শেরপুরে বিদ্যালয়ের জায়গা দখল করে মুরগির দোকান নির্মাণ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৫ নভেম্বর, শুক্রবার: শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার উত্তর নাকশি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জায়গা দখল করে পোল্ট্রি মুরগির দোকানসহ বিভিন্ন অবৈধ1 স্থাপনা নির্মাণ করেছে কতিপয় দখলদার। ফলে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের খেলাধূলার মাঠ সংকুচিত হয়ে পড়েছে। মুরগির দোকানের দুর্গন্ধে নাক ঢেকে রাখতে হয় কোমলমতি শিক্ষার্থীদের। দখলদাররা প্রভাবশালী হওয়ায় নিরুপায় বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকারা।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উত্তর নাকশি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা বিস্তারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। বিদ্যালয়ের পাশেই রয়েছে নালিতাবাড়ী-শেরপুর ভায়া গাজীরখামার সড়ক। বিদ্যালয় সংলগ্ন এ সড়কটি ঘিরেই দুইপাশে গড়ে উঠেছে বালুঘাটা-নাকশি নছমপুর বাজার।
এ বাজার কমিটির সভাপতি তোজাম্মেল হক খোকার ছোট ভাই হাবিবুর রহমান হবু, আরেক ভাই মজিবর রহমান এবং একই এলাকার আকাব্বর আলী বিদ্যালয়ের সামনে থাকা নালিতাবাড়ী-শেরপুর সড়ক সংলগ্ন জায়গা দখল করে সেমিপাকা ও টিনসেড ঘর নির্মাণ করে। প্রায় ৫ বছর আগে ঘরগুলো নির্মাণ করে ভাড়া দিয়ে এবং নিজেরা ব্যবসা-বাণিজ্য চালিয়ে আসছে বলে জানান স্থানীয়রা।
বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষিকা বিষয়টি নিয়ে দখলদারদের সঙ্গে কথা বলেছেন। প্রভাবশালীরা পাত্তা দেয়নি সেটিকে। অবৈধভাবে গড়ে তোলা দোকানপাট সরিয়ে নিতে নির্দেশ দিলেও তা মানেনি দখলদাররা। ফলে একদিকে যেমনি রাস্তা থেকে বিদ্যালয়ের একাংশ ঢাকা পড়ে আছে, তেমনি অবৈধ দখলের কারণে শিক্ষার্থীদের খেলাধূলার মাঠ সংকীর্ণ হয়ে পড়েছে।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা চিত্রা রানী সাহা বলেন, মৌখিকভাবে বলার পরও অবৈধ দখলদাররা বিদ্যালয়ের জমি ছাড়েনি। এখানে অন্যান্য দোকানের পাশাপাশি পোল্ট্রি মুরগির দোকান রয়েছে। ফলে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা সবসময় দুর্গন্ধে কষ্ট করে।
অবৈধ দখলদারদের একজন মজিবর রহমান দখলের কথা স্বীকার করে জানান, বিদ্যালয়ের বাউন্ডারি নির্মাণের জন্য ইতিমধ্যেই কর্তৃপক্ষ পরিমাপ করে নিয়ে গেছে। বাউন্ডারি নির্মাণের সময় দোকানঘর সরিয়ে নেব।
নালিতাবাড়ী উপজেলা ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা আতাউর রহমান জানান, ‘বিষয়টি আমার জানা ছিল না। এখন যেহেতু জানলাম, কাজেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Leave a Reply