চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সুবর্ণ জয়ন্তী শুক্রবার

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৫নভেম্বর, মেঙ্গলবার: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সুবর্ণ জয়ন্তী আগামী শুক্রবার। দুইদিন নানা আয়োজনে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর ৫০তম বার্ষিকী উদযাপন করবে বিশ্ববিদ্যালয়। শুক্রবার উদযাপনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হলেও পরদিন সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সুবর্ণ জয়ন্তীর ডাক টিকেট উন্মোচন ও অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন। মঙ্গলবার চট্টগ্রামের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলন করে দুইদিনের আনুষ্ঠানিকতার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী।
তিনি জানান, শুক্রবার বিকাল ৩টায় চারুকলা ইনস্টিটিউট থেকে সিআরবি শিরীষতলা পর্যন্ত শোভাযাত্রা হবে। শোভাযাত্রার পর জিইসি কনভেনশন সেন্টারে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের দেওয়া হবে অভ্যর্থনা।
শনিবার দিব্যাপী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী ও সুবর্ণ জয়ন্তী বক্তা থাকবেন প্রফেসর ইমেরিটাস ড. আনিসুজ্জামান।1
দ্বিতীয় দিন বিশেষ অতিথি থাকবেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন, পানিসম্পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি, ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর।
এছাড়া সম্মানিত অতিথি থাকবেন নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী, সিটি মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন, ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল মান্নান।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, অনুষ্ঠানের শেষ দিন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র ও মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা দেয়া হবে। এছাড়া সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করবে লালন, আরসেল ও ওয়ারফেজ ব্যান্ড দল।
প্রথমদিন শুক্রবার সন্ধ্যায় জিইসি কনভেনশন সেন্টারে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করবেন রুনা লায়লা, সন্দীপন ও হৈমন্তি রক্ষিত মান।
বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ও সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানের প্রধান সমন্বয়ক কামরুল হুদা জানান, সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন নয় হাজার ৬১২ জন প্রাক্তন ও ২০ হাজার ৯০১ জন বর্তমান শিক্ষার্থী।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সুবর্ণ জয়ন্তী আয়োজন কমিটির অন্যতম সদস্য ও চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম, উপ-উপাচার্য শিরীণ আখতার, প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, হল প্রভোস্টসহ আয়োজক কমিটির সদস্যরা।
প্রতিষ্ঠার ৫০ বছর পর ক্যাম্পাসে মুক্তিযুদ্ধ ভাস্কর্য নির্মাণ করতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অপারেজয় বাংলার আদলে এ ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। মঙ্গলবার সকালে নগরীর ওয়ার্ড ট্রেড সেন্টারে বিশ্ববিদ্যালয়ের সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, ‘প্রতিষ্ঠার ৫০ বছর মাথায় হলেও বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মুক্তিযুদ্ধ ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে। এ জন্য ইতোমধ্যে স্পনসরডও পাওয়া গেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অপারেজয় বাংলার আদলে এ ভাস্কর্য নির্মাণ করা হবে।’

Leave a Reply