রোজা রেখে অগ্ন্যাশয়ের সক্ষমতা ফিরিয়ে আনা সম্ভব

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৭, শনিবার: সম্প্রতি একদল মার্কিন বিজ্ঞানী তাদের গবেষণায় প্রমাণ পেয়েছেন যে, উপবাস করে কিংবো রোজা রেখে অর্থাৎ একটি নির্দিষ্ট ডায়েট বা খাদ্যতালিকা অনুসরণ করলে অগ্ন্যাশয়ের সক্ষমতা ফিরিয়ে আনা সম্ভব। ডায়াবেটিসের চিকিৎসায় এই গবেষণার ফলকে খুবই আশাপ্রদ বলে মনে করা হচ্ছে।ইঁদুরের ওপর এই ‘ফাস্টিং ডায়েট’ এর পরীক্ষা চালান বিজ্ঞানীরা।
এতে দেখা যায়, ইঁদুরকে উপবাসে রেখে একটি নির্দিষ্ট সময় পর খাবার দেয়া হলে, সেটা ইঁদুরের অগ্ন্যাশয়ে একধরণের ‘বেটা সেল’ পুনরুৎপাদনে সাহায্য করে। রক্তপ্রবাহে যখন চিনি বেড়ে যায়, তখন অগ্ন্যাশয়ের এই ‘বেটা সেল’ তা সনাক্ত করতে পারে এবং ইনসুলিন নির্গতের মাধ্যমে তা প্রশমিত করে।
গবেষক দলের একজন ইউনিভার্সিটি অব সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়ার ড: ভ্যাল্টের লোঙ্গো বলেন, “গবেষণা থেকে আমরা যে উপসংহারে পৌঁছেছি, তা হলো, ইঁদুরকে যখন উপবাসে রেখে ক্লান্ত করা হচ্ছে এবং তারপর আবার খাবার দেয়া হচ্ছে, সেটি তাদের অগ্ন্যাশয়কে পুনরায় কর্মক্ষম করে তুলছে। অগ্ন্যাশয়ের সেলগুলো এর ফলে এই অঙ্গের অকেজো অংশকে আবার সচল করে তুলছে।”
বিজ্ঞানীরা জানান, ‘টাইপ-ওয়ান’ ও ‘টাইপ টু’ ডায়াবেটিসে যারা ভুগছেন, তাদের উভয়ের জন্য এই পরীক্ষা সুফল বয়ে আনতে পারে। মূলত ভেগান বা কট্টর নিরামিষাশীদের অনুসরণ করা ডায়েট থেকে ইঁদুরের ওপর পরীক্ষাটি চালানো হয়েছে। ভেগানরা এই ডায়েট অনুসরণ করে প্রতিদিন আটশো থেকে এগারোশো ক্যালরির বেশি খাবার খান না। তাদের খাবার তালিকায় থাকে মূলত নানা ধরণের বাদাম এবং স্যুপ। কিন্তু একটা নির্দিষ্ট সময়ের পর আবার ২৫ দিন ধরে যত খুশি খেতে পারেন। এটা অনেকটা লম্বা সময় প্রায় অর্ধাহারে থেকে আবার একটা সময়ে বেশ ভুরি-ভোজ করার মতো ব্যাপার।
লোঙ্গো বলেন, চিকিৎসা বিজ্ঞানে এই গবেষণার ফলের বিরাট তাৎপর্য আছে। বিরাট সম্ভাবনা আছে। কারণ আমরা ইঁদুরের ওপর এই গবেষণায় দেখাতে পেয়েছি যে ডায়েট করে ডায়াবেটিসের লক্ষণ সারিয়ে তোলা সম্ভব। এই একই ডায়েটে মানুষের ওপর পরীক্ষা করেও ব্লাড সুগার লেভেল কমিয়ে আনা যায় বলে প্রমাণিত হয়েছে।
তবে এখনই তাড়াহুড়া করে এই ডায়েট পরীক্ষা না করার জন্য লোঙ্গো সকলকে সতর্ক করে দিয়েছেন। তিনি বলেন, সঠিক চিকিৎসা প্রণালী অনুসরণ না করে এই ডায়েট করতে গিয়ে অনেকে তাদের স্বাস্থ্যের জন্য বিপদ ডেকে আনতে পারেন।
ডায়াবেটিস ইউকে’র ড: এমিলি বার্নস বলেছন, এটা খুবই চমৎকার খবর। কিন্তু মানুষের ক্ষেত্রে এই ফল কতোটা পাওয়া যাবে সেটা আমাদের দেখতে হবে।

Leave a Reply