নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচন ২২ ডিসেম্বর

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৬ নভেম্বর, বুধবার: গত নির্বাচনে দলীয় সমর্থন না পেয়ে স্বতন্ত্র নির্বাচন করে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র হয়েছিলেন সেলিনা হায়াৎ আইভী। তবে1 এবার প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হচ্ছে। এই নির্বাচনে দলের সিদ্ধান্তের বাইরে যাবেন না আইভী। তিনি জানিয়েছেন, দল যাকে মনোনয়ন দেবে তিনি তা মেনে নেবেন। তবে তৃণমূল থেকে আইভীর নাম প্রস্তাব না করা হলেও কেন্দ্রের পছন্দ আইভীকেই। ইতোমধ্যে তিনি সবুজ সংকেত পেয়েছেন বলে সূত্রে জানা গেছে।
আগামী ২২ ডিসেম্বরের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে কে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন এ ব্যাপারে তৃণমূলের মতামত চায় কেন্দ্র। সেই নির্দেশনা অনুযায়ী মঙ্গলবার মহানগর আওয়ামী লীগের বৈঠকে তিনজনের নাম প্রস্তাব করা হয়। নগর সভাপতি আনোয়ার হোসেনসহ এই তিনজনের তালিকায় নেই নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও বর্তমান মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর নাম।
এ ব্যাপারে আইভী সরাসরি কিছু না বললেও তার সমর্থকেরা দুষছেন শামীম ওসমানকে। আর মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন, বৈঠকে আইভীর নাম কেউ প্রস্তাব করেননি। করলে তারা বিবেচনা করতেন।
তৃণমূল থেকে নাম প্রস্তাব না করা প্রসঙ্গে বুধবার সকালে একটি বেসরকারি টেলিভিশনকে আইভী বলেন, ‘নাম প্রস্তাব না করা মানে এই নয় যে, তৃণমূল আমাকে চায়নি।’
আইভী বলেন, ‘আমি এককথায় বলতে চাই, হাইকমান্ড যে সিদ্ধান্ত নেবে আমি এর বাইরে যাবো না। যেহেতু দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হবে তাই কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই।’
গতকাল তৃণমূলের প্রস্তাবের পরপরই আইভী বলেন, ‘এখনই এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাই না। আমার বক্তব্য আপনার শিগগির জানতে পারবেন।’
২০১১ সালের অক্টোবরে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন আইভী। সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সমর্থ চেয়েও তিনি পাননি। আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দেয়া হয় শামীম ওসমানকে। নির্বাচনের আগ মুহূর্তে বিএনপির প্রার্থী তৈমুর আলম খন্দকার সরে দাঁড়ান। আইভীকে পরোক্ষ সমর্থন দেয় বিএনপি জোট। এতে শোচনীয়ভাবে পরাজিত হন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শামীম ওসমান।

Leave a Reply