ইরানের ওপর ট্রাম্প প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা শিথিল

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৯ এপ্রিল ২০১৭, বুধবার: ইরানের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা শিথিলের বিষয়টি পর্যালোচনা করা হবে বলে কংগ্রেসকে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন। মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে ২০১৫ সালে পারমাণবিক চুক্তির আওতায় এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল।
সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময় করা পারমাণবিক চুক্তির আওতায় ইরান তার প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে চলায় ওই নিষেধাজ্ঞা শিথিল করা হয়েছিল। ওই চুক্তি জয়েন্ট কমপ্রিহেনসিভ প্ল্যান অব অ্যাকশন নামে পরিচিত। টিলারসন এক চিঠিতে লিখেছেন, বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম ও পদ্ধতির মাধ্যমে ইরান এখনো সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের পৃষ্ঠপোষকতা করে যাচ্ছে।
প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের নেতৃত্বাধীন আন্তসংস্থাকে যৌথ সমন্বিত কর্মপরিকল্পনার পর্যালোচনা করতে নির্দেশ দিয়েছেন। ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা বজায় রাখার বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে কতটা গুরুত্বপূর্ণ, তা মূল্যায়ন করবে তারা।
চুক্তি অনুযায়ী ইরান প্রতিশ্রুতি রক্ষা করছে কি না, তা প্রতি ৯০ দিনে কংগ্রেসকে জানানোর বিধান রয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার ট্রাম্প প্রশাসন এ বিষয়ে প্রথমবারের মতো তথ্য-প্রমাণ দেয়।
ট্রাম্প বারবারই এ চুক্তির নিন্দা করে আসছেন। গত জানুয়ারিতে এক সাক্ষাৎকারে টাইমস অব লন্ডন ও বিল্ড পত্রিকাকে বলেন, এখন পর্যন্ত যত চুক্তি হয়েছে, তার মধ্যে এটি সবচেয়ে নিকৃষ্ট।
তবে চুক্তিটি ‘পুনর্বিবেচনা’র নিয়ে তাঁর কোনো পরিকল্পনা আছে কি না, সে বিষয়ে কিছু বলেননি। একই কথা তিনি নির্বাচনী প্রচারের সময়ই বলে গেছেন। ২০১৫ সালে ইরান, যুক্তরাষ্ট্র, চীন, রাশিয়া, ব্রিটেন, ফ্রান্স ও জার্মানির মধ্যে এ চুক্তি হয়।

Leave a Reply