রোহিঙ্গা ইস্যুতে সূচীকে সমর্থন আঞ্চলিক রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার আগাম সংকেত: মুসলিম লীগ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৩ সেপ্টম্বর ২০১৭, বুধবার: আরাকান রাজ্য তথা রাখাইন স্টেটের অসহায় রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর মিয়ানমার সরকারী বাহিনীর পৃষ্ঠপোষকতায় বীভৎস গণহত্যা ও বাংলাদেশে পুশ ইনের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ মুসলিম লীগ নেতৃবৃন্দ। আজ সকাল ১১ টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ মুসলিম লীগ আয়োজিত এক মানব বন্ধনে নেতৃবৃন্দ বলেন, রোহিঙ্গা মুসলমানদের উপর বীভৎস গণহত্যা ও দেশত্যাগে বাধ্য করার মাধ্যমে মগের মুল্লুক শব্দের যথার্থতা মগেরা প্রমাণ করেছে। বাঙালি আখ্যা দিয়ে রোহিঙ্গা মুসলমানদের বাংলাদেশে পুশ ইনের মিয়ানমার সরকারের বর্বর পরিকল্পনা সফল হয়েছে ভেবে তাদের তৃপ্তির ঢেকুর তোলার কোন অবকাশ নেই। বাংলাদেশের জনগন তাদের সাময়িক আশ্রয় দিয়ে মানবিক দায়িত্ব পালন করেছে মাত্র। অবিলম্বে মিয়ানমারকে অবশ্যই রোহিঙ্গাদের তাদের সকল নাগরিক অধিকার সহ ফেরত নিতে হবে। কূটনৈতিক তৎপরতায় এ সমস্যা সমাধানে আগ্রহী না হলে দেশের ১৬কোটি জনগণ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে সাথে নিয়ে মিয়ানমারকে তা মেনে নিতে বাধ্য করবে।

????????????

পাশাপাশি মিয়ানমার নেত্রী সূচীর এই ধরনের অমানবিক ধ্বংসাত্মক নীতিকে প্রতিবেশী একটি বৃহদাকার দেশের প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি সমর্থন দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক রাজনীতি অস্থিতিশীল হয়ে ওঠার আগাম সংকেত বলে উদ্বেগ জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, যে দেশ ১৯৭১ সনে প্রতিবেশী রাষ্ট্রের কয়েক কোটি উদ্বাস্তু কে আশ্রয় দেয়ার মত উদারতা দেখাতে পারে সেই একই দেশের প্রধানমন্ত্রী কি করে এরকম বর্বর গণহত্যাকে সমর্থন করতে পারে তা আমাদের বোধগম্য নয়?! মিয়ানমারের এ ধরনের বর্বরতা কোন সুস্থ বিবেকবান মানুষই সমর্থন করতে পারে না।
রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশ সরকারের রোহিঙ্গা সেল গঠন করার উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, মিয়ানমারের প্রতি চাপ প্রয়োগের অংশ হিসাবে রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার সহ সকল সম্পর্ক ছিন্ন করা এমনকি প্রয়োজনে আরো কঠোর নীতি গ্রহণ করুন। আভ্যন্তরীণ অনেক বিষয়ে পারস্পরিক মতানৈক্য থাকলেও রোহিঙ্গা ইস্যুতে গোটা জাতি ঐক্যবদ্ধ হয়ে সরকারের পাশে থাকবে। আরাকান প্রদেশে শান্তি-শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে জাতিসংঘের প্রতি শান্তি রক্ষা মিশন প্রেরণে তৎপরতা চালাতে এবং রোহিঙ্গা ক্যাম্প ও আশেপাশের অঞ্চলে সুষ্ঠ ব্যবস্থাপনা ও শৃঙ্খলা রক্ষায় সেনাবাহিনী নিয়োগের উদ্যোগ গ্রহণ করতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি জোর দাবী জানান নেতৃবৃন্দ। অসহায় রোহিঙ্গাদের পাশে দাড়ানোর জন্য দেশের মানুষ বিশেষ করে টেকনাফ অঞ্চলের জনগন ও জনপ্রতিনিধিদের অসাধারণ ভূমিকার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, ব্যাক্তিগত উদ্যোগে সীমিত সামর্থ্য নিয়েই রোহিঙ্গাদের জন্য আপনাদের মানবিক কর্মকা- বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের মাথা উচু করে দিয়েছে। একই ভূমিকার জন্য সরকার, প্রশাসন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়, বিভিন্ন সংগঠন ও এনজিওদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ মুসলিম লীগ নেতবৃন্দ।

????????????

দলের প্রেসিডিয়ামের সিনিয়র সদস্য প্রবীণ রাজনীতিবিদ আতিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানব বন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন দলীয় মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের, আকবর হোসেন পাঠান, শহুদুল হক ভূঁইয়া, এস.এইচ খান আসাদ, এডভোকেট হাবিবুর রহমান, কাজী এ. এ কাফী, খোন্দকার জিল্লুর রহমান, ইঞ্জিঃ ওসমান গনী, শেখ এ সবুর, ডাঃ হাজেরা বেগম, আলেয়া আক্তার আলো, সাংবাদিক ফেরদৌস আহমেদ, ফারুক আহমেদ, আবু বক্কর সিদ্দীক, ছাত্র মুসলিম লীগ নেতা নূর আলম, কাওছার আহমেদ, সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

Leave a Reply