ভেজাল, দূষণ, অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনের কারণে শরীরে বাসা বাঁধছে নানা অসুখ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১০ নভেম্বর, বৃহস্পতিবার: ভেজাল, দূষণ, অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনের কারণে শরীরে বাসা বাঁধছে নানা অসুখ। নিয়ন্ত্রণে নেই ডায়াবেটিস, 1বাড়ছে কোলেস্টোরল, ভুগছেন হাইপারটেনশন, হার্ট অ্যাটাকে, কামরাঙায় আছে এসব সমস্যার সমাধান। জেনে নেওয়া যাক জাদুকরী ফল কামরাঙার যত উপকার। চিকিৎসকরা বলছেন, ভিটামিন ই৯ অর্থাৎ ফলিক অ্যাসিডে ভরপুর কামরাঙা। যা হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা কমিয়ে দেয়।
ভিটামিন ঈ-এর পরিমাণ আম, আঙুর, আনারসের চেয়ে বেশি কামরাঙায়। এতে আয়রনের পরিমাণ পাকা কাঁঠাল, কমলালেবু, পাকা পেঁপে, লিচু, ডাবের পানির চেয়েও বেশি। কামরাঙা দিয়ে তৈরি চাটনি, জ্যাম, জেলি খেতে বেশ লাগে। ভিটামিন ই৫ ও ভিটামিন ই৬ প্রচুর পরিমাণে রয়েছে কামরাঙায়।
ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ, কোলেস্টেরল কম করা এবং হাইপারটেনশন দূর করতে কামরাঙার জুড়ি মেলা ভার। শুধু কামরাঙা ফলই নয়, কামরাঙা গাছের পাতাও খুবই উপকারি।
কামরাঙায় রয়েছে এলাজিক অ্যাসিড, যা খাদ্যনালির ক্যান্সার প্রতিরোধ করে। এর পাতা ও কচি ফলের রসে রয়েছে ট্যানিন, যা রক্ত জমাট বাঁধতে সাহায্য করে।
সর্দিকাশিতে দারুণ উপকারি কামরাঙা। কোষ্ঠকাঠিন্যও দূর করে। কামরাঙা চুল, ত্বক, নখ ও দাঁত উজ্জ্বল করে। মুখে ব্রন হওয়া আটকায়।
কামরাঙা খাওয়ার ক্ষেত্রে অবশ্য কিছু নিয়ম মানতে বলছেন চিকিৎসকরা- খালি পেটে কোনওভাবেই খাওয়া চলবে না কামরাঙা।
ডায়ারিয়া হলে কামরাঙা খাওয়া চলবে না। কামরাঙা একটি অক্সালেট সমৃদ্ধ ভিটামিন ঈ জাতীয় ফল। সে কারণে যাদের কিডনির সমস্যা রয়েছে, তাদের কামরাঙা খেতে নিষেধ করছেন চিকিৎসকরা।
অন্যান্য ফলের তুলনায় এর দামও কম। পুষ্টি জোগায়, নানা রোগও প্রতিরোধ করে। তাই সাধারণ একটি ফলেই হতে পারে মুশকিল আসান।

Leave a Reply