চট্টগ্রাম ভূমি সেবা সপ্তাহ ও ভূমি উন্নয়ন কর মেলার উদ্বোধন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১ এপ্রিল ২০১৭, শনিবার: চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. সামসুল আরেফিন (যুগ্ম সচিব) বলেছেন, এদেশে মানুষ যত ধরনের হয়রানি বা ভোগান্তির শিকার হচ্ছে তার অধিকাংশই ভূমি নিয়ে। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে জনগণের হয়রানি লাঘবে ভূমি সংক্রান্ত সকল সেবা ডিজিটালাইজড করেছেন। দুর্নীতি কমিয়ে এনে জনগণের দৌঁড়গোড়ায় সরকারি সেবা আরো কিভাবে সহজে পৌঁছে দিতে পারে সে লক্ষ্যে সরকারের মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। ফলে মানুষ এখন ঘরে বসেই সম্পূর্ন অনলাইনে জমির নামজারিসহ প্রয়োজনীয় সেবা ভোগ করছে। সরকারের ভূমি ডিজিটালাইজড ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম অব্যাহত থাকলে যে কোন লোক অতি সহজেই তার ভূমির পর্চা/ খতিয়ান সংগ্রহ, ভূমির দলিল যাচাই ও ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ করতে পারবে। ভূমি সংক্রান্ত সেবা নিতে গিয়ে কোন ভূমির মালিক যাতে হয়রানির শিকার না হয় সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখা হয়েছে। আমাদের সেবা পেয়ে সন্তুষ্ট-অসন্তুষ্ট দু’টিই জানাবেন এবং পরামর্শ দেবেন। তাহলে ভূমি সংক্রান্ত সেবার উন্নয়নে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে পারবো। তবে মানুষের হয়রানি রোধসহ ভূমি অফিসকে দালালমুক্ত করা হবে এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সেবার মনমানসিকতা নিয়ে কাজ করতে হবে। আজ ১ এপ্রিল ২০১৭ ইং শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় চট্টগ্রাম  নগরীর চট্টেশ^রী রোডস্থ সদর সার্কেল ভূমি অফিস প্রাঙ্গণে মহানগরীর সদর, আগ্রাবাদ ও চান্দগাঁও সার্কেল ভূমি অফিস আয়োজিত ভূমি সেবা সপ্তাহ ও ভূমি উন্নয়ন কর মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, ভূমির নামজারী আবেদন পাওয়ার পর প্রথমে দলিলসহ সংশ্লিষ্ট ডকুমেন্ট যাচাই করে তা সঠিক থাকলে বিষয়টির ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়কে নোটিশ দিয়ে জানাতে হবে এবং আবেদনকারী বা তার প্রতিনিধি তহসিলদারের কাছে নয়, সরাসরি সহকারি কমিশনারের (ভূমি) কাছে গিয়ে মূল ডকুমেন্টগুলো উপস্থাপন করবে। এরপর প্রয়োজনে সহকারী কমিশনারের নির্দেশে ভূমি সহকারী বা তহসিলদার নিজে গিয়ে নামজারীর জন্য আবেদনকৃত ভূমি সরেজমিনে পরিদর্শন করে আসবে। সকল প্রকার দলিলপত্র সঠিক থাকলে নগরীতে ৬০ দিন ও মফস্বল এলাকায় ৪৫ দিনের মধ্যে নামজারীর কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে। তামিলের বিষয়ে সহকারী কমিশনারকে মূখ্য ভূমিকা পালন করতে হবে। ভূমি সংক্রান্ত বিষয়ে মানুষকে ভোগান্তিতে না ফেলে প্রত্যেক কর্মকর্তা-কর্মচারীকে স্বচ্ছতা ও দক্ষতার সাথে কাজ করে যেতে হবে।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুল জলিলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ভূমি সেবাসপ্তাহ ও ভূমি উন্নয়ন কর মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. মাসুকুর রহমান সিকদার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সদর সার্কেল ভূমি অফিসের সহকারী কমিশনার আছিয়া খাতুন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চান্দগাঁও সার্কেল ভূমি অফিসের সহকারী কমিশনার হাবিবুল হাসান ও আগ্রাবাদ সার্কেল ভূমি অফিসের সহকারী কমিশনার মাহমুদ উল্লাহ মারুফ। অনুষ্ঠান শেষে বেলুন উড়িয়ে ভূমি সেবা সপ্তাহ (১-৭ এপ্রিল) ও ভূমি উন্নয়ন কর মেলার উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক। ভূমি সেবা সপ্তাহের এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে ‘জনসেবায় জনপ্রশাসন, সেবার প্রত্যয়ে ভূমি সেবালয়’। অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসনে কর্মরত সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ, কানুনগো, নাজির, ভূমি সহকারী, ভূমি উপ-সহকারী ও ভূমি সংশ্লিষ্ট কার্যালয়ের কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply