ফটিকছড়ির ২ ইউপিতে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন

বরুণ কুমার আচার্য বলাই, ফটিকছড়ি, ১৭ এপ্রিল ২০১৭, সোমবার: চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার দুই ইউনিয়ন আব্দুল্লাহপুর ও ভূজপুরে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বড় ধরনের কোন প্রকার অপ্রিতীকর ঘটনা না ঘটলেও, আব্দুল্লাহপুরে ভোট গ্রহণের শুরুতে সকাল আটটার দিকে অস্ত্রধারী এক যুবলীগের নেতা কেন্দ্রের দিকে যেতে চাইলে মোহাম্মদ তৌকিরহাট এলাকায় পুলিশের চেক পোষ্ট দেখে পালানোর সময় পুলিশ তাকে ধাওয়া করে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করে।
ফটিকছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু ইউছুফ মিয়া জানান, গ্রেফতার হওয়া যুবকের নাম মো. ফারুক(৪০)। তার কাছ থেকে রিভলবার ও ছয় রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে ভোট কেন্দ্রে ত্রাস সৃষ্টি করতে অবৈধ অস্ত্র নিয়ে সে যাচ্ছিল। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।’
এদিকে গ্রেফতার হওয়া ফারুক নিজেকে যুবলীগের উপজেলার আহবায়ক কমিটির সদস্য বলে দাবী করে বলেন, আমি আগামীতে জাফত নগর ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হতে চেয়েছিলাম, তাই একটি পক্ষ আমাকে অস্ত্রটি সাময়িক রাখার নাম করে কৌশলে আমাকে ফাঁসিয়েছে।
সরেজমিনে আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়নের ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করে কোথাও কোন ধরনের অপ্রিতীকর ঘটনা দেখা যায়নি। এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হোসেন আলীর মৃত্যুতে উপ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। যেখানে আ.লীগের নৌকার প্রার্থী মো. অহিদুল আলম বিশাল ব্যবধানে দলের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের এস কে এম সেলিম উদ্দিনকে পরাজিত করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়নে বেসরকারীভাবে আওয়ামীলীগ প্রার্থী মোহাম্মদ অহিদুল আলম ১৯৩৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী এস কে এম সেলিম পেয়েছেন ১০৯৪ ভোট।
অপরদিকে ভূজপুর ইউনিয়ন পরিষদেও কোন ধরনের সহিংসতা কিংবা ভোট কেন্দ্র দখলছাড়া ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। দেশের তৃতীয় দফায় ভোট গ্রহণের সময় ও ইউনিয়নে ভোট গ্রহণের মাত্র একদিন পূর্বে সীমানা জটিলতায় আদালতের ভোট গ্রহণ স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে পূনরায় ভোট গ্রহণের তারিখ ছিল গতকাল। যেখানে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী ছিল সাতজন। ফলাফলের সর্বশেষ পাওয়া তথ্যমতে আ.লীগের নৌকার প্রার্থী ইব্রাহিম তালুকদার ৪,২৫৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী ত্বরিকত ফেডারেশনের মনোনীত প্রার্থী ফুল মার্কা ৪,২৫১ ভোট পেয়েছেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) দীপক কুমার রায় জানান, ‘প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে বাড়তি নিরাপত্তার জন্য আবদুল¬াহপুর ও ভূজপুরে ২ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট, পুলিশ ও আনসার সদস্য মিলে ২৭ জন সদস্য দায়িত্ব পালন করেছেন। আর সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে নির্বাচনীয় এলাকায় র‌্যাব, পুলিশ, বিজিবির সদস্যরা নিয়মিত টহল ছিল।’

Leave a Reply