নমিতা-রেখা আলম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন: মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৭ সেপ্টম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার: চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক আঞ্জুমান আরা চৌধুরী আনজী সংগঠনের অভ্যন্তরে বিভেদকারী সাংগঠনিক কর্মকান্ডে নিষ্ক্রিয় গুটি কয়েক নেতৃবৃন্দ দলীয় শৃঙ্খলা বিরোধী কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছেন এবং তাদের কেউ কেউ সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দাবী করে গণমাধ্যমে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন। এক যুক্ত বিবৃতিতে তাঁরা বলেন, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি নগরীর একটি কনভেনশন সেন্টারে কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এ সম্মেলনের কাউন্সিল অধিবেশনে কাউন্সিলরদের সর্বসম্মত রায়ে হাসিনা মহিউদ্দিনকে সভাপতি ও আনজুমান আরা চৌধুরী আনজীকে সাধারণ সম্পাদক করে মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত হয় এবং এ কমিটিকে কেন্দ্র থেকে তৎকালীন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত এক পত্রে আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদন দেওয়া হয়। বিবৃতিতে আরো বলা হয়, এ বৈধ কমিটির অধীনে মহানগরীর ৪৪টি সাংগঠনিক ওয়ার্ডে অনুমোদিত পূর্ণাঙ্গ ও আহ্বায়ক কমিটি রয়েছে। এগুলোর মাধ্যমে মহানগরী এলাকায় চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে আসছে এবং নগরীর ঘূর্ণি ও বন্যা দুর্গত অঞ্চলের দুঃস্থদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ সহ বিভিন্ন জনকল্যাণমুখী কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। বিবৃতিতে ক্ষোভ ও উদ্বেগ প্রকাশ করে বলা হয়, জনৈকা নমৈতা আইচ ও রেখা আলম চৌধুরী দীর্ঘদিন ধরে দলের সংগঠনে নিষ্ক্রীয় ছিলেন। তারপরও কেন্দ্র অনুমোদিত বৈধ কমিটিতে নমিতা আইচকে সহ সভাপতি ও রেখা আলম চৌধুরীকে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছিল। অথচ এই দুজনই এখন নিজেদেরকে সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক দাবী করে গণমাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি দিচ্ছেন এবং কোন কোন ওয়ার্ডে ভূয়া কমিটিও গঠন করেছেন। আমরা পরিষ্কারভাবে বলতে চাই, তারা এ ধরনের সংগঠন বিরোধী অনৈতিক কার্যকলাপের মাধ্যমে এবং দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছেন এবং দল ও সরকারের ভাবমূর্তিকে ক্ষুণœ করে চলেছেন। আমরা মনে করি নমিতা আইচ ও রেখা আলম চৌধুরী কোন অশুভ শক্তির ইন্দনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীককে ভরাডুবি ঘটাতে তৎপর রয়েছেন। তাই এই বর্ণচোরা নিষ্ক্রিয় বিভেদকারী নেতৃবৃন্দের সাথে এখন থেকে চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের কোন সম্পর্ক নেই। এদের বিরুদ্ধে সংগঠনের সকলস্তরের নেতাকর্মীদের সতর্ক থেকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আহ্বান জানাই।

Leave a Reply