সিরিয়ায় মার্কিন হামলার বিরুদ্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে বিক্ষোভ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৮ এপ্রিল ২০১৭, শনিবার: প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আদেশে সিরিয়ায় মার্কিন হামলার বিরুদ্ধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে বিক্ষোভ হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক, ফ্লোরিডা, ফিলাডেলফিয়া ও ওয়াশিংটনসহ অন্তত ১২টি নগরীতে বিক্ষোভ হয়েছে। বিক্ষোভকারীরা ট্রাম্পের বিতর্কিত নির্দেশের বিরুদ্ধে ও সিরিয়ার মানুষের প্রতি সংহতি ঘোষণা করে শ্লোগান দিয়েছে।
নিউইয়র্কে বিক্ষোভকারীদের হাতে যে সব প্ল্যাকার্ড ছিল তাতে লেখা ছিল, ‘বোমা ফেলে সিরিয়ার মানুষকে রক্ষা করা যায় না বরং এতে তারা নিহত হয়। মানবিকতার দিয়ে বলছি ফ্যাসিস্ট যুক্তরাষ্ট্রকে আমরা মানবো না।’
এছাড়া, ওয়াশিংটনের যুদ্ধবাজ নীতিকে তীব্র সমালোচনা করে তারা বলেন, সিরিয়ায় বোমা ফেলে সংঘাত কমবে না বরং আরো বাড়বে। বিক্ষোভকারীদের অনেকেই সিরিয়বাসীর ভবিষ্যৎ নিয়ে গভীর উদ্বেগও প্রকাশ করেন।
নিউ ইয়র্ক নগরী থেকে অন্তত দুই বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং ফ্লোরিডার জ্যাকসনভ্যালি থেকে আটক হয়েছে চার জন। আগামীকাল যুক্তরাষ্ট্রের অন্তত ৫০টি নগরীতে যুদ্ধবিরোধী বিক্ষোভের পরিকল্পনা করা হয়েছে।
এদিকে, লন্ডনে ব্রিটিশ যুদ্ধ বিরোধী গোষ্ঠী স্টপ দ্যা ওয়ার কোয়ালিশন বিক্ষোভ করেছে। ওয়েস্টমিনিস্টার সড়কে এ বিক্ষোভ করা হয়েছে। ফেসবুকে দেয়া স্ট্যাটাসে এ গোষ্ঠী কঠোর ভাষায় সিরিয়ায় ট্রাম্পের বোমা হামলার নিন্দা করেছে।
গতকাল শুক্রবার সিরিয়ার বিমানঘাঁটিতে অর্ধ শতাধিকের বেশি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘‘মঙ্গলবারের হামলার জেরে আমি এই মিসাইল হামলার নির্দেশ দিয়েছি। সকল সভ্য জাতির উচিত সিরিয়ায় সংঘর্ষ বন্ধে সহায়তা করা।’
বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত ইদলিব শহরে রাসায়নিক হামলার অভিযোগে সিরিয়ায় ৫০টি টমাহক ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।ওয়াশিংটন বিশ্বাস করে সিরিয়ার সায়ারাত বিমানঘাঁটি থেকে ওই দিন রাসায়নিক হামলা চালানো হয়েছিল। সেজন্য ওই বিমানঘাঁটি লক্ষ্য করে মিসাইল ছোড়া হয়েছে।

Leave a Reply