সাতকানিয়ায় দুই গ্রুপ মুক্তিযোদ্ধার মধ্যে দ্বন্দ্ব

সাতকানিয়া প্রতিনিধি, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৭, বৃহস্পতিবার: সাতকানিয়ায় দীর্ঘদিন ধরে মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। এক পক্ষ অপর পক্ষকে ভূয়া বললে ও তা কোন কাজে আসছে না। কারণ প্রতি সরকার ক্ষমতায় আসার পর মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা প্রণয়ন করে। এতে যে সরকার ক্ষমতায় থাকে সে সরকারের মানুষ মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় নাম অর্ন্তভুক্ত করার সুযোগ পায়। কিন্তু সরকারের নির্দেশনামত দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা তালিকা প্রণয়ন করে না বলে সূত্রে প্রকাশ। দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা ফায়দা লুটে অমুক্তিযোদ্ধাদের মুক্তিযোদ্ধা বানিয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে তালিকা প্রণয়ন করে। প্রেরিত তালিকা অনুযায়ী মন্ত্রণালয় অনুমোদন দেয়। জানা যায় সাতকানিয়ায় যেসব মুক্তিযোদ্ধা রয়েছে তাদের মধ্যে সকলের মুক্তিবানীতে নাম নাই। প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের সকল গ্রেজেটে নাম অর্ন্তভুক্ত থাকার কথা। যারা টাকার বিনিময়ে মুক্তিযোদ্ধা সেজেছে তাদের সব গ্রেজেটে নাম লিপিবদ্ধ নেই। ফলে তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব লেগে আছে। একে অপরকে ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা বলে ঘুরে বেড়ায়। এদিকে সাতকানিয়ায় স্বাধীনতা বিরোধী লোক ও এখন মুক্তিযোদ্ধা সেজে দলাদলিতে লিপ্ত রয়েছে। আগামী শনিবার সাতকানিয়ায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই এর দিন ধার্য ছিল। ফলে এলাকার স্বাধীনতাকামী মানুষের প্রত্যাশা মুক্তিযোদ্ধাদের সঠিক তালিকা প্রণয়ন করে ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাদের বাদ দেয়া। এখন বিধি বাম হয়ে দাঁড়িয়েছে । জানা যায় মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাইয়ের বিপক্ষে জনৈক ব্যক্তি হাইকোর্টে রিট করেন। আদালত তিন মাসের জন্য যাচাই বাছাই স্থগিত করেন বলে জানা গেছে। সূত্রমতে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারের বিধি মোতাবেক যাচাই বাছাই কমিটিতে থাকার নিয়ম নেই। এ ইস্যুতে রিটটি করা হয়েছে। তবে হাইকোর্টের রিটের কপি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পায়নি বলে জানান।

Leave a Reply