ল্যাপটপ চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীকে রাতভর নির্যাতন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৩ নভেম্ববর, বৃহস্পতিবার: ল্যাপটপ চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে আসাদুজ্জামান (২৬) নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ডিপার্টমেন্টের এক শিক্ষার্থীকে রাতভর নির্যাতন করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাকে ঢাকা মেডিকেলে কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।1
এ ঘটনায় বুধবার সন্ধ্যায় লালবাগ থানায় আসাদুজ্জামান মামলা করেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন লালবাগ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান। আসাদুজ্জামানের বাড়ি লালমনিরহাট জেলার কালিগঞ্জে।
জানা যায়, মঙ্গলবার রাত ৯টার সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পলাশী রোড সংলগ্ন একটি সরকারি আবাসিক কোয়ার্টারে এই নির্যাতনের শিকার হন আসাদ। প্রায় এক বছর যাবত পলাশী সরকারি কোয়ার্টারের এক নম্বর বিল্ডিং এর ৩য় তলায় ভাড়া থাকছিলেন আসাদুজ্জামান। তার ল্যাপটপ চুরি হলে বাড়িওয়ালার সঙ্গে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে হামলা হয় তার উপর।
জানতে চাইলে আহত আসাদ বলেন, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আমার ল্যাপটপ চুরি হয়। বাড়িওয়ালার কাছে বিকল্প চাবি থাকায় তার দুই ছেলেকে সন্দেহ করে বিষয়টি আমি তাদের অবহিত করি। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে বাড়িওয়ালি আমার উপর ক্ষেপে যান। আমাকে মারার জন্য তার দুই ছেলে রনি ও জসিমকে নির্দেশ দেন।
আসাদ আরও অভিযোগ করেন, বিভিন্ন স্থান থেকে নম্বর দিয়ে বাড়িওয়ালার ছেলেরা আমাকে বাসায় না ফেরার হুমকি দিচ্ছেন। এমনকি ‘জঙ্গি’ আখ্যা দিয়ে ফাঁসিয়ে দেয়া হবে বলেও হুমকি দেয়া হচ্ছে। এ অবস্থায় গুরুত্বপূর্ণ কাগজ ও বই ঐ বাড়িতে থাকা সত্ত্বেও তিনি সে বাসায় যেতে পারছেন না বলে জানান।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাড়িওয়ালা মহিউদ্দিন অবৈধভাবে বাড়িভাড়া দিয়ে বছরের পর বছর অর্থ উপার্জন করছেন। বিষয়টি সরকারিভাবে পুরোপুরি নিষেধ থাকলেও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে কর্মচারী হওয়ার সুবাদে এভাবে আবাসিক ব্যবসা করে আসছেন। হামলার বিষয়ে বাড়িওয়ালা মহিউদ্দিনকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তার মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

Leave a Reply