শাহ্ মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠু’র ২৮তম শাহাদাৎ বার্ষিকীর স্মরণসভা

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৩ সেপ্টম্বর ২০১৭, শনিবার: চট্টগ্রাম মহাগর বিএনপি’র সাধারন সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেছেন, শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠু দেশে ভোট ও ভাতের অধিকার রক্ষ ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য স্বৈরাচার বিরোধী আন্দেলনে দুঃসময়ে ছাত্রদলের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। আন্দোলন সংগ্রামে তিনি অগ্রণী ভূমিকা পালন করে দলের নিবেদিত প্রাণ হিসেবে সকলের প্রিয় ছাত্রনেতা হিসেবে পরিচিত ছিলেন। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে রাজপথে নির্ভিক ভূমিকা পালনের জন্য তিনি ছাত্র জনতার কাছে অধিক জনপ্রিয় ছাত্রনেতা ছিলেন। ছাত্র রাজনীতিতে তাঁর কর্মকান্ড ও জনপ্রিয়তায় ইর্ষান্বিত হয়ে প্রতিপক্ষ ছাত্রলীগের বিপদগামী সন্ত্রাসীরা ১৯৮৯ সালের আজকের এই দিনে তাকে নির্মমভাবে হত্যা করে। আমরা আজকে স্মরণসভায় শাহ্ মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠুর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের এখন একটি মাত্র সমস্যা আর তা হচ্ছে শেখ হাসিনা ও আওয়ামীলীগ। এই স্বৈরাচারী তাবেদার সরকার ক্ষমতা থেকে সরে গেলেই খুন, গুম, হত্যা, সন্ত্রাস, লুটপাট, দুর্নীতি বন্ধ হবে। একই সাথে স্বাধীনতা-স্বার্বভৌমত্ব বিরোধী সকল ষড়যন্ত্র নস্যাৎ হয়ে যাবে। তিনি জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠুর মতন সাহসী ও নির্ভীক হয়ে দলের জন্য রাজপথে কাজ করতে করার আহ্বান জানিয়ে আগামী দিনের রাজনীতিতে বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে গণতন্ত্র পূণঃপ্রতিষ্ঠার আন্দোলনে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নেতাকর্মীদেরকে আন্দোলন সংগ্রামে অগ্রণী ভূমিকা পালন করার উদাত্ত আহ্বান জানান। তিনি অদ্য ২৩ সেপ্টেম্বর শনিবার কাজী দেউরী নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয়ে শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠু‘র ২৮তম শাহাদাৎ বার্ষিকীর স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজী মো. সিরাজ উল্লাহ‘র সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সম্পাদক আলী মর্তুজা খান এর পরিচালনায় প্রধান বক্তা চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র যুগ্ম সম্পাদক ইয়াছিন চৌধুরী লিটন বলেন, তৎকালীন ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী নিবিড় বড়–য়া গং শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠুকে নির্মমভাবে হত্যা করে, তারা মিঠুকে হত্যা করে মনে করেছিল জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের অগ্রযাত্রাকে রুখা যাবে। কিন্তুপ্রতিটি ক্যাম্পাসে হাজারো মিঠুর রক্তমাখা শার্ট জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের আদর্শের লাল পতাকা হয়ে থাকেব। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী, জিয়াউর রহমান জিয়া, যুগ্ম সম্পাদক শেখ রাসেল, জমির উদ্দিন নাহিদ প্রমুখ। স্মরণসভা শেষে খতমে কোরআন ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠুর আত্মার মাগফেরাত কামনায় মুনাজাত করা হয়।

Leave a Reply