নৌবাহিনীর খেতাবপ্রাপ্ত ২১ জন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২১ নভেম্বর, সোমবার: মহান সশস্ত্র বাহিনী দিবস ২০১৬ উদযাপন উপলক্ষে নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদ নৌবাহিনীর খেতাবপ্রাপ্ত ২১ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীগণকে সংবর্ধনা প্রদান করেছেন।1
সোমবার বনানীস্থ নৌ সদর সাগরিকা হলে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে নৌবাহিনীর খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীগণের হাতে সম্মাননা তুলে দেয়া হয়। ওই অনুষ্ঠানে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ রুহুল আমিনের পরিবারসহ ৫ জন বীর উত্তম, ৭ জন বীর বিক্রম, ৮ জন বীর প্রতীক মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সন্তান এবং পরিবারবর্গের সদস্যগণসহ নৌবাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাগণ ও বিপুল সংখ্যক নৌসদস্য উপস্থিত ছিলেন।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ রুহুল আমিন, ইআরএ-১ এর কন্যা মিসেস নূরজাহান বেগম সম্মাননা গ্রহণ করেন। এছাড়া বীর মুক্তিযোদ্ধা কমডোর আব্দুল ওয়াহেদ চৌধুরী, বিএন (অবঃ) বীর উত্তম, বীর বিক্রম, লেঃ কমান্ডার মোঃ জালাল উদ্দিন, বিএন (অবঃ) বীর উত্তম ও মরহুম আফজাল মিয়া, ইআরএ-১ (অবঃ) বীর উত্তম এর স্ত্রী মিসেস মরিয়ম আফজালসহ উপস্থিত অন্যান্য খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীগণের হাতে সম্মাননা তুলে দেয়া হয়।
সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে নৌপ্রধান মুক্তিকামী বাঙালী জাতির স্বপ্নদ্রষ্টা, স্বাধীনতা যুদ্ধের মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মত্যাগকারী লাখো শহীদের অবদানের কথা সশ্রদ্ধচিত্তে স্মরণ করেন।
তিনি বলেন, “সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্য’ অর্জনে একটি কার্যকর ও পেশাদার নৌবাহিনী গড়ে তোলার লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিকতা ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বর্তমান সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। ইতিমধ্যে নৌবাহিনীকে ত্রিমাত্রিক ও যুগোপযোগী বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলতে সংযোজিত হয়েছে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক যুদ্ধজাহাজ ও আধুনিক সামরিক সরঞ্জাম। এ বছরই মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ এবং দেশের জলসীমার স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় নিরলস দায়িত্ব পালনের জন্য বাংলাদেশ নৌবাহিনী স্বাধীনতা পদকে ভূষিত হয়েছে।” নৌপ্রধান বলেন, “গৌরবময় এই অর্জনে আমাদের বীর ও শাহাদাত বরণকারী মুক্তিযোদ্ধাদের ভূমিকা অপরিসীম।”
সেই পথ অনুসরণ করে বর্তমান প্রজম্মের নৌ সদস্যগণ সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে যার ফলে নৌবাহিনী আজ আধুনিক ও প্রযুক্তি নির্ভর নৌবাহিনীর দ্বারপ্রান্তে উপনীত বলে তিনি উল্লেখ করেন। নৌবাহিনী তথা দেশমাতৃকার গৌরব সমুন্নত রাখতে সকল নৌসদস্যকে পেশাগত দক্ষতা, কর্তব্যনিষ্ঠা ও দেশপ্রেমের সমন্বয়ে কাজ করার আহবান জানান এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমেদ।

Leave a Reply