্ট ফ্যাসিলিটেটর উজ্জ্বল কুমার চৌধুরী, বাংলাদেশ গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্পের সহযোগী সংস্থা ব্লাষ্টের জেলা সমস্বয়কারী সাজেদুল আনোয়ার ভূঁঞা এবং জেলার ৫টি উপজেলার সমন্বয়কারীগণ।

 

Leave a Reply