মিয়ানমারের নেতার পদ থেকে সরে যাবো: অং সান সু চি

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২ এপ্রিল ২০১৭, রবিবার: জনগণ চাইলে মিয়ানমারের নেতার পদ থেকে সরে যাবেন বলে জানিয়েছেন অং সান সু চি। এ ছাড়া মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ তার দেশে জাতিসঙ্ঘ যে তদন্ত শুরু করতে যাচ্ছে, তাও প্রত্যাখ্যান করেছেন দেশটির এই স্টেট কাউন্সিলর। মিয়ানমারের একটি রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে স্টেট অব ইউনিয়ন ভাষণ দেয়ার সময় নিজের গত এক বছরের দায়িত্ব পালন নিয়ে কথা বলেন সু চি। এ সময় তিনি মন্তব্য করেন, তার ‘সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা’ যদি যথেষ্ট না হয়, তাহলে তিনি পদত্যাগ করবেন।
গণতন্ত্রপন্থী নেত্রী বলে পরিচিত মিয়ানমারের এই নেতা বলেন, ‘আমি শুরু থেকেই বলেছি যে সর্বোচ্চ চেষ্টা করব। জনগণ যদি মনে করে, আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা তাদের জন্য যথেষ্ট নয় এবং আমাদের চেয়ে ভালো কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান থাকে তবে পদত্যাগ করতে আমরা প্রস্তুত।’
তিনি আরো বলেন, ‘শান্তিপ্রক্রিয়া এত সহজ নয়, তবে আমাদের অনেক আকাক্সা আছে। শান্তির পথে আমরা কিছু দূর এগিয়ে যাই, আবার কিছুণের জন্য থামি অথবা একটু পিছিয়ে যাই। কিন্তু আমরা স্পষ্টভাবেই আমাদের ল্য সম্পর্কে সচেতন এবং তা অর্জনে এগিয়ে যাবো।’ রোহিঙ্গা মুসলিম সম্প্রদায়ের ওপর মিয়ানমারের সরকারি বাহিনীর সহিংসতা ও হত্যাযজ্ঞের ঘটনা তদন্তে দেশটিতে জাতিসঙ্ঘ যে মিশন পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তার সমালোচনাও করেছেন সু চি।
গত সপ্তাহে জাতিসঙ্ঘ সমর্থিত মানবাধিকারবিষয়ক সংস্থা হিউম্যান রাইটস কাউন্সিল রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতনের অভিযোগ তদন্তে একটি তদন্তকারী দল পাঠানোর ঘোষণা দেয়। এর সমালোচনা করে সু চি বলেন, ‘আমাদের দেশের পরিস্থিতির সাথে সঙ্গতিপূর্ণ না হওয়ায় আমরা এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করছি না। এটা জাতিসঙ্ঘের প্রতি অসম্মান নয়।’

Leave a Reply