সাংবাদিক গৌরি লঙ্কেশ খুনের ঘটনায় ভারতের অবস্থানের সমালোচনা করেছে জাতিসংঘ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১২ সেপ্টম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার: রোহিঙ্গাদের বিষয়ে এবং সাংবাদিক গৌরি লঙ্কেশ খুনের ঘটনায় ভারতের অবস্থানের সমালোচনা করেছে জাতিসংঘ। যদিও জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনারের এই সমালোচনার বিষয়ে ভারত কোনো আনুষ্ঠানিক মন্তব্য করেনি।
আজ মঙ্গলবার টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ৪০ হাজার রোহিঙ্গাকে দেশ থেকে বের করে দেওয়ার হুমকির বিষয়ে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল ভারতের সমালোচনা করেছে।
গতকাল সোমবার জেনেভায় জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলের ৩৬তম অধিবেশনে জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনার জেইদ রাদ-আল হুসেইন নয়াদিল্লির সমালোচনা করেন।
মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী সহিংস অভিযান চালাচ্ছে। এই সময়ে রোহিঙ্গাদের ভারত থেকে বের করে দেওয়ার হুমকির বিষয়ে নয়াদিল্লির সমালোচনা করেন জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনার।
জেইদ রাদ-আল হুসেইন বলেন, প্রথাগত আইন ও আন্তর্জাতিক কনভেনশন অনুযায়ী ভারত সমষ্টিগতভাবে রোহিঙ্গাদের বহিষ্কার করতে পারে না। নির্যাতনের শঙ্কা আছে বা গুরুতর সহিংস এলাকায় তারা রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে পারে না।
এ ছাড়া গো-রক্ষার নামে ভারতে চলা তৎপরতা ও সম্প্রতি সাংবাদিক গৌরী লঙ্কেশ খুন হওয়ার বিষয়েও নয়াদিল্লি জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলের সমালোচনার মুখে পড়েছে।
চলতি বছরের শুরুর দিকেও জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিল ভারতের সমালোচনা করেছিল। সাম্প্রদায়িকতা বৃদ্ধি, জাতিগত সহিংসতাসহ বিভিন্ন মানবাধিকার ইস্যুতে তখন ভারতের সমালোচনা করা হয়েছিল। মিয়ানমারের রোহিঙ্গা ইস্যুতে ভারত ভারসাম্যপূর্ণ দৃষ্টিভঙ্গি নিয়েছে বলে মনে করে দেশটি।
গত ২৫ আগস্ট রাখাইনে পুলিশ ও সেনাবাহিনীর বেশ কয়েকটি চৌকিতে হামলা করে আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি বা আরসা। হামলার পর রাখাইনে সহিংস অভিযান শুরু করে দেশটির সেনা ও পুলিশ। অভিযানের মুখে ১০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রাখাইন থেকে তিন লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছে।
সম্প্রতি মিয়ানমার সফর করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। দেশটির ক্ষমতাসীন দলের প্রধান অং সান সু চির সঙ্গে বৈঠকের পর যৌথ সংবাদ সম্মেলনে রাখাইনে ‘উগ্রবাদী সহিংসতায়’ উদ্বেগ জানান মোদি। তবে তখন তিনি রাখাইনে সহিংসতার মুখে বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের ঢল নিয়ে কোনো কথা বলেননি। রাখাইন পরিস্থিতির কারণে সেখান থেকে এই অঞ্চলে বিপুলসংখ্যক শরণার্থীর ঢলে গতকাল শনিবার গভীর উদ্বেগ জানায় ভারত। রাখাইনে সহিংসতা বন্ধ করে দ্রুত স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনার ওপরও ভারত জোর দেয়।

Leave a Reply