৩০ মার্চ কুমিল্লা সিটি ও সুনামগঞ্জ-২ আসনে উপনির্বাচন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৭, শনিবার: কুমিল্লা সিটি করপোরেশন এবং সুনামগঞ্জ-২ (দিরাই-শাল্লা) আসনের উপনির্বাচনে মনোনয়ন চূড়ান্ত করতে বৈঠকে বসতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগের সংসদীয় বোর্ড ও স্থানীয় সরকার নির্বাচন মনোনয়ন বোর্ড। আগামীকাল রবিবার রাত আটটায় গণভবনে এই সভা হবে বলে দলের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।
আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সংশ্লিষ্ট সকলকে যথাসময়ে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।
আগামী ৩০ মার্চ কুমিল্লা সিটি ও সুনামগঞ্জ-২ আসনে উপনির্বাচনে ভোট হবে। ২০১১ সালের নির্বাচনের পর গঠিত কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়াদ শেষ হয়েছে বেশ কিছুদিন আগে। সীমানা সংক্রান্ত জটিলতায় সেখানে ভোট হয়নি। তবে সেই জটিলতার অবসান হওয়ার পর তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।
আর সুনামগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের মৃত্যুতে আসনটি ফাঁকা হয়। কুমিল্লা সিটি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার দিন এই সংসদীয় আসনেও ভোটের ঘোষণা আসে।
গত শুক্রবার থেকে কুমিল্লায় মেয়র পদে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের আবেদন এবং সুনামগঞ্জে নির্বাচনে আগ্রহীদের মধ্যে মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করে আওয়ামী লীগ। প্রথম দিন কুমিল্লায় মেয়র পদে নৌকা প্রতীক চেয়ে আবেদন করেন ক্ষমতাসীন দলের পাঁচ নেতা। আর সুনামগঞ্জ উপনির্বাচনে প্রার্থী হতে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন চার জন।
কুমিল্লায় সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে যারা আবেদন করেছেন তাদের মধ্যে আছেন প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা আফজাল খানের মেয়ে আঞ্জুম সুলতানা সীমা, কুমিল্লা জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক ওমর ফারুক, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা নুর উর রহমান মাহমুদ তানিম। এ ছাড়া কুমিল্লা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কবিরুল ইসলাম শিকদার, আফজাল খানের ছেলে মাসুদ পারভেজ খান ইমরান, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি আরফানুল হক রিফাত ও কামাল চৌধুরী নির্বাচন করতে আগ্রহী।
আর সুনামগঞ্জ-২ আসনের জন্য যারা মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন তাদের মধ্যে আছেন প্রয়াত নেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের স্ত্রী জয়া সেনগুপ্ত, যুক্তরাজ্য শ্রমিক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শামসুল হক চৌধুরী, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক শামসুল ইসলাম ।
আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সংসদীয় আসনে মনোনয়ন চূড়ান্ত করে দলের সংসদীয় বোর্ড। আর স্থানীয় সরকার নির্বাচনের মনোনয়ন চূড়ান্ত করে স্থানীয় সরকার নির্বাচন মনোনয়ন বোর্ড। দুটি বোর্ডেরই সভাপতি আওয়ামী লীগ প্রধান শেখ হাসিনা।

Leave a Reply