শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানই প্রথম বৈধ রাষ্ট্রপতি: এমাজ উদ্দিন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৮ নভেম্ববর, মঙ্গলবার: শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানই বাংলাদেশের প্রথম বৈধ রাষ্ট্রপতি বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ড. এমাজ উদ্দিন আহমেদ।1
মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-ররুনি মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী কারানির্যাতিত ফোরাম আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।
‘অবরুদ্ধ গণতন্ত্র-দু:শাসনের ১০ বছর’ শীর্ষক এ সভায় তিনি বলেন, ১৯৭৮ সালে জিয়াউর রহমানই বাংলাদেশের একমাত্র প্রথম বৈধ রাষ্ট্রপতি হিসাবে নির্বাচিত হন। এর পূর্বে বাংলাদেশে কেউ বৈধ রাষ্ট্রপতি হিসাবে নির্বাচিত হননি। এমনকি বঙ্গবন্ধুও নন। তিনি ‘বঙ্গবন্ধু’ প্রধানমন্ত্রী হয়ে সংসদে প্রবেশ করেন। এর কিছুক্ষণ পরেই তিনি রাষ্ট্রপতি হয়ে বের হন।
শহীদ জিয়া অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করেছিলেন- প্রধান বিচারপতির এই রায়ের তীব্র সমালোচনা করে এমাজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, প্রধান বিচারপতির নাম উচ্চারণ করতেও লজ্জাবোধ হচ্ছে আমার। কারণ শহীদ জিয়া শুধু মাত্র একজন রাজনৈতিক ছিলেন না। তিনি ছিলেন বাংলা দেশের একমাত্র রাষ্ট্রনায়ক। শহীদ জিয়া দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তানদের একজন। সুতরাং তাকে ‘জিয়াউর রহমান’ বিএনপির নেতা হিসাবে দেখলে হবে না, তাকে জাতির সম্পদ হিসাবে শ্রদ্ধা করতে হবে। কারণ তিনি কোন দলীয় সম্পদ নন।
আজ কিংবা কাল বাংলার মাঠিতে গণতন্ত্র আবারও উজ্জীবিত হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
বিএনপির নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে এমাজ উদ্দিন বলেন, দেশের প্রতিটি জেলার সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হবে। এর জন্য আগে নিজেদের মধ্যে ঐক্য সৃষ্টি করতে হবে। যাতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ডাকে সবাই এক সঙ্গে দাঁড়িয়ে যেতে পারেন।
আয়োজক সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা আলহাজ্ব শফিকুল ইসলাম রাসেলের সভাপতিত্বে এতে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, শিক্ষক কর্মচারী ঐক্য জোটের সভাপতি অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়া প্রমুখ বক্তব্যে রাখেন।

Leave a Reply