প্রতিহিংসার কারণে ৭ নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবসের কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছে সরকার: রিজভী

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৬ নভেম্ববর, রবিবার: বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করে বলেছেন, “প্রতিহিংসার কারণে ৭ নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবসের কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছে সরকার।” রোববার বেলা সোয়া ১১টায় নয়াপল্টনে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।1
রুহুল কবির রিজভী বলেন, “জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষ্যে বিএনপি আয়োজিত ৮ নভেম্বরের সমাবেশকে কেন্দ্র করে সরকার ন্যাক্কারজনক খেলায় মেতে উঠেছে।
রিজভী বলেন, “ইতিপূর্বে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি নিয়ে পুলিশ প্রশাসন যে অজুহাত উত্থাপন করে সমাবেশ অনুষ্ঠান বানচাল করেছে তা কেবলমাত্র অনাচারমূলক রাষ্ট্রেই সম্ভব হয়।”
তিনি বলেন, “সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি কেন দেয়া হয়নি সেটি কারো জানতে বাকি নেই। তারপরও পুলিশের বক্তব্য মেনে নিয়ে আমরা নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সমাবেশ করার অনুমতি চেয়ে চিঠি দিয়েছি। এটি নিয়েও পুলিশ প্রশাসনের বিভ্রান্তিমূলক কথাবার্তা দেশবাসীকে হতবাক করেছে।”
বিরোধী দলের গণতান্ত্রিক অধিকারকে হরণ করার নিষ্ঠুর যন্ত্রে পরিণত করতে দিয়ে পুলিশের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।
রিজভী বলেন, গণতান্ত্রিক রাজনীতিতে বাধ্যবাধকতা, মতান্তর ও কুটনীতিও থাকতে পারে। কিন্তু তাই বলে দানবীয় শক্তি প্রয়োগ করে বিরোধী দলের গণতান্ত্রিক অধিকারকে দমন করলে সেটি কখনোই গণতান্ত্রিক সংস্কৃতির সমাজভূমি নির্মাণ করবে না।

Leave a Reply