‘অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে স্বদেশে ফিরে যেতে হবে’

এম এম রাজা মিয়া রাজু, ১৩ সেপ্টম্বর ২০১৭, বুধবার: মিয়ামানমারের মুসলিম নাগরিকরা নির্যাতনের শিকার হয়ে বাংলাদেশে ঢুকে পড়ছে। সূত্রমতে বর্তমানে ৩ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা এখানে অনুপ্রবেশ করেছে। অনুপ্রবেশ রোহিঙ্গারা চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলায় স্থান নিয়েছে। মানবিক কারণে মানুষ তাদের সহানুভূতি প্রকাশ করে যাচ্ছে। ইতিপূর্বে ও ১ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা অবৈধভাবে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছিল। তারা স্বদেশে ফিরে য়ায়নি। তারা বিভিন্ন স্থানে বসবাস করার সুযোগ পেয়ে এখানকার অসহায় পরিবারের মেয়েদের বিয়ে করে স্থায়ী নাগরিক হওয়ার অপতৎপরতায় লিপ্ত রয়েছে। এই সুযোগে অনেকে ভোটার ও হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। বর্তমানে সাতকানিয়ার ছদাহা কেওঁচিয়া বাজালিয়া ঢেমশা কালিয়াইশ সোনাকানিয়া সহ অন্যান্য ইউনিয়নে অর্ধলক্ষাধিক রোহিঙ্গা বসবাস করছে বলে জানা গেছে। তারা কিন্তু কাজের চেয়ে অপকর্ম বেশী করে বলে অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি কেরানীহাটসহ কয়েকটি স্থানে বেশ ক’টি চুরি হয়েছে। এসব চুরিতে রোহিঙ্গারা জড়িত বলে সূত্রেপ্রকাশ। এদিকে গত সোমবার কেরানীহাটে ৪০হাজার চুরি করার সময় দুই রোহিঙ্গাকে আটক করে মাথা নেড়া করে দেয়। রোহিঙ্গারা ২ থেকে ৫ হাজার টাকার বিনিময়ে মানুষকে খুনকে করতে দ্বিধা করে না বলে এলাকায় অভিযোগ উঠেছে। এখানকার স্থায়ী বাসিন্দারা যেখানে হিমশিম খাচ্ছে সেখানে রোহিঙ্গাদের পুনর্বাসন মোটই সম্ভবপর হবে না বলে অভিজ্ঞমহল অভিমত প্রকাশ করেছেন। উল্লেখ্য বাংলাদেশের কতিপয় দুষ্কৃতিকারী রোহিঙ্গাদের আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়ে নিজের ফায়দা লুটে বলে জানা গেছে। এদিকে অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের নির্দ্দিষ্ট ক্যাম্পে আবদ্ধ রেখে তাদের তালিকা তৈরী করা প্রয়োজন। যখন মিয়ানমারের অবস্থা স্বাভাবিক হবে তখন তালিকা অনুযায়ী তাদের ফিরে যেতে হবে। এত্রেক্ষে তাদের আতœগোপন সুযোগ থাকবে না। অন্যথায় বাংলাদেশের অবস্থা শোচনীয় হয়ে দাড়াঁবে।

 

Leave a Reply