আ’লীগের হাতে হিন্দু-মুসলিম, বৌদ্ধ-খ্রিস্টান কোনো ধর্মের মানুষই নিরাপদ নয়: ফখরুল

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২২ নভেম্বর, মঙ্গলবার: আওয়ামী লীগের হাতে দেশের হিন্দু-মুসলিম, বৌদ্ধ-খ্রিস্টান কোনো ধর্মের মানুষই নিরাপদ নয় বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।1

তিনি বলেন, “আওয়ামী লীগের হাতে দেশের হিন্দু-মুসলিম, বৌদ্ধ-খ্রিস্টান কোনো ধর্মের মানুষই নিরাপদ নয়। তারা মন্দির-গির্জা ভাঙে। আগুন লাগিয়ে সংখ্যালঘুদের বাড়িঘর, সম্পদ পুড়িয়ে দেয়।” মঙ্গলবার কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার আগরপুরে এক শোকসভায় এসব কথা বলেন বিএনপির মহাসচিব। উপজেলার রামদী ইউনিয়ন যুবদল নেতা শহীদ হাসান আলীর শোকসভায় মির্জা ফখরুল প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন।
মির্জা ফখরুল আওয়ামী লীগের উদ্দেশে বলেন, “তারা গুলি চালাবে। লুটপাট করবে। চুরি করবে। মানুষ হত্যা করবে। তাদের বিরুদ্ধে কিচ্ছু বলা যাবে না। ৯৫ ভাগ মুসলমানের এই দেশে ধর্ম-কর্ম সঠিকভাবে পালন করা যাবে না। ধর্মনিরপেক্ষতার নামে তারা দেশে ধর্মহীনতা শুরু করেছে।”
বিএনপির মহাসচিব বলেন, “মানুষের ভোটের অধিকার, ধর্ম পালনের অধিকার ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপি লড়ে যাচ্ছে। দেশব্যাপী দলের নেতাকর্মীরা হাসান আলীর মতো শহীদ হচ্ছে। আদর্শের লড়াইয়ে এসব শহীদের রক্ত ব্যর্থ হবে না। ধৈর্য ধরুন। জাতীয়তাবাদী শক্তির বিজয় সুনিশ্চিত ইনশাআল্লাহ।”
শহীদ হাসান আলীর বাড়ির আঙিনায় আয়োজিত ওই শোকসভায় এ সময় আরো বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, ময়মনসিংহ বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্সসহ স্থানীয় নেতারা। এর আগে মির্জা ফখরুল দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে হাসান আলীর কবর জিয়ারত করেন। এবং তার আত্মার শান্তি কামনায় অনুষ্ঠিত মোনাজাতে অংশ নেন। পরে তিনি হাসান আলীর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করে তাদের সমবেদনাসহ সব ধরনের সহায়তার আশ্বাস দেন।
হাসান আলী ২০১৩ সালের ২৭ অক্টোবর বিএনপির অবরোধ চলাকালে আগরপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পুলিশের ছোড়া কাঁদানে গ্যাসে আহত হয়ে মারা যান।

Leave a Reply