আজকের শিক্ষার্থীদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হলে সকলকে সচেতন হতে হবে: দিদারুল আলম এমপি

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৭, সোমবার: চট্টগ্রাম ৪ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোহাম্মদ দিদারুল আলম এম.পি বলেন, আজকের শিক্ষার্থীদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হলে সকলকে সচেতন হতে হবে। পাহাড়াতলী গালর্স স্কুল এন্ড কলেজের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডেও উপ-বিদ্যালয় পরিদর্শক মো. আবুল মনছুর ভূঁইয়া বলেন, শিক্ষার্থীদের পুথিগত বিদ্যার সাথে শারীরিক ও মানসিক বিকাশে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক চর্চাও পারদর্শি হতে হবে, চট্টগ্রাম জেলার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ মমিনুল রশিদ রুমি বলেন, শিক্ষার্থীদের আদর্শিক নৈতিকতাবোধ সম্পন্ন মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারলে দেশ ও জাতির কল্যাণে উপকৃত হবে। আকবর শাহ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আলমগীর বলেন, বিদ্যালয়ে যাওয়ার নাম করে শিক্ষার্থীরা যাতে পড়ালেখার ফাকি না দিয়ে যাতে পড়ালেখায় মনোযোগী হয় সেদিকে শিক্ষক ও অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে। অনুষ্ঠানের সভাপতি ও প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা সভাপতি এবং ৯নং উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহাম্মদ জহুরুল আলম জসিম বলেন, কিছু কিছু অসেচতন অভিভাবকের কারণে বর্তমানে শিক্ষার্থীরা ব্যাপক হারে মোবাইল ও ইন্টানেট ব্যবহারের কারণে পড়ালেখায় অমনোযোগি হয়ে পড়ছে। এজন্য কোন শিক্ষার্থী যদি বিদ্যালয় চলাকালীন মোবাইল ব্যবহার করে সেসব শিক্ষার্থীদেরকে বহিস্কার করতে কর্তৃপক্ষ যে কোন সিদ্ধান্ত নিতে প্রস্তুত। অদ্য সকাল ১০টায় বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ মো. জাহাঙ্গীর আলমের স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে সূচিত অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠান পরিচালনা পরিষদের সদস্য মো. ওমর ফারুক সুমন মো. আবুল কাশেম, মোহাম্মদ আলী, মো. কামাল উদ্দিন প্রমুখ। অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় সংগীত গেয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসের কর্মসূচী উদ্বোধন করা হয়। অনুষ্ঠানে শিক্ষার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখার জন্য অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথিকে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে সম্মাননা প্রদান ও বিদ্যালয় অবকাঠামো উন্নয়ন ও ৯নং উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ডের ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ডের মাধ্যমে সমাজসেবায় বিশেষ অবদান রাখায় প্রতিষ্ঠানের সভাপতি ও ৯নং উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. জহুরুল আলম জসিমকে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও শিক্ষক পরিষদের পক্ষ থেকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ ৫০টি ইভেন্টে ১৫৭জন বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করেন।

Leave a Reply