সাতকানিয়ায় সন্ত্রাসীদের অত্যাচারে অতিষ্ট জনগণ

সাতকানিয়া প্রতিনিধি: সাতকানিয়া উপজেলার বাজালিয়ার মাহালিয়ায় কতিপয় ভূমিদস্যু চোরাকারবারী রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী ও ডাকাতের রাম রাজত্ব চলে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসব চিহ্নিত 1অপরাধীরা জমি পাহাড় দখল, গাছ পাচার রোহিঙ্গাদের পূনর্বাসন করে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়া হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। তারা নানা অপরাধমূলক কাজ করে এলাকায় হাল জগতের শিরোমনি হয়ে দাড়িঁয়েছে। যারা এক সময় এলাকায় কুলির কাজ করতো এই প্রান্ত থেকে ওই প্রান্তে। তারা এখন অপরাধ কর্মকান্ড করে অর্থবিত্তের মালিক হয়ে গাড়ী হাকাঁয়। তাদের নেই চাকুরী নেই কোন ব্যবসা। তাদের পেশা চুরি চামারী ও খুনখারাবী। এসব অপরাধী তাদের পাহাড়ী গন্ডী বাইরে যেনতেন হলে ও মাহালিয়া তাদের নিজ এলাকায় বনের হিং¯্র পশুর চেয়ে নিষ্ঠুর বলে অভিযোগ রয়েছে। বছর খানেক আগে এই স্থানে মসজিদের জায়গা নিয়ে ওইসব হিং¯্র মানবের হাতে হাসেম নামে এক ব্যক্তি খুন হয়। মাহালিয়া এলাকায় পূর্বে তেমন লোক বসবাস না করলে ও বর্তমানে সন্ত্রাসীদের আবাসখানায় পরিণত হয়েছে। জানা যায় তারা চুরি ডাকাতি খুনখারাবী করে সাতকানিয়ার পাহাড়ী এলাকার ওইস্থানে ফিরে গিয়ে মনের আনন্দে দিন কাটায়। তাদের কাছে নেই প্রচলিত আইনের কোন ভয়। পুলিশ অপরাধীদের ধরতে যাওয়ার আগে তারা পাহাড়ের মধ্যে ঢুকে পড়ে। ফলে তারা ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে কোন অপরাধ করতে সংকোচ করে না। জানা যায় সবুর ফরিদ ও রশিদ গং ওইস্থানে অপরাধীদের সর্দার হিসেবে ভূমিকা পালন করে। তারা এমন কোন কাজ নেই করে না। তারা জনৈক মেম্বার ও যুবলীগ কর্মীর আশ্রয় প্রশ্রয়ে থাকে বলে সূত্রে প্রকাশ। বিনিময়ে তাদের কাছ থেকে তারা পায় লক্ষ টাকা। এতে তাদের সংসার ভালই চলে। তারা আরাম আয়াসে চললে ও সর্বস্বান্ত হতে চলেছে এলাকার লোকজন। এ ব্যাপারে এলাকার লোকজন সংশ্লিষ্ট পুলিশ বিভাগের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Leave a Reply