বিভিন্ন দেশ থেকে আসা ত্রাণ-সামগ্রী ডেসপাসে সাহায্য করছে বিমান বাহিনী

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৫ সেপ্টম্বর ২০১৭, সোমবার: রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সাহায্যার্থে বিভিন্ন দেশ থেকে আসা ত্রাণ-সামগ্রী আনলোড ও ডেসপাসে সাহায্য করছে বাংলাদেশ বিমান বাহিনী। ত্রাণ কাজ সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে পরিচালনার জন্য বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর জহুরুল হক ঘাঁটির সিনিয়র ট্রাফিক কন্ট্রোল অফিসার উইং কমান্ডার মো. জাহাঙ্গীর হোসেনকে প্রধান সমন্বয়কারী করে একটি ত্রাণ ব্যবস্থাপনা কেন্দ্র (আরএমসি) গঠন করা হয়েছে।
সোমবার বিকালে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্থানীয় ঘাঁটির সদস্যরা তাদের যন্ত্রপাতি ব্যবহার করে সিভিল এভিয়েশনের সঙ্গে সমন্বয়পূর্বক চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিভিন্ন দেশ থেকে আগত ত্রাণ-সামগ্রী আনলোড এবং পরিবহণের কাজে সহায়তা করে যাচ্ছে।
ত্রাণ-সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে চাল, আটা, লবণ, মাছ, বিস্কুট, চকলেট, নারকেল তেল, জেনারেটর, ফ্যামিলি কিট, লুঙ্গি, ঔষধ, পাউডার দুধ, চিনি, খেজুর, তাবু, কম্বল, তৈরি পোশাক ইত্যাদি।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ৯ সেপ্টেম্বর থেকে বিভিন্ন দেশ থেকে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য ত্রাণ-সামগ্রী আসতে থাকে। এ পর্যন্ত মরক্কো, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ইরান, মালয়েশিয়া ও সৌদি আরব থেকে ১৬টি বিমানযোগে চার শত ৬৭.৬৬ টন ত্রাণ-সামগ্রী চট্টগ্রামে এসে পৌঁছেছে।
এছাড়া বিমান বাহিনীর সদস্যরা বিমানবন্দরে আসা ত্রাণ-সামগ্রী রাখার জন্য প্রয়োজনীয় ওয়্যার হাউসের ব্যবস্থা করেছেন। বিমানবন্দর এলাকায় প্রয়োজনীয় কার্যক্রম শেষে সেনাবাহিনীর কাছে ত্রাণ-সামগ্রী হস্তান্তর করছেন বিমান বাহিনীর সদস্যরা। পাশাপাশি সেনাবাহিনীর সদস্যদের প্রয়োজনীয় সাহায্য-সহযোগিতা প্রদান করছেন।
গত ২৩ সেপ্টেম্বর মালয়েশিয়া থেকে আগত ত্রাণবাহী এএন-১২৪ পরিবহন বিমানটির অবতরণ সহায়তার জন্য প্রয়োজনীয় গ্রাউন্ড সাপোর্ট না থাকা সত্ত্বেও বিমানটিকে সফলতার সঙ্গে অবতরণ করাতে সক্ষম হয়েছে। রোহিঙ্গা শরণার্থীদের পাশে থাকার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করছে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীবলা হয় আইএসপিআরের এই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।

 

Leave a Reply