যাত্রীবান্ধব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে যাত্রী সাধারণকে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করতে হবে: যাত্রী কল্যাণ সমিতি

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৫ এপ্রিল ২০১৭, শনিবার: রাজধানীতে যাত্রী হয়রানী ও ভাড়া নৈরাজ্য বন্ধে ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি ঘোষিত ১৬ এপ্রিল থেকে নগরীতে চলাচলরত সিটিং সার্ভিস, স্পেশাল সার্ভিস, গেইটলক সার্ভিসের নামে গণপরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় এবং পিক আওয়ারে দরজা বন্ধ করে বাস চলাচল বন্ধের মত যাত্রী বান্ধব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে যাত্রী সাধারণকে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করার অনুরোধ জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।
আজ ১৫ এপ্রিল গনমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে সংগঠনের মহাসচিব মো.মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, যুগান্তকারী এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হলে যাত্রীদের দীর্ঘদিনের এই দুর্দশা, হয়রানী ও ভাড়া নৈরাজ্য লাঘব হবে। যাত্রী সেবারমান বাড়বে, মাঝপথের যাত্রীদের ঘন্টার পর ঘন্টার রাস্তায় দাড়িঁয়ে থাকার বিড়ম্বনার অবসান হবে।
বিবৃতিতে জানানো হয়, ঢাকা মহানগরী ও আশেপাশের জেলায় বড় বাসের (ব সিরিজ) ভাড়া প্রতি কিলোমিটার ১ টাকা ৭০ পয়সা এবং মিনিবাসের (জ সিরিজ) ভাড়া ১ টাকা ৬০ পয়সা। বড় বাসের সর্বনিন্ম ভাড়া ৩ কিলোমিটার পর্যন্ত ৭ টাকা, মিনি বাসের ৩ কিলোমিটার পর্যন্ত সর্বনিন্ম ভাড়া ৫ টাকা। উল্লেখিত হিসাবে কিলোমিটার প্রতি ভাড়ার চার্ট অনুযায়ী ভাড়া প্রদানে জন্য যাত্রী সাধারণকে অনুরোধ জানানো হয়। বাসে ভাড়ার তালিকা পাওয়া না গেলে বিআরটিএ ওয়েব সাইটে অথবা যাত্রী কল্যাণ সমিতির কেন্দ্রিয় কার্যালয়ে ফোন নং ৯৫৬৮৩৯৯ থেকে স্ব-স্ব রুটের ভাড়া তালিকা সংগ্রহ করার অনুরোধ জানানো হয়। বিবৃতিতে কতিপয় মুনাফালোভী অসাধু পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা যাত্রী বান্ধব এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির অপপ্রয়াস চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করে বলা হয়, তারা তাদের সিটিং বাস গুলো লোকাল বাস হিসেবে চলালেও সিটিং সার্ভিসের মত বাড়তি ভাড়া আদায়, যাত্রী বোঝাই হওয়ার পরও প্রতিটি বাস স্টপেজে, যেখানে সেখানে ৩/৫ মিনিট করে দাঁড়িয়ে যাত্রী তোলার হাঁক-ডাক করে যাত্রী সাধারণকে হয়রানী ও অধর্য্য করে আগের মত সিটিং এ যেতে বাধ্য করবে বলে শংকা প্রকাশ করে সংগঠনটি। এসব বিষয়ে যাত্রী সাধারণকে সজাগ ও সচেতন থাকার আহবান জানান সংগঠনটি।

Leave a Reply