মুসলিম নামকরণে নিষেধাজ্ঞা চীনে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৬ এপ্রিল ২০১৭, বুধবার: এক গুচ্ছ মুসলিম নামের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করল কমিউনিস্টপন্থী চীন। দেশটির মুসলিম প্রধান জিনজিয়াং প্রদেশে ওই সব নামকরণগুলোর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে বলে একটি মানবাধিকার সংগঠন সূত্রে জানা গিয়েছে। নিষিদ্ধ তালিকায় থাকা কোনও নাম যদি সন্তানের নামকরণের জন্য কেউ বেছে নেন, তা হলে সেই শিশুই সমস্যায় পড়বে। কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সে ভর্তি হতে পারবে না। এমনকী কোনও সরকারি প্রকল্পের সুবিধাও মিলবে না। চীনা প্রশাসন এমন নির্দেশিকাই জারি করেছে বলে আন্তর্জাতিক একাধিক গণমাধ্যম জানায়।
মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ) চীন প্রশাসনের এই নতুন নিষেধাজ্ঞার খবর প্রকাশ করে। এইচআরডব্লিউ-এর প্রতিবেদনে বলা হয়, যে নামগুলো নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে, গোটা পৃথিবীতেই সেই নাম বা সেই শব্দগুলো মুসলিমদের মধ্যে বহুল প্রচলিত। কিন্তু ওই সব শব্দ কারও নাম হিসেবে ব্যবহৃত হলে তাদের মধ্যে ‘ধর্মীয় উগ্রতা’ বাড়বে বলে মনে করছে চীন।
চীনের কমিউনিস্ট সরকারের নিষিদ্ধ নামের তালিকায় রয়েছে- মুহাম্মদ, ইসলাম, কোরআন, মক্কা, মদিনা, হজ, জিহাদ, সাদ্দাম। মুসলিম অধ্যুষিত জিনজিয়াং প্রদেশে এসব নামকরণ চলবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে চীন সরকার। তালিকায় আরও অনেক নামই রয়েছে। জাতিগত সংখ্যালঘুদের জন্য চীনা কমিউনিস্ট পার্টির যে নিজস্ব নামকরণ বিধি রয়েছে, তার আওতায় এই নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে।
নিষেধাজ্ঞা অগ্রাহ্য করে কেউ যদি নিজের সন্তানের জন্য কোনও একটি নিষিদ্ধ নামই বেছে নেন, তা হলে সেই শিশুর ঠিকানা সংক্রান্ত রেজিস্ট্রেশন হবে না বলে প্রশাসন জানিয়ে দিয়েছে। আর ওই রেজিস্ট্রেশন না হলে সে কোনও স্কুলে ভর্তি হতে পারবে না। প্রাপ্য সরকারি সুযোগ-সুবিধা থেকেও বঞ্চিত হবে।
চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে উইগুর মুসলিমদের উপস্থিতি বিপুল সংখ্যায়। সেই সম্প্রদায়ের মধ্যে চীন বিরোধী কার্যকলাপ দিন দিন বাড়ছে। চীন থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার দাবিতে জিনজিয়াং-এ সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপও চলছে দীর্ঘ দিন ধরেই। সম্প্রতি উইগুরদের মধ্যে আইএসের প্রভাব বৃদ্ধির খবরও প্রকাশ্যে এসেছে। কোনও ঝুঁকি না নিয়ে বেজিং তাই আরও কঠোর ভাবে সন্ত্রাসের মোকাবিলা করতে চাইছে। নামকরণে নিষেধাজ্ঞাও তারই অংশ বলে মনে করা হচ্ছে। মুসলিম নামকরণে নিষেধাজ্ঞা চীনে
নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৬ এপ্রিল ২০১৭, বুধবার: এক গুচ্ছ মুসলিম নামের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করল কমিউনিস্টপন্থী চীন। দেশটির মুসলিম প্রধান জিনজিয়াং প্রদেশে ওই সব নামকরণগুলোর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে বলে একটি মানবাধিকার সংগঠন সূত্রে জানা গিয়েছে। নিষিদ্ধ তালিকায় থাকা কোনও নাম যদি সন্তানের নামকরণের জন্য কেউ বেছে নেন, তা হলে সেই শিশুই সমস্যায় পড়বে। কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সে ভর্তি হতে পারবে না। এমনকী কোনও সরকারি প্রকল্পের সুবিধাও মিলবে না। চীনা প্রশাসন এমন নির্দেশিকাই জারি করেছে বলে আন্তর্জাতিক একাধিক গণমাধ্যম জানায়।
মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ) চীন প্রশাসনের এই নতুন নিষেধাজ্ঞার খবর প্রকাশ করে। এইচআরডব্লিউ-এর প্রতিবেদনে বলা হয়, যে নামগুলো নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে, গোটা পৃথিবীতেই সেই নাম বা সেই শব্দগুলো মুসলিমদের মধ্যে বহুল প্রচলিত। কিন্তু ওই সব শব্দ কারও নাম হিসেবে ব্যবহৃত হলে তাদের মধ্যে ‘ধর্মীয় উগ্রতা’ বাড়বে বলে মনে করছে চীন।
চীনের কমিউনিস্ট সরকারের নিষিদ্ধ নামের তালিকায় রয়েছে- মুহাম্মদ, ইসলাম, কোরআন, মক্কা, মদিনা, হজ, জিহাদ, সাদ্দাম। মুসলিম অধ্যুষিত জিনজিয়াং প্রদেশে এসব নামকরণ চলবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে চীন সরকার। তালিকায় আরও অনেক নামই রয়েছে। জাতিগত সংখ্যালঘুদের জন্য চীনা কমিউনিস্ট পার্টির যে নিজস্ব নামকরণ বিধি রয়েছে, তার আওতায় এই নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে।
নিষেধাজ্ঞা অগ্রাহ্য করে কেউ যদি নিজের সন্তানের জন্য কোনও একটি নিষিদ্ধ নামই বেছে নেন, তা হলে সেই শিশুর ঠিকানা সংক্রান্ত রেজিস্ট্রেশন হবে না বলে প্রশাসন জানিয়ে দিয়েছে। আর ওই রেজিস্ট্রেশন না হলে সে কোনও স্কুলে ভর্তি হতে পারবে না। প্রাপ্য সরকারি সুযোগ-সুবিধা থেকেও বঞ্চিত হবে।
চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে উইগুর মুসলিমদের উপস্থিতি বিপুল সংখ্যায়। সেই সম্প্রদায়ের মধ্যে চীন বিরোধী কার্যকলাপ দিন দিন বাড়ছে। চীন থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার দাবিতে জিনজিয়াং-এ সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপও চলছে দীর্ঘ দিন ধরেই। সম্প্রতি উইগুরদের মধ্যে আইএসের প্রভাব বৃদ্ধির খবরও প্রকাশ্যে এসেছে। কোনও ঝুঁকি না নিয়ে বেজিং তাই আরও কঠোর ভাবে সন্ত্রাসের মোকাবিলা করতে চাইছে। নামকরণে নিষেধাজ্ঞাও তারই অংশ বলে মনে করা হচ্ছে।

Leave a Reply