মায়ানমারের মৃত্যুপুরী থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের আশ্রয় দিন: ছাত্র ঐক্য ফোরাম

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৮ সেপ্টম্বর ২০১৭, শুক্রবার: মায়ানমারের মুসলিম রোহিঙ্গাদের নির্মম গণহত্যার প্রতিবাদে এবং রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বাংলাদেশে আশ্রয় দানের দাবিতে চট্টগ্রামস্থ বাঁশখালী ছাত্রঐক্য ফোরামের উদ্যোগে বাঁশখালী পৌরসভায় এক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ সংগঠনের সভাপতি ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার শাহ নেওয়াজ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়। এই সময় উপস্থিত ছিলেন বাঁশখালী পৌরসভা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জিয়াউল হাসান হোসাইনী, সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা ছাত্রদলের সদস্য এম. ইসহাক ছানবী, সংগঠনের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক ও মহসিন কলেজ ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক শফিউল আলম, মহসিন কলেজ ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক মোঃ ইউনুস, এড. আহমদ ছগীর ছানবী, সংগঠনের সহ সভাপতি ও জেলা ছাত্রদলের সদস্য ফরমানুল ইসলাম চৌধুরী, সহ সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান, ফেরদৌস আলম টিটু, দপ্তর সম্পাদক উসমান গণী, প্রচার সম্পাদক কাউছার হোসাইন চৌধুরী, মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, মোরশেদুল আলম, হেফাজ উদ্দিন মানিক, মোঃ কাইয়ুম, মোঃ হেফাজ উদ্দিন, নজরুল ইসলাম, শাহাব উদ্দিন, চৌধুরী শাহরিয়ার, আবু নুরতাজ, আব্দু রশিদ, এনামুল হক, শাহাদত হোসেন মিশু, আবুল হাসনাত শাওন, মহিউদ্দিন, মিজানুর রহমান, আলমগির প্রমুখ। মানববন্ধনে সভাপতির বক্তব্যে শাহ নেওয়াজ চৌধুরী বলেন- দেশের বিবেকবান মানুষের প্রতি আমার প্রশ্ন আপনারা শুনতে পারছেন কি মায়ানমারের রোহিঙ্গাদের গণহত্যা ও নির্যাতনের আত্মচিৎকার? মায়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিমদের উপর চালানো হচ্ছে পৃথিবীর সবচেয়ে নিকৃষ্ট নির্মম গণহত্যা ও নির্যাতন। রোহিঙ্গা শিশুদের ধরে ধরে জবাই করা হচ্ছে! যুবতি মেয়েদের দলবেঁধে ধর্ষণের পর হত্যা করছে এবং যুবক-বৃদ্ধ পুরুষ মহিলাদের একসাথে ঘরের ভিতর বেঁধে ঘরে গুণ জ্বালিয়ে দিয়ে পুড়িয়ে মারা হচ্ছে। এর চেয়েও মর্মান্তিক সংবাদ হচ্ছে মায়ানমারের মৃত্যুপুরী থেকে পালিয়ে আসা ঐসব রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বাংলাদেশ সরকার পুশব্যাক করে মৃত্যুপুরীতে পাঠিয়ে দিচ্ছে। তাই সরকারের কাছে সংবাদ মিড়িয়ার মাধ্যমে আমাদের দাবি রোহিঙ্গা শরণার্থীদের পুশব্যাক করা বন্ধ করুণ এবং বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের শরণার্থী হিসাবে আশ্রয়ের ব্যবস্থা করুণ।

 

Leave a Reply