স্বকীয়তা ও আত্মপ্রত্যয়ের পথে এই প্রতিপাদ্য নিয়ে চট্টগ্রামে ১০ম বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস’ পালিত

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২ এপ্রিল ২০১৭, রবিবার: স্বকীয়তা ও আত্মপ্রত্যয়ের পথে এই প্রতিপাদ্য নিয়ে সারাদেশের মত চট্টগ্রামে ১০ম বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবস পালিত হয়। জেলা প্রশাসন ও সমাজসেবা অধিদফতর চট্টগ্রাম এর আয়োজনে প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্যকেন্দ্র এবং জেলায় অটিজম/প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের কল্যাণে নিয়োজিত বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনসমূহের সহযোগিতায় দিবসটি পালনের কর্মসূচির মধ্যে বণার্ঢ্য শোভাযাত্রা, অটিজম শিশুদের অংশগ্রহণে চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা এবং অটিষ্টিক শিশুদের সমন্বয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। দিবসটি পালন উপলক্ষে ২ এপ্রিল’১৭ রবিবার  সকাল ১০.৩০ মিনিটে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী চট্টগ্রাম মিলনায়তনে সমজাসেবা অধিদফতর চট্টগ্রামের উপপরিচালক বন্দনা দাশের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক জনাব মো. সামসুল আরেফিন। জেলা সমাজসেবা কার্যালয় চট্টগ্রামের সহকারী পরিচালক ওমর ফারুক এর সঞ্চালনায় সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলোওয়াত করেন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের ছাত্র হাফেজ মো: সিয়াম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা সমাজসেবা কার্যালয় চট্টগ্রামের উপপরিচালক বন্দনা দাশ। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জাতীয় সমাজকল্যাণ পরিষদের সদস্য এস এম মোরশেদ হোসেন, নিউরো ডেভলাপমেন্ট কমিটির কেন্দ্রীয় সদস্য শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ বাসনা মুহুরী, নারীনেত্রী জেসমিন সুলতানা পারু, জেলা শিশু সংগঠক নাসরিন নার্গিস সুলতানা, পিআইডি’র সিনিয়র তথ্য অফিসার মো: আজিজুল হক নিউটন, লায়ন মনজুর মোরশেদ ফিরোজ, ফেয়ার অটিজমের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল হক প্রমুখ। বণার্ঢ্য শোভাযাত্রা ও আলোচনা অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন ডা: আজিজুর রহমান, সমাজসেবা অধিদফতর চট্টগ্রামে কর্মরত, কর্মকর্তা/কর্মচারীসহ বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধি এবং অটিষ্টিক শিশু ও তাদের অভিভাবকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সভায় প্রধান অতিথি বলেন, বর্তমান সরকার অটিজম শিশুদের কল্যাণে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। অটিজম শিশুরা সমাজের বোঝা নয়, তাদেরকে সমাজের মুলধারায় ফিরিয়ে আনাই হচ্ছে দিবসের তাৎপর্য্য। বর্তমান সরকার প্রধান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তনয়া সায়মা ওয়াজেদ হোসেন অটিজমে আক্রান্ত শিশুদের কল্যাণে কাজ করে বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে পরিচিতি করেছেন। এটা আমাদের সকলের গর্ব। জেলা প্রশাসক অটিজম আক্রান্ত শিশুদের কল্যাণে সরকারের পাশাপশি সমাজের বিত্তশালীদের সহযোগিতার জন্য এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে অটিজম শিশুদের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতায় ক ও খ গ্রুপের ১ম, ২য় ও ৩য় স্থান অধিকারীদের মধ্যে পুরস্কার প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠান শেষে অটিষ্টিক শিশুদের অংশগ্রহণে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের পূর্বে জেলা শিল্পকলা একাডেমী হতে এক বণার্ঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে বাংলাদেশ শিশু একাডেমী গিয়ে শেষ হয়। বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার শুভ উদ্বোধন সহ নেতৃত্ব দেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মো: সামসুল আরেফিন। দিবসটি পালন উপলক্ষে সমাজসেবা অধিদফতরাধীন বিভিন্ন কার্যালয় সহ সরকারি ও বেসরকারি ভবন ও শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ৩ দিনব্যাপী নীল বাতি দ্বারা প্রজ্জ্বলিত করা হয়।

Leave a Reply