উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক শক্তি ব্যবহারের প্রয়োজন নেই: যুক্তরাষ্ট্র

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৭ এপ্রিল ২০১৭, সোমবার: যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা লেফটেন্যান্ট জেনারেল এইচ আর ম্যাকমাস্টার বলেছেন, উত্তর কোরিয়াকে সামলাতে সব ধরনের উপায় বিবেচনা করা হচ্ছে, এসব উপায় নিয়ে চিন্তা ও বিশ্লেষণের মাধ্যমে পরিশোধন করে তা আরো উন্নত করা হচ্ছে। উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক কর্মসূচি নিয়ে এবিসি’র এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন। তবে যুক্তরাষ্ট্র আশা করছে যে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক শক্তি ব্যবহারের প্রয়োজন হবে না। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার দেশ ও মিত্রদের পরিস্কার করেছেন উত্তর কোরিয়াকে পারমাণবিক শক্তি ব্যবহারের সুযোগ দেওয়ার ঝুঁকি তিনি নেবেন না। এজন্যে মিত্র সহ চীনের সঙ্গেও কাজ করছে যুক্তরাষ্ট্র। যাতে এ সমস্যার সমাধানে আরো সুযোগ কাজে লাগানো যায়।
জেনারেল ম্যাকমাস্টার বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদ পেন্টাগন ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ছাড়াও গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর সঙ্গে উত্তর কোরিয়া সমস্যা নিয়ে কাজ করছে। উত্তর কোরিয়ার অস্থিতিশীল আচরণ চলতে থাকলে তা মোকাবেলা করা হবে। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদেশগুলো একমত যে উত্তর কোরিয়া নিয়ে যে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে তা মনস্তাত্ত্বিক এবং এ সমস্যা নিরসনে সব ধরনের উপায় কাজে লাগানো হবে। এমনকি প্রয়োজনে সামরিক শক্তিকেও শান্তিপূর্ণ উপায়ে ব্যবহার করা হতে পারে।
যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার নিরাপত্তা কর্মকর্তারা উত্তর কোরিয়ার সর্বশেষ ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ ব্যর্থ হওয়ার এক ঘন্টা পর ম্যাকমাস্টার এবিসিকে এসব কথা বলেন। হোয়াইট হাউজের কর্মকর্তারা উত্তর কোরিয়াকে দুর্বৃত্ত অভিহিত করে এমাসের শুরুতে বলেছিলেন, সময় ফুরিয়ে যাচ্ছে এবং সকল সুযোগ টেবিলের উপর রয়েছে ব্যবহারের অপেক্ষায়।
তবে উত্তর কোরিয়ার সর্বশেষ ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের আগে তা বিস্ফোরণ হওয়ায় বিষয়টিকে ব্যর্থতার পুনরাবৃত্তি মনে করছে যুক্তরাষ্ট্র। এ প্রসঙ্গে ম্যাকমাস্টার বলছেন, আমাদের হাতে একাধিক সুযোগ রয়েছে, সামরিক, কূটনৈতিক, অর্থনৈতিক ও অন্যান্য। বিকল্প বেশকিছু সরঞ্জাম রয়েছে যা থেকে যেটি ইচ্ছা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তা ব্যবহার করতে পারেন। উত্তর কোরিয়া যদি সময় ও শক্তি খরচ করার পর ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপে ব্যর্থ হয় তাহলে দেশটির বিরুদ্ধে আমাদের কোনো শক্তি বা সম্পদ ব্যবহারের প্রয়োজন নেই।
এদিকে উত্তর কোরিয়ার ঘনিষ্ট মিত্র চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করছে। চীনের প্রেসিডেন্ট সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র সফর করেছেন। তারপরই বেইজিং পিয়ংইয়ংকে পারমাণবিক কর্মসূচির ব্যাপারে সাবধান করেছে। চীনের লক্ষাধিক সেনা উত্তর কোরিয়া সীমান্তে মোতায়েন করা হয়েছে। চীন উত্তর কোরিয়াকে সফলভাবে নিবৃত্ত করতে পারছে কি না সেদিকে যুক্তরাষ্ট্র নজর রাখছে বলে জানান জেনারেল ম্যাকমাস্টার। সিএনএন

Leave a Reply